শিরোনাম
প্রকাশ : ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৬:১১

'বিশ্ব ব্যবস্থার জন্য মার্কিন ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ড অবসানের কোন বিকল্প নেই'

অনলাইন ডেস্ক

'বিশ্ব ব্যবস্থার জন্য মার্কিন ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ড অবসানের কোন বিকল্প নেই'

যুক্তরাষ্ট্রের স্বেচ্ছাচারিতা ও একতরফা নীতির কারণে সমগ্র বিশ্বের শান্তি ও নিরাপত্তা হুমকির মুখে পড়েছে। আন্তর্জাতিক সমাজ যদি এখনই আমেরিকার এ অযৌক্তিক ও ধ্বংসাত্মক আচরণের বিরুদ্ধে জোরালো পদক্ষেপ না নেয় তাহলে দেশটি আরও বেশি বেপরোয়া হয়ে পড়বে।

পর্যবেক্ষকরা বলছেন, মার্কিন সরকারের বহু সিদ্ধান্ত ও কার্যক্রম আন্তর্জাতিক সমাজের জন্য বিপর্যয় ডেকে আনবে। এ প্রসঙ্গে ছয় জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে ইরানের স্বাক্ষরিত পরমাণু সমঝোতা থেকে আমেরিকার বেরিয়ে যাওয়া এবং জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে ইরান বিরোধী প্রস্তাবের কথা উল্লেখ করা যায়।

ইরানের আণবিক জ্বালানি সংস্থার প্রধান আলী আকবর সালেহি আন্তর্জাতিক আণবিক শক্তি সংস্থার সাধারণ পরিষদের অনলাইন বৈঠকে পরমাণু সমঝোতা ধ্বংসের জন্য ওয়াশিংটনের প্রচেষ্টার কথা উল্লেখ করে বলেছেন, বহুপক্ষীয় বিশ্ব ব্যবস্থা গড়ে তোলার জন্য আমেরিকার ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ড অবসানের কোন বিকল্প নেই।

ইরানবিরোধী জাতিসংঘের অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা নবায়ন এবং দেশটির বিরুদ্ধে স্ন্যাপব্যাক পদ্ধতি ব্যবহারে মার্কিন পরিকল্পনা ও প্রস্তাবের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক সমাজের ঐক্যবদ্ধ অবস্থান এর কথা উল্লেখ করে সালেহী আরো বলেছেন এটা অনেক বড় সাফল্য এবং এ সাফল্যকে ধরে রাখা উচিত।

পর্যবেক্ষকরা বলছেন, ইরানের আণবিক শক্তি সংস্থার প্রধান আলী আকবর সালেহির এসব বক্তব্য থেকে বোঝা যায়, যদিও মার্কিন হুমকি মোকাবিলার জন্য প্রয়োজনীয় সক্ষমতা ইরানের রয়েছে কিন্তু তেহরান আন্তর্জাতিক সম্পর্কের নীতিমালায় বিশ্বাসী। কিছুদিন আগে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে, মার্কিন স্বেচ্ছাচারী আচরণকে আন্তর্জাতিক শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য বড় বিপদ এবং জাতিসংঘ ও নিরাপত্তা পরিষদের জন্য নজিরবিহীন হুমকি হিসেবে অভিহিত করে বলেছে, গুটিকয়েক দেশের সহযোগিতায় আমেরিকা যদি এ আচরণ অব্যাহত রাখে তাহলে তারা আন্তর্জাতিক সমাজের প্রতিক্রিয়ার সম্মুখীন হবে এবং এর বিপদজনক পরিণতির দায় মার্কিন কর্মকর্তাদের ওপর বর্তাবে।

বাস্তবতা হচ্ছে, ইরান ইস্যুতে আমেরিকা জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে বেশ কবার কূটনৈতিক পরাজয়ের স্বাদ গ্রহণ করেছে। যুক্তরাষ্ট্র ও ডোমিনিকান প্রজাতন্ত্র ছাড়া নিরাপত্তা পরিষদের অন্য সদস্য দেশগুলো সরাসরি বলে দিয়েছে ইরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার মতো যৌক্তিক অবস্থানে আমেরিকান নেই। ব্রিটেন, জার্মানি, ফ্রান্স, চীন ও রাশিয়া যৌথ বিবৃতিতে জানিয়েছে, নিরাপত্তা পরিষদের ২২৩১ নম্বর প্রস্তাব অনুযায়ী যুক্তরাষ্ট্র ইরানের বিরুদ্ধে জাতিসংঘের অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা নবায়ন করতে পারবে না।

প্রকৃতপক্ষে, আন্তর্জাতিক সমাজের মতামতকে উপেক্ষা করে যুক্তরাষ্ট্র গত প্রায় দুই মাস ধরে বেআইনিভাবে ইরানের বিরুদ্ধে অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা নবায়নের চেষ্টা করে আসছে। এ কারণে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে যুক্তরাষ্ট্রের একতরফা নীতির ব্যাপারে স্পর্শকাতরতা দিন দিন বাড়ছে। জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের এবারের সম্মেলনে এ বিষয়টি আরো স্পষ্ট হয়ে উঠবে বলে পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন।

বিডি প্রতিদিন/আরাফাত


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর