Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ১২ মে, ২০১৯ ০৯:০০
আপডেট : ১২ মে, ২০১৯ ০৯:০২

তীব্র গরমে ঘোড়াকে স্যালাইন!

অনলাইন ডেস্ক

তীব্র গরমে ঘোড়াকে স্যালাইন!

গত কয়েক দিন ধরে তাপমাত্রা বেড়েই চলেছে। তীব্র গরমে হাঁসফাঁস দশা মানুষ থেকে প্রাণী, সকলেরই।

তীব্র দাবদাহ থেকে রেহাই মিলতে ইতিমধ্যে ভারতের কলকাতার চিড়িয়াখানায় প্রাণীদের খাবারের মেনু পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ। 

একইভাবে গরম থেকে বাঁচাতে কলকাতা পুলিশের ঘোড়সওয়ার বাহিনীর ঘোড়াগুলোকেও বিশেষ পর্যবেক্ষণে রেখেছে কলকাতা মাউন্টেড পুলিশ কর্তৃপক্ষ। 

জানা গেছে, তীব্র গরমে কাবু কলকাতা পুলিশের পাঁচটি ঘোড়ার নিয়মিত স্যালাইন চলছে।

শুধু তা-ই নয়, গরম থেকে ওই ঘোড়াগুলোকে বাঁচাতে খাবারের মেনুতে একাধিক পরিবর্তন করা হয়েছে। পশু-চিকিৎসকের পর্যবেক্ষণে দিনরাত পরিচর্যা চলছে এদের।

সকালে পানির সঙ্গে গ্লুকোজ। কাঁচা ছোলার সঙ্গে গুড়-পানি। দিনে কমপক্ষে তিন বার গোসল। পেট খারাপ হওয়ার মতো খাবার একেবারেই নয়।

এস এন ব্যানার্জি রোডে কলকাতা পৌরসভার সদর দফতরের বিপরীতে কলকাতা মাউন্টেড পুলিশের আস্তাবলে এখন ৪৮টি ঘোড়া রয়েছে।

পুলিশ সূত্রের খবর, গত কয়েক দিনে তীব্র গরমের জেরে পাঁচটি ঘোড়াকে নিয়মিত স্যালাইন দিতে হচ্ছে।

কলকাতা মাউন্টেড পুলিশের পশু-চিকিৎসক সুরজিৎ বসু বলেন, “গত কয়েক দিনে গরম এতটাই বেড়েছে যে, তা রীতিমতো উদ্বেগের বিষয়। এমনিতেই ঘোড়া খুব বেশি তাপমাত্রা সহ্য করতে পারে না। গরম থেকে বাঁচতে খাবারের মেনু পরিবর্তন করা হয়েছে। পাঁচটি ঘোড়াকে নিয়মিত স্যালাইন, ওষুধ দিতে হচ্ছে। ঘন ঘন গোলসও করাতে হচ্ছে।”

কেবল খাবারে পরিবর্তন নয়, গরম ঠেকাতে ঘোড়সওয়ার বাহিনীর প্রশিক্ষণের সময়ও কমানো হয়েছে।

মাউন্টেড পুলিশের ইনস্পেক্টর অভ্র চট্টোপাধ্যায় বলেন, “রোজ সকালে আস্তাবল থেকে ঘোড়া নিয়ে ময়দানে প্রশিক্ষণে যাওয়া হয়। গরমের কারণে প্রশিক্ষণের সময় ঘোড়ার পিঠে চড়া আপাতত বন্ধ। একইভাবে প্রচণ্ড গরমের জন্য সকালে তিন ঘণ্টার বদলে দু’ঘণ্টা ডিউটি রাখা হয়েছে।”

সূত্র: আনন্দবাজার

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য