Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২৩:২২

সংক্ষেপে

সংক্ষেপে

আমিরাত সফরে পোপ

প্রথমবারের মতো আরব আমিরাত সফর করতে যাচ্ছেন খ্রিস্টানদের শীর্ষ ধর্মীয় নেতা পোপ ফ্রান্সিস। রবিবার আবুধাবিতে পৌঁছানোর কথা রয়েছে পোপের। আন্তঃধর্মীয় একটি সম্মেলনে অংশ নিতে আবুধাবির যুবরাজ শেখ মোহাম্মেদ বিন জায়েদ আল-নাহিয়ানের আমন্ত্রণে আবুধাবি সফর করবেন পোপ। ঐতিহাসিক এই সফরের অংশ হিসেবে আগামীকাল এক জমায়েতে উপস্থিত হবেন পোপ, যেখানে ১ লাখ ২০ হাজার মানুষ উপস্থিত হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ইয়েমেন যুদ্ধের বিষয়ে বক্তব্য দেওয়ার কথা রয়েছে তার।

শীর্ষনেতা কী বলেন- সেই দৃষ্টিকোণ থেকে এই সফর বিশেষ গুরুত্ব পাচ্ছে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে। ইয়েমেনে অবরোধ করা সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের শরিক হিসেবে আরব আমিরাতও রয়েছে, যেই অভিযান সমালোচনা করে সম্প্রতি মন্তব্য করেছেন পোপ। গত বছরে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে পোপ আহ্বান করেছিলেন যেন ‘ইয়েমেনে চলমান মানবিক বিপর্যয়কে আরও দুর্বিষহ’ করে তোলা না হয়। এএফপি

 

নৈশভোজে রাহুল

ভারতের রাজধানী দিল্লির একটি রেস্তোরাঁয় গত শুক্রবার শিক্ষার্থীদের সঙ্গে নৈশভোজ করেছেন কংগ্রেসের সভাপতি রাহুল গান্ধী। সাত শিক্ষার্থীর সঙ্গে রাতের খাবার খেতে খেতে গল্প করেন তিনি। রাহুলকে কাছে পেয়ে, তার সঙ্গে কথা বলে মুগ্ধ হয় এই শিক্ষার্থী দল। তাদের ভাষায়, রাহুল গান্ধী ভীষণই আন্তরিক ও অমায়িক মানুষ। নির্বাচনকে সামনে রেখে তরুণ প্রজন্মের কথা জানতে কংগ্রেস ‘আপনি বাত রাহুল কি সাথ’ কর্মসূচির আয়োজন করেছে। এর প্রথম দিনের আয়োজনে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বসেন রাহুল।

কংগ্রেসের এই আয়োজন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ‘মন কি বাত’ আয়োজনের আদলে হচ্ছে, যদিও কংগ্রেস এই আয়োজনের জন্য মাঝেমধ্যেই মোদিকে নিয়ে রসিকতা করে।

দেবেশ্বর নামের এক শিক্ষার্থী রাহুল সম্পর্কে বলেন, ‘আমি সব জানি-ধরনের মানুষ না তিনি। তিনি খুবই খোলা মনে আলোচনা করেছেন। আলোচনার বিষয়গুলো বুঝতে চেষ্টা করেছেন।’ এই শিক্ষার্থীদের দলে ছিলেন একজন সমকাম অধিকারকর্মী। তিনি সব শিক্ষার্থীকে সমান চোখে দেখার দৃষ্টিভঙ্গি গড়ে তোলার জন্য লিঙ্গ-নিরপেক্ষ টয়লেটের প্রস্তাব করেন। রাহুল আগামী ইশতেহারে বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত করার ব্যাপারে আশ্বাস দেন।

এ ছাড়া জাতপাতের বৈষম্য নিয়ে রাহুল গান্ধীর সঙ্গে আলোচনা করেছেন টাটা ইনস্টিটিউট অব সোশ্যাল সায়েন্সের শিক্ষার্থী কুনাল রামতেকে। তিনি জানিয়েছেন, রাহুলের সঙ্গে কথা বলে তার মনে হয়েছে, তিনি বিষয়টির প্রতি সংবেদনশীল। তিনি হয়তো এই বৈষম্য দূর করতে পদক্ষেপ নেবেন। কারণ, এ বিষয়ে রাহুল গান্ধীর কথাবার্তা ছিল খুবই অনুপ্রেরণামূলক।


আপনার মন্তব্য