শিরোনাম
প্রকাশ : ১৪ জানুয়ারি, ২০২১ ০৬:০৬
আপডেট : ১৪ জানুয়ারি, ২০২১ ০৬:১১
প্রিন্ট করুন printer

ফের অভিশংসিত হলেন ট্রাম্প

অনলাইন ডেস্ক

ফের অভিশংসিত হলেন ট্রাম্প

মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে ডোনাল্ড ট্রাম্পের মেয়াদ আর মাত্র ৭ দিন। কিন্তু সেই মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই কংগ্রেস ভবন ক্যাপিটল হিলে হামলার জেরে দ্বিতীয়বারের মতো অভিশংসিত হলেন তিনি। খবর এনবিসি নিউজের

বুধবার (বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার ভোররাত) যুক্তরাষ্ট্র কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে ট্রাম্পকে অভিশংসনের প্রস্তাব পাস হয়। যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে ট্রাম্পই প্রথম প্রেসিডেন্ট, যিনি দ্বিতীয়বার অভিশংসিত হলেন।

কংগ্রেসের নিম্নকক্ষের সদস্যরা ২৩২-১৯৭ ভোটে ট্রাম্পকে অভিশংসনের সিদ্ধান্ত দেন। ডেমোক্র্যাটদের আনা এই প্রস্তাবে ১০ জন রিপাবলিকান নেতাও ভোট দিয়েছেন। সহিংস বিদ্রোহে উসকানি দেওয়ার জন্য দায়ী করে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে এই প্রস্তাব পাস হয়।

প্রতিনিধি পরিষদে পাস হওয়া এই প্রস্তাব যাবে এখন কংগ্রেসের উচ্চ কক্ষ সিনেটে শুনানিতে। ১০০ সদস্যের সিনেটে দুই-তৃতীয়াংশ সদস্য সম্মতি দিলে তবেই ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট পদ ছাড়তে বাধ্য হবেন।

এর আগে একবার নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে অভিশংসিত হয়েছিলেন ট্রাম্প। তবে সিনেটের ভোটাভুটিতে তার পদ রক্ষা হয়। আমেরিকার সংবিধানের ২৫ নম্বর সংশোধনী অনুযায়ী কোনো প্রেসিডেন্ট দায়িত্ব পালনে অক্ষম হলে তার বিরুদ্ধে অভিশংসনের প্রস্তাব এনে মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই তাকে সরিয়ে দেয়া যায়।

উল্লেখ্য, এবারের নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেনের কাছে পরাজিত হন বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ট ট্রাম্প। আগামী ২০ জানুয়ারি নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেবেন জো বাইডেন।

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ০৫:৪৫
প্রিন্ট করুন printer

এবার সিকিমে চীনা সেনার অনুপ্রবেশের চেষ্টা, কড়া অবস্থানে ভারত

অনলাইন ডেস্ক

এবার সিকিমে চীনা সেনার অনুপ্রবেশের চেষ্টা, কড়া অবস্থানে ভারত
প্রতীকী ছবি

এখনও গলওয়ানে ভারত এবং চীনের সেনা বাহিনীর সংঘর্ষের রেশ কাটেনি। এর মধ্যেই এবার সিকিম সীমান্তে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ল দুই দেশের সেনারা। এতে ভারত ও চীনের অন্তত ২৪ জন সেনা আহত হয়েছে। ভারতীয় সেনা সূত্র দাবি করছে, সিকিম দিয়ে ভারতে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করছিল এক দল চীনা সেনা সদস্য। কিন্তু ভারতীয় বাহিনীর প্রবল বাধায় শেষ পর্যন্ত তারা পিছু হঠতে বাধ্য হয়। 

এতে সংঘর্ষে দু’পক্ষেরই বেশ কিছু সেনা সদস্য আহত হয় বলে জানা গেছে। তবে ভারতীয় সেনা বিবৃতি দিয়ে বিষয়টিকে ‘ছোট সংঘর্ষ’ বলে ব্যাখ্যা করা হয়েছে। তাদের দাবি, চীনর অন্তত ২০ জন সেনা সদস্য ওই সংঘর্ষে আহত হয়েছে। অপরদিকে ভারতের ৪ জন সেনা আহত হয়।

এ ঘটনার জেরে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে সিকিম সীমান্তে। ভারতীয় গণমাধ্যম বলছে, খারাপ আবহাওয়ার মধ্যেও সীমান্তে কড়া নজরদারি চালাচ্ছেন সেনারা। গলওয়ানের সংঘর্ষের পর নাকু লা-র এই ঘটনায় ভারত-চীন সীমান্ত সঙ্ঘাত ফের ভিন্ন মাত্রা পেল। সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ০৪:৫০
আপডেট : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ০৫:২৮
প্রিন্ট করুন printer

জ্যাক মা’র মিনিটের দাম ৫ হাজার ৮০০ কোটি ডলার!

অনলাইন ডেস্ক

জ্যাক মা’র মিনিটের দাম ৫ হাজার ৮০০ কোটি ডলার!
ফাইল ছবি

প্রায় তিন মাস বাদে দেখা মিলল চীনা ই-কমার্স জায়ান্ট আলিবাবার প্রতিষ্ঠাতা জ্যাক মার। গত বুধবারের ওই দিন চীনের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ১০০ শিক্ষকের সামনে প্রায় ১ মিনিটের একটি ভিডিও বক্তব্য দেন তিনি।

এভাবে ৯০ দিন পর ফের তার দেখা মেলায় শেয়ারবাজারে আলিবাবার বাজারমূল্য এক দিনে বেড়ে যায় ৫ হাজার ৮০০ কোটি ডলার। বলা হচ্ছে, জ্যাক মার মিনিটের দাম ৫ হাজার ৮০০ কোটি ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ৪ লাখ ৯২ হাজার কোটি টাকারও বেশি)! 

ফরচুন ডট কমের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, একদিনে কোম্পানিটির শেয়ারের দর বেড়েছে সাড়ে ৮ শতাংশ। লেনদেন শেষে কোম্পানিটির বাজার মূলধন দাঁড়ায় ৭৪ হাজার কোটি মার্কিন ডলার।

এই পরিস্থিতি চীনা সরকারের কপালে ভাঁজ পড়াতে বাধ্য। জ্যাক মাকে কারাদণ্ড বা তার ব্যবসায়ের ওপর নিয়ন্ত্রণ আনার বিষয়টি সরকারকে ভাবাবে বলে মনে করছেন চীনা অর্থনীতি বিশ্লেষকেরা।

উল্লেখ্য, চীনা নিয়ন্ত্রক সংস্থার সমালোচনা করার পরই আলিবাবার সহযোগী প্রতিষ্ঠান অ্যান্ট গ্রুপের ৩ হাজার ৭০০ কোটি মার্কিন ডলার মূল্যের আইপিও গত অক্টোবরে স্থগিত করে চীনা কর্তৃপক্ষ। জ্যাক মা এরপর থেকেই নিখোঁজ হন।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ জানুয়ারি, ২০২১ ২২:০১
প্রিন্ট করুন printer

আলাদা দল গঠনের হুমকি ট্রাম্পের

অনলাইন ডেস্ক

আলাদা দল গঠনের হুমকি ট্রাম্পের

মার্কিন সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সম্ভাব্য ইমপিচমেন্ট থেকে বাঁচতে আলাদা দল গঠনের হুমকি দিয়েছেন। তিনি আশঙ্কা করছেন, আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি সিনেটে ইমপিচমেন্টের ব্যাপারে যে ভোটাভুটির কথা রয়েছে তাতে তার নিজ দল রিপাবলিকান পার্টির সদস্যরা তার বিরুদ্ধে ভোট দিতে পারেন।

ট্রাম্প সিনেটের ভোটাভুটিতে চূড়ান্তভাবে ইমপিচমেন্টের শিকার হন তাহলে তিনি আর কখনো নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা কিংবা সরকারি কোনো দায়িত্ব পালন করতে পারবেন না।

এই পরিস্থিতি বিবেচনায় রেখে ট্রাম্প এখন মনে করছেন যে, তৃতীয় কোনো দল গঠনের হুমকি দিলে রিপাবলিকান সিনেটররা তার বিরুদ্ধে ভোট দেয়া থেকে বিরত থাকতে পারেন। দৈনিক ওয়াশিংটন পোস্ট এই খবর দিয়েছে। এর আগে, ট্রাম্পের ক্ষমতার শেষভাগে দৈনিক ওয়ালস্ট্রিট জার্নাল সর্বপ্রথম জানিয়েছিল যে, ডোনাল্ড ট্রাম্প ‘প্যাট্রিয়ট পার্টি’ নামে একটি নতুন দল গঠনের চিন্তা করছেন।

