শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৪ মে, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩ মে, ২০২১ ২৩:৫১

২০ হাজার কোটি টাকার পুঁজিবাজার তহবিল অনুমোদন

নিজস্ব প্রতিবেদক

শেয়ারবাজারের উন্নয়নে ২০ হাজার কোটি টাকার বিশেষ তহবিল গঠিত হচ্ছে। তালিকাভুক্ত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বিতরণ না হওয়া লভ্যাংশ নিয়ে ‘পুঁজিবাজার স্থিতিশীল তহবিল’ নামে এ তহবিল গঠন করা হবে। বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) তহবিল গঠনের প্রস্তাব অনুমোদন করা হয়। এদিকে সপ্তাহের দ্বিতীয় দিনে গতকাল ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) মূল্য সূচকের পতন হয়েছে।

পুঁজিবাজার তহবিলে যুক্ত হবে শেয়ারবাজারের প্রতিষ্ঠানগুলোর বিতরণ না হওয়া লভ্যাংশ। আইন করে এসব লভ্যাংশ প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছ থেকে তহবিলে নিয়ে আসা হবে। বর্তমানে শেয়ারবাজারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের হাতে প্রায় ২০ হাজার কোটি টাকার সমমূল্যের বিতরণ না হওয়া লভ্যাংশ রয়েছে। যার মধ্যে নগদ লভ্যাংশের পরিমাণ প্রায় ৩ হাজার কোটি টাকার। আর বোনাস লভ্যাংশের বাজার মূল্য প্রায় ১৭ হাজার কোটি টাকা। এই তহবিল গঠনে নতুন একটি বিধি করেছে বিএসইসি। সেখানে বলা হয়েছে, এখন থেকে শেয়ারবাজারের কোনো প্রতিষ্ঠানের হাতে বিনিয়োগকারী বা গ্রাহকের অর্থ তিন বছরের বেশি সময় ধরে অদাবিকৃত অবস্থায় পড়ে থাকলে তা নতুন এ তহবিলে স্থানান্তর করতে হবে। তহবিলটির অর্থ শেয়ারবাজারের উন্নয়নে ব্যবহার করা হবে। তবে কখনো যদি প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখিয়ে কোনো বিনিয়োগকারী তার লভ্যাংশ দাবি করেন, তাহলে যাচাই-বাছাই শেষে তা তহবিল থেকে নিষ্পত্তি করা হবে। এদিকে গতকাল দিনের লেনদেন শেষে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় ৫ পয়েন্ট কমে ৫ হাজার ৫১১ পয়েন্টে নেমে গেছে। দিনের লেনদেন শেষে ডিএসইতে দাম বেড়েছে ১০৫টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট। বিপরীতে দাম কমেছে ১৭৯টির এবং ৭০টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। মূল্য সূচকের পতনের পাশাপাশি ডিএসইতে কমেছে লেনদেনের পরিমাণ। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ১৫৯ কোটি ৮৩ লাখ টাকা। আগের দিন লেনদেন হয় ১ হাজার ৪০৬ কোটি ৯৬ লাখ টাকা। টাকার অঙ্কে ডিএসইতে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে বেক্সিমকো লিমিটেডের শেয়ার। কোম্পানিটির ১৬৪ কোটি ১৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশের ৬৫ কোটি ১৫ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছে। ৫৩ কোটি ৯১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে রবি। অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের সার্বিক মূল্য সূচক সিএএসপিআই কমেছে ১৯ পয়েন্ট। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৬২ কোটি ৩৮ লাখ টাকা। লেনদেনে অংশ নেওয়া ২৬২টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৮৯টির দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১২৫টির এবং ৪৮টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর