শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২২:৫৮

অষ্টম কলাম

মাটির গর্ত থেকে বেরিয়ে এলো হত্যা মামলার আসামি

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া

মাটির গর্ত থেকে বেরিয়ে এলো হত্যা মামলার আসামি

বগুড়ায় মাটির গর্ত থেকে বেরিয়ে এলো হত্যা মামলার আসামি। গত রবিবার রাতে পুলিশ শেরপুর উপজেলার কুসুম্বী ইউনিয়নের টুনিপাড়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে নিজ বাড়ির শয়নকক্ষে মাটির গর্ত করে লুকিয়ে থাকা মিলন  হোসেনকে (৩০) গ্রেফতার করে। সে ওই গ্রামের জাবেদ আলীর ছেলে। বগুড়ার শেরপুরে অটোভ্যান চালক কিশোর মেরাজুল ইসলাম হত্যা মামলার প্রধান আসামি মিলন হোসেন। বগুড়া জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শেরপুর সার্কেল) গাজিউর রহমানের নেতৃত্বে শেরপুর থানার ওসি হুমায়ুন কবির, পুলিশ পরিদর্শক বুলবুল ইসলাম ও থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আতোয়ার রহমান এই অভিযান পরিচালনা করেন। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শেরপুর সার্কেল) গাজিউর রহমান জানান, হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকার করে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে গ্রেফতার মিলন। এর আগে ১৭ আগস্ট সাইফুল ইসলাম ও সোহেল রানা নামে আরও দুইজন এই হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দেয়। শেরপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আতোয়ার রহমান জানান, এই হত্যাকাণ্ডে অংশ নেন মোট পাঁচজন। এরমধ্যে চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকার করেছেন। ব্যাটারিচালিত অটোভ্যান ছিনিয়ে নিতেই অটোভ্যান চালক কিশোর মেরাজুল ইসলামকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়। এরপর রাস্তার পাশে ফসলি জমির কাদামাটির মধ্যে তার লাশ ফেলে দিয়ে অটোভ্যান নিয়ে চলে যায় তারা। উল্লেখ্য, শেরপুর উপজেলার বিশালপুর ইউনিয়নের বড়পুকুরিয়া গ্রামের ইউনুস আলীর ছেলে অটোভ্যান চালক মেরাজুল ইসলাম ১৭ জুন সন্ধ্যায় স্থানীয় জামাইল বাজার থেকে যাত্রী নিয়ে রাণীরহাট বাজারের উদ্দেশ্যে রওনা হন। এরপর তিনি আর বাড়ি ফেরেননি। পরে ২০ জুন তার লাশ পাওয়া যায়।


আপনার মন্তব্য