শনিবার, ৬ এপ্রিল, ২০২৪ ০০:০০ টা

বাড়ি ফেরা শুরু

♦ যথাসময়ে ছাড়ছে ট্রেন, প্রাণ ফিরেছে সদরঘাটে, বাসে ধীরগতি ♦ ঈদযাত্রায় ভোগান্তি নেই : রেলমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক

বাড়ি ফেরা শুরু

ছুটির দিনে ভিড় থাকলেও বাড়ি ফেরার আনন্দে যাত্রীদের মুখে ছিল স্বস্তির হাসি। গতকাল কমলাপুর রেলস্টেশনে ছবি : জয়ীতা রায়

কয়েকদিন পরই ঈদুল ফিতর। পরিবারের সঙ্গে ঈদ পালন করতে নাড়ির টানে বাড়ি ফিরছে মানুষ। সারা দেশে উৎসবের আমেজ। প্রতিদিন ঢাকা ছাড়ছে নগরবাসী। বাস, ট্রেন সবখানেই ঘরমুখো মানুষের ভিড়। ঈদ উপলক্ষে প্রাণ ফিরেছে সদরঘাটে। এবারের ঈদযাত্রা অনেক স্বস্তিদায়ক বলে যাত্রীরা জানিয়েছেন। ