শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২৩:৩৫

ভাষার দিনে ঠাঁইহীন জনসমুদ্র

মোস্তফা মতিহার

ভাষার দিনে ঠাঁইহীন জনসমুদ্র

একুশে বইমেলাকে ঘিরে গতকাল মেলাস্থলসহ আশপাশের এলাকা পরিণত হয়েছিল জনসমুদ্রে। শাহবাগ মোড় থেকে টিএসসি, আর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে দোয়েল চত্বর হয়ে বাংলা একাডেমি সামনের রাস্তায় ছিল বাঁধভাঙা জনস্রোত। আর সেই জনস্রোত আছড়ে পড়েছিল সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে। সব কিছু মিলিয়ে ফাগুনের আগুন রাঙা বিকালে গ্রন্থমেলায় নেমে এসেছিল প্রাণের জোয়ার। বইয়ের প্রেমে আবেগি বাঙালি একুশকে খুঁজে নিয়েছে গল্প, কবিতা, উপন্যাস, আর সায়েন্স ফিকশনে। গ্রন্থমেলার ২১তম দিন হিসেবে এদিন সকাল ৮টায় মেলার প্রবেশদ্বার খোলার পর থেকেই লোকসমাগম বাড়তে থাকে। বিকালে সেই ভিড় রূপ নেয় জনসমুদ্রে। ফলে প্রতিটি স্টলের বিক্রয়কর্মীরা বিকিকিনিতে দম ফেলার ফুরসত পাচ্ছিলেন না। প্রকাশকরা বিক্রি নিয়ে ছিলেন সন্তুষ্ট। গতকাল মেলায় নতুন বই আসে ৩৯৬টি।

সুন্দর শরীর, সতেজ মন, সুন্দর জীবন : অধ্যাপক এ বি এম আবদুল্লাহর স্বাস্থ্যবিষয়ক বই। প্রকাশক : অনন্যা প্রকাশনী। এখানে ৫৭টি নিবন্ধ স্থান পেয়েছে। ২৩৯ পৃষ্ঠার বইটির দাম ৪০০ টাকা।

নাটকের চতুর্থ পর্ব : মাহমুদ আখতার শরীফের লেখা উপন্যাস। তার লেখাতে কাহিনী যেমন থাকে, তেমই থাকে চিন্তা। চিন্তার সূত্র ধরে ইতিহাস চলে আসে। প্রকাশক : আলীগড় লাইব্রেরি। ১১১ পৃষ্ঠার বইটির দাম ৩০০ টাকা।

লজ্জাহীন মৃত্যুর গল্প : মাহমুদ আখতার শরীফের লেখা উপন্যাস। প্রকাশক : আলীগড় লাইব্রেরি। ১৬০ পৃষ্ঠার বইটির দাম ৩২০ টাকা

জন্মান্তর : মাহবুবর রহমানের গল্পের বই। বইটিতে স্থান পেয়েছে ১৪টি গল্প। প্রকাশক : দাঁড়কাক।

রংপুর অঞ্চলের নদ-নদী : তুহিন ওয়াদুদের নদীবিষয়ক বই। দীর্ঘদিনের মাঠপর্যায়ের গবেষণার ফসল এই বই। এখানে রংপুর অঞ্চলের প্রায় সব নদীর ইতিহাস আলোচনা করা হয়েছে। প্রকাশক : শ্রাবণ প্রকাশনী। ১৬০ পৃষ্ঠার বইটির দাম ৪০০ টাকা।

এক্স ফাইলস : প্রকাশনা সংস্থা দোয়েল প্রকাশ করেছে ডা. বদরুল আলমের নির্বাচিত রম্য গল্পের বই ‘এক্স ফাইলস’। বইটির প্রচ্ছদ করেছেন ফাতেমা জাহান চৌধুরী। ৬৪ পৃষ্ঠার এই বইটির দাম ২০০ টাকা।

নীল পাহাড়ের রাজা : ১২ বছরের শিশু প্রিয়ন্ত রায়ের শিশুতোষ গ্রন্থ ‘নীল পাহাড়ের রাজা’ প্রকাশ করেছে জিনিয়াস পাবলিকেশন্স। বইটির প্রচ্ছদ করেছেন রোমেল। ৬০ পৃষ্ঠার এই বইটির দাম ১০০ টাকা।