গত ৩ নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিপুল ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হলেও ডোনাল্ড ট্রাম্প তা মেনে নিতে রাজি ছিলেন না। ক্ষমতা ছাড়ার আগ মুহূর্তে তিনি তার উগ্রবাদী সমর্থকদের উদ্দেশ্যে উসকানিমূলক বক্তব্য দেন যার পরিপ্রেক্ষিতে হাজার হাজার সমর্থক মার্কিন কংগ্রেস ভবনে হামলা চালায় এবং সেখানে লুটপাট করে।

এই ঘটনায় মার্কিন কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদ ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ইমপিচ করেছে। এখন সিনেটে এ বিষয়ে ভোটাভুটি হবে। ট্রাম্পের ধৃষ্টতাপূর্ণ কাজের জন্য তার নিজ দলের লোকজনও ক্ষিপ্ত।

বিডি প্রতিদিন/আরাফাত


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ জানুয়ারি, ২০২১ ১৮:৩৫
প্রিন্ট করুন printer

লকডাউনে ভারতে ধনীদের ৩৫ শতাংশ সম্পদ বৃদ্ধি, বেকার বেড়েছে লক্ষাধিক

অনলাইন ডেস্ক

লকডাউনে ভারতে ধনীদের ৩৫ শতাংশ সম্পদ বৃদ্ধি, বেকার বেড়েছে লক্ষাধিক
সংগৃহীত ছবি

করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে ভারতে আরও গভীর হয়েছে ধনী ও গরীবের মধ্যে বৈষম্য। আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন অক্সফ্যাম'র একটি সমীক্ষায় ভারতের মুষ্টিমেয় ধনকুবের এবং কোটি কোটি অদক্ষ শ্রমিকের আয়ের মধ্যে বিশাল ফারাকের বিষয়টি উঠে এসেছে।

অক্সফ্যামের ওই রিপোর্টের শিরোনাম ‘দ্য ইনইক্যুয়ালিটি ভাইরাস’ অর্থাৎ ‘বৈষম্যের ভাইরাস’। আগামী ২৬ জানুয়ারি থেকে সুইজারল্যান্ডের দাভোসে শুরু হওয়া ‘ওয়ার্ল্ড ইকনমিক ফোরাম’-এর বৈঠকে রিপোর্টটি উপস্থাপণ করা হবে। 

রিপোর্টে বলা হয়েছে, লকডাউনের সময় ভারতে ধনকুবেরদের সম্পদ বেড়েছে গড়ে ৩৫ শতাংশ। উল্টো দিকে ৮৪ শতাংশ পরিবারের আয় কমেছে বিভিন্ন ভাবে। গত বছর এপ্রিলেই প্রতি ঘণ্টায় কাজ হারিয়েছেন ১ দশমিক ৭ লাখ মানুষ।

রিপোর্ট অনুযায়ী, গত বছরের মার্চ (যে সময় থেকে লকডাউন কার্যকর হয়) থেকে ভারতের ১০০ ধনকুবেরদের যে পরিমাণ সম্পদ বেড়েছে তা দিয়ে তারা দেশটির ১৩ কোটি ৮০ লাখ দরিদ্রতম মানুষকে অন্তত ১ লাখ ১০ হাজার টাকা করে দান করতে পারতেন। 

রিপোর্টে বলা হয়েছে, ‘ভারতের বাড়তে থাকা আর্থিক বৈষম্য মারাত্মক পর্যায়ে পৌঁছে যাচ্ছে। মহামারির সময়ে রিলায়্যান্স কর্ণধার মুকেশ আম্বানীর ঘণ্টা পিছু যা আয় তা রোজগার করতে একজন অদক্ষ শ্রমিকের ১০ হাজার বছর লাগবে।’ 

প্রসঙ্গত, গত বছর অগস্টেই বিশ্বের ধনী ব্যক্তিদের তালিকায় চতুর্থ স্থানে উঠে আসেন রিলায়্যান্স কর্ণধার। যদি ভারতের শীর্ষস্থানে থাকা ১১ জন ধনকুবের তাদের সম্পদ বৃদ্ধির অনুপাতে ১ শতাংশ হারে কর বাড়ানো হতো তা হলে জন ওষধি প্রকল্পে বরাদ্দ বৃদ্ধি হতো।

শারীরিক দূরত্ব বজায়, সাবান দিয়ে হাত ধোওয়ার মতো কোভিড বিধি নিয়েও প্রশ্ন তুলে দিয়েছে ওই রিপোর্ট। বলা হয়েছে, শহর এলাকায় শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখার মতো বিধি মেনে চলা ৩২ শতাংশ মানুষের কাছে বিলাসিতা মাত্র। কারণ তারা বেশির ভাগই এক অথবা দুই কামরার বাড়িতে বসবাস করেন। ৩০ শতাংশ মানুষের কাছে হাত ধোওয়ার জন্য সাবান পানি জোগাড় করা কঠিন বলেও উল্লেখ রয়েছে ওই রিপোর্টে।

ভারত সরকারকে ন্যূনতম মজুরি বাড়ানোর পরামর্শ দিয়েছে অক্সফ্যাম। সেই সঙ্গে তা ভবিষ্যতে নিয়মমাফিক বাড়ানোর কথাও বলা হয়েছে। ভারতের পাশাপাশি লকডাউনের সময় বিশ্বজুড়ে আর্থিক বৈষম্যের কথাও তুলে ধরেছে অক্সফ্যাম। গত বছর ১৮ মার্চ থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত বিশ্বের ধনকুবেরদের আর্থিক উন্নতি ‘বিস্ময়কর’ বলে আখ্যা দিয়েছে ওই রিপোর্ট। কোভিড সঙ্কট শুরুর মুহূর্ত থেকে বিশ্বের প্রথম ১০ ধনীর সম্পদও বাড়তে শুরু করেছে বলেও জানিয়েছে অক্সফ্যাম। সূত্র: আনন্দবাজার

বিডি প্রতিদিন/আরাফাত


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ জানুয়ারি, ২০২১ ১৭:২৩
প্রিন্ট করুন printer

দীর্ঘদিনের দ্বন্দ্ব নিরসনে আলোচনায় বসছে তুরস্ক ও গ্রিস

অনলাইন ডেস্ক

দীর্ঘদিনের দ্বন্দ্ব নিরসনে আলোচনায় বসছে তুরস্ক ও গ্রিস
তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভুলত চাভুসওগ্লু (ডানে) ও গ্রিসের পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিকোস ডেনডিয়াস

পূর্ব ভূমধ্যসাগরে তেল ও গ্যাসের অনুসন্ধান নিয়ে সৃষ্ট দ্বন্দ্ব নিরসন এবং সমুদ্রসীমা নির্ধারণের লক্ষ্যে তুরস্ক ও গ্রিস আলোচনা শুরু করেছে।

তুরস্কের ইস্তাম্বুল শহরে আজ সোমবার আলোচনা শুরু হয়। দু'দেশের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা দ্বন্দ্ব অবসানের লক্ষ্যে তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মেভলুত চাভুসওগ্লূ সরাসরি আলোচনায় বসার জন্য গ্রিসের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। তার ধারাবাহিকতায় এ আলোচনা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

গত সপ্তাহে বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে ইউরোপীয় ইউনিয়নের শীর্ষ পর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী। সে সময় গ্রিসের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে আলোচনায় বসার আমন্ত্রণ জানান চাভুসওগ্লু। পাঁচ বছর পর দুই দেশ এ ধরনের আলোচনায় বসল। ২০১৬ সালে দুপক্ষ সর্বশেষ আলোচনা করেছিল।

তুরস্ক ও গ্রিসের মধ্যকার এই আলোচনাকে স্বাগত জানিয়েছেন ইউরোপীয় কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট চার্লস মিশেল। 

তিনি বলেন, দু'দেশের মধ্যকার দ্বন্দ্ব নিরসনের এই উদ্যোগকে ইউরোপীয় ইউনিয়ন স্বাগত জানায়। তবে এই আলোচনায় বড় ধরনের কোন অগ্রগতি আসবে বলে মনে হয় না। কারণ ন্যাটো জোটের সদস্য গ্রিস এবং তুরস্ক গত সপ্তাহেও বাকবিতণ্ডায় লিপ্ত হয়েছে।

বিডি প্রতিদিন/আরাফাত


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

এই বিভাগের আরও খবর