শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ৮ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৭ নভেম্বর, ২০১৯ ২৩:৪৯

রাজধানীতে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে ব্যবসায়ীকে হত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীর হাজারীবাগে আবিদ হোসেন রূপক (২৫) নামে এক ব্যবসায়ীকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়েছে। বুধবার রাতে গজমহল রোডে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জাহিদুল ইসলাম নামে এক যুবককে  গ্রেফতার করেছে পুলিশ। কী কারণে হত্যা করা হয়েছে তা নিশ্চিত নয় আবিদের পরিবার। পুলিশ বলছে, মাদক ও মোবাইল নিয়ে এ ঘটনা ঘটেছে। জানা গেছে, আবিদ পরিবারের সঙ্গে হাজারীবাগের গজমহল এলাকার ১৪৩ নম্বর বাড়িতে থাকতেন। তার বাবার নাম আনোয়ার হোসেন। বড় ভাই মুন্নার সঙ্গে চামড়ার ব্যবসা করতেন। তিন ভাই ও এক বোনের মধ্যে আবিদ দ্বিতীয়। নিহতের বড় ভাই মুন্না বলেন, বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে কে বা কারা আবিদকে ফোন করে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে যায়। এর কিছুক্ষণ পর শুনতে পাই, আবিদকে ছুরিকাঘাত করা হয়েছে। দ্রুত গজমহল রোডে গিয়ে আবিদকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। গতকাল এ ঘটনায় মামলা করা হয়েছে। পরে পুলিশ জাহিদুল নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে। জাহিদুল এ হত্যাকা  ঘটিয়েছে বলে জানিয়েছে। কিন্তু আমাদের এটি বিশ্বাসযোগ্য মনে হচ্ছে না। এ ছাড়া জাহিদুলকে আমরা এবং আবিদের বন্ধুমহলের কেউ চিনে না। মুন্নার সন্দেহ, জাহিদুলকে দিয়ে কেউ এ হত্যাকা  ঘটিয়েছে। নিহতের মামা শাহাবুদ্দিন বলেন, ব্যবসায়িক কারণে আবিদকে হত্যা করা হতে পারে। হাজারীবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকরাম আলী মিয়া জানান, গ্রেফতার জাহিদুল প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার দায় স্বীকার করেছে। আবিদ ও জাহিদুল একত্রে মাদক সেবন করত। দুই বছর ধরে তাদের পরিচয়। ৩-৪ দিন আগে জাহিদুল আবিদকে একটি মোবাইল বিক্রি করতে দেয়। আবিদ মোবাইল বিক্রি করেছে নাকি করেনি- এরকম কোনো তথ্যই জাহিদুলকে জানায়নি। বিষয়টি জানতে এবং মোবাইল বিক্রির টাকার জন্য বার বার আবিদকে কল দিয়েও পায়নি জাহিদুল। বুধবার রাত ১১টা থেকে জাহিদুল আবিদের বাসার নিচে অপেক্ষা করতে থাকে। সাড়ে ১১টার দিকে আবিদ বাসা থেকে বের হলে দুজনে কথা বলতে বলতে গজমহল রোডের দিকে যায়। এ সময় মোবাইল বিক্রি নিয়ে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে জাহিদুল আবিদকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করে। বিষয়টি আশপাশের দোকানিরা দেখে আবিদের পরিবার ও পুলিশকে জানায়। হাজারীবাগের বালুরমাঠ থেকে গ্রেফতার জাহিদুল পুলিশকে জানিয়েছে, মোবাইলটি তার নিজের। এটি কোনো চোরাই মোবাইল কিংবা মোবাইলের সঙ্গে মাদকের কোনো সংশ্লিষ্টতা রয়েছে বলে মনে হচ্ছে। আজ ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে জাহিদুলকে আদালতে পাঠানো হবে।


আপনার মন্তব্য