শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২৩:৪১

শাহজালালে পরিচ্ছন্নতা কর্মীর জুতার তলায় পৌনে ২ কোটি টাকার সোনা

নিজস্ব প্রতিবেদক

ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে প্রায় ৪ কেজি সোনাসহ এক পরিচ্ছন্নতা কর্মীকে গ্রেফতার করেছে বিমানবন্দর আর্মড পুলিশ (এএপি)। গতকাল সকাল সাড়ে ৯টায় বোর্ডিং ব্রিজ থেকে পরিচ্ছন্নতা কর্মী জনাথন মুক্তি বারিকদারকে (৩৪) আটক করা হয়। বিমানবন্দর আর্মড পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপস অ্যান্ড মিডিয়া) আলমগীর হোসেন জানান, ক্লিনার জনাথন মুক্তি বারিকদার বোর্ডিং ব্রিজের ৭ নম্বরে কাজ করছিলেন। তখন তার কাছে কোনো আইডি কার্ড ছিল না। এমনকি আর্মড পুলিশ দায়িত্ব পালনের সময় তাকে চেকিং করতে চাইলে তিনি তা করতে দেননি। পরে তাকে আর্মড পুলিশের অফিসে এনে সব সংস্থার উপস্থিতিতে দেহ তল্লাশি করা হয়। এ সময় জুতার ভিতর অভিনব কায়দায় লুকানো অবস্থায় ৩২টি সোনার বার পাওয়া যায়। এসব সোনার ওজন ৩ কেজি ৭১২ গ্রাম। আনুমানিক বাজার মূল্য প্রায় ২ কোটি টাকা। জানা গেছে, ২০১৪ সালে জনাথন মুক্তি বিমানের ক্লিনার হিসেবে যোগ দেন। তার গ্রামের বাড়ি খুলনার খালিশপুরে। গতকাল সকাল ৭টা ৫৫ মিনিটে দুবাই থেকে এমিরেটস এয়ারলাইনসের একটি ফ্লাইট ঢাকায় আসে। যাত্রী নামার পর পরিষ্কার করতে ফ্লাইটটিতে ওঠেন জনাথন। পরিচ্ছন্নতার কাজ শেষে তিনি নেমে আসেন। এ সময় এয়ারক্রাফট নিরাপত্তায় থাকা আর্মড পুলিশের সদস্যরা তাকে তল্লাশি করতে চাইলে তিনি বাগ্বিতন্ডা শুরু কগ্ন। পরে তার দুই জুতার সুকতলায় প্রতিটিতে ১৬টি করে মোট ৩২টি সোনার বার পাওয়া যায়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জনাথন মুক্তি জানিয়েছেন, মামুন নামে তার এক সহকর্মী তাকে ফ্লাইটের মধ্যে সোনার বারগুলো দেন। এরপর তিনি ফ্লাইটের টয়লেটে গিয়ে জুতোর সুকতলায় সুকৌশলে তা লুকিয়ে রাখেন। এগুলো তার ডিউটি ইনচার্জ আতিককে হস্তান্তর করার কথা ছিল এবং বিনিময়ে ২০ হাজার টাকা দেওয়ার কথা ছিল।


আপনার মন্তব্য