অসমাপ্ত বিকেল : প্রকাশনা সংস্থা ইন্তামিনের ব্যানারে মেলায় এসেছে তরুণ লেখক কুমার অরবিন্দের গল্পের বই ‘অসমাপ্ত বিকেল’। বইটির প্রচ্ছদ করেছেন মো. ইউছুফ। ৮০ পৃষ্ঠার এ বইটির দাম রাখা হয়েছে ১৮০ টাকা।

শামসুদ্দিন হারুনের গ্রন্থ : প্রকাশনা সংস্থা মা সেরা প্রকাশনী মেলায় এনেছে সাংবাদিক শামসুদ্দিন হারুনের দুটি কাব্যগ্রন্থ। বইগুলো হলো- ‘শুধু তুমিই জানোনা’ এবং ‘নৈঃশব্দ্যে প্রতিধ্বনি’। প্রতিটি বইয়ের পৃষ্ঠা সংখ্যা ৬৪। বইগুলোর প্রচ্ছদ করেছেন ধ্রুব এষ। দাম রাখা হয়েছে ১৫৫ টাকা। বলাকা প্রকাশনের ৪৯৩ নম্বর স্টলে পাওয়া যাচ্ছে বইগুলো।

চার বইয়ের মোড়ক : ‘সুন্দরম প্রকাশ’ থেকে প্রকাশিত সাংবাদিক আবুল হোসেন খোকনের ‘যুদ্ধের মানুষ’, চলচ্চিত্র পরিচালক শ্যামল দত্তের ‘পতাকার রঙ’, কৃষি বিশেষজ্ঞ ড. সমজিৎ পালের ‘আবেগের ছড়া’ এবং লেখক চিন্ময় প্রসুন বিশ্বাসের ‘ব্যাকবেঞ্চারের বিভ্রম’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেছেন সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব ড. মো. আবু হেনা মোস্তফা কামাল। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বাংলা একাডেমি চত্বরে এ অনুষ্ঠান হয়। বইগুলো পাওয়া যাচ্ছে বইমেলায় (সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) ‘যুক্ত’ (নং ৫৯৯-৬০০) এবং (বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণ) ‘মুক্তধারা নিউইয়র্ক’ (নং ১০০/১২-১০০/১৩) স্টলে।

মূল মঞ্চ : গতকাল সকাল সাড়ে ৭টায় মেলার মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় স্বরচিত কবিতা পাঠের আসর। এতে দেড় শতাধিক নবীন-প্রবীণ কবি কবিতা পাঠে অংশ নেন। সভাপতিত্ব করেন কবি অসীম সাহা।  এরপর বিকাল ৪টায় গ্রন্থমেলার মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় ‘বাংলা ভাষার অতীত, বর্তমান ও ভবিষ্যৎ’ শীর্ষক একুশে বক্তৃতা। বক্তৃতা করেন ভাষা সংগ্রামী জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে স্বাগত ভাষণ প্রদান করেন একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী। সভাপতিত্ব করেন বাংলা একাডেমির সভাপতি জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান। অনুষ্ঠানের শুরুতে পুরান ঢাকার চকবাজারে ভয়াবহ অগ্নিকা-ে নিহতদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। সন্ধ্যায় কবিকণ্ঠে কবিতা পাঠ করেন কবি নির্মলেন্দু গুণ, হাসান হাফিজ, কাজল বন্দ্যোপাধ্যায়, জাফর আহমদ রাশেদ, আলফ্রেড খোকন এবং সোহেল হাসান গালিব। আবৃত্তি পরিবেশন করেন ইকবাল বাহার চৌধুরী, আহ্কাম উল্লাহ এবং তামান্না সারোয়ার। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশ নেয় সাংস্কৃতিক সংগঠন ঋষিজ শিল্পীগোষ্ঠী। এতে একক সংগীত পরিবেশন করেন ফকির আলমগীর, প্রমীলা চক্রবর্তী, মহাদেব ঘোষ, লাইসা আহমদ লিসা, বুলবুল ইসলাম, জান্নাত-ই-ফেরদৌসী এবং নীলোৎপল সাধ্য।


আপনার মন্তব্য