শিরোনাম
প্রকাশ : ৮ মার্চ, ২০২১ ২১:৩৯
প্রিন্ট করুন printer

তৃণমূল কংগ্রেসে ফের ভাঙন, একসাথে পাঁচ বিধায়ক বিজেপিতে

দীপক দেবনাথ, কলকাতা

তৃণমূল কংগ্রেসে ফের ভাঙন, একসাথে পাঁচ বিধায়ক বিজেপিতে

একদিনেই বিরাট ভাঙনের মুখে পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতাসীন দল তৃণমূল কংগ্রেস। একুশের বিধানসভার নির্বাচনে তৃণমূূলের প্রার্থী তালিকায় নাম না থাকায় বিজেপিতে যোগ দিলেন তৃণমূলের পাঁচ বিধায়ক। এরা হলেন সিঙ্গুরের বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য, সাতগাছির বিধায়ক সোনালী গুহ, সাঁকরাইলের বিধায়ক শীতল সমাদ্দার, শিবপুরের বিধায়ক জটু লাহিড়ী ও বসিরহাট দক্ষিণের বিধায়ক দীপেন্দু বিশ্বাস। 

সোমবার কলকাতার হেস্টিংসে বিজেপির কার্যালয়ে দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ ও সর্বভারতীয় সহসভাপতি মুকুল রায়ের হাত ধরে বিজেপিতে যোগদান করেন। এদিনের যোগদান অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিজেপি সাংসদ লকেট চ্যাটার্জি ও বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী। 

তৃণমূলের পাঁচ সাংসদের সাথেই এদিন তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে নাম লেখান মালদার হাবিবপুরের তৃণমূল প্রার্থী সরলা মুর্মু। নিজের পছন্দের কেন্দ্রে তাকে প্রার্থী করা হয় নি-এই অসন্তোষ প্রকাশ করে ঘাসফুল শিবির ছেড়ে পদ্ম শিবিরে নাম লেখান। এদিন টলিউড অভিনেত্রী তনুশ্রী চক্রবর্তীও বিজেপিতে যোগ দেন। 

তবে এদিন সবচেয়ে বড় ভাঙন দেখা গেছে মালদা জেলার তৃণমূল শিবিরে। মালদা জেলা পরিষদের সভাধিপতি গৌড় চন্দ্র মন্ডল সহ ১৪ জন সদস্য বিজেপিতে যোগদান করেন। এর ফলে ৩৮ আসনের জেলা পরিষদে ২২ টি বিজেপির দখলে চলে এল। 

সামনেই রাজ্যটিতে ২৯৪ টি আসনে নির্বাচন। তার আগে একের পর এক তৃণমূলের বিধায়ক, নেতা-নেত্রীর দলবদলে যথেষ্ট বিপাকে রাজ্যটির শাসকদল। 
এনিয়ে তৃণমূলের সিনিয়র সাংসদ সৌগত রায় জানান ‘মনোনয়ন না পেয়ে অন্য দলে গেছেন তার অর্থ এদের কোনও নীতিবোধ ছিল না যতক্ষণ মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনা ছিল, ততক্ষণ দলে ছিলেন। যেই পেলেন না, অন্য দলে যোগ দিলেন। একে গুরুত্ব দেওয়ার প্রয়োজন আছে বলে মনে হয় না।’ 

গত ৫ মার্চ পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার নির্বাচনে (মোট ২৯৪ টি আসন) ২৯১ আসনে প্রার্থী ঘোষণা করে ক্ষমতাসীন দল তৃণমূল কংগ্রেস। একুশের নির্বাচনে প্রার্থী তালিকায় অভিনেতা, চিত্রপরিচালক, ক্রীড়াবিদ, সাহিত্যিক সহ সমাজের বিভিন্ন স্তরের নামী ব্যক্তিরা জায়গা পেলেও তালিকায় জায়গা হয়নি একাধিক বিধায়ক, নেতা, নেত্রীর। প্রার্থী তালিকায় নাম না থাকায় তাদের অনেকেই অসন্তোষ প্রকাশ করেন। 

তৃণমূলের টিকিট না পাওয়ায় চার বারের বিধায়ক ও মমতা ঘনিষ্ঠ সোনালী গুহ থেকে শুরু করে পাঁচ বারের বিধায়ক জটু লাহিড়ী, সিঙ্গুর আন্দোলনের অন্যতম মুখ রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য -প্রত্যেকেই গণমাধ্যমের সামনে কান্নায় ভেঙে পড়েন। 

এর আগে গতকাল রবিবারই ব্রিডেগ প্যারেড গ্রাউন্ডে মোদির জনসভায় বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন রাজ্যসভার সাবেক তৃণমূল সাংসদ ও অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তী। এরও আগে গত তিন মাস ধরে তৃণমূল ছেড়ে বিভিন্ন সময়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন রাজ্যের সাবেক মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী, রাজীব ব্যনার্জি, সাংসদ সুনীল মন্ডল, বিধায়ক শীলভদ্র দত্ত সহ একাধিক বিধায়ক, কাউন্সিলর, নেতা-নেত্রী, টলিউড জগতের সেলিব্রেটিরা। 

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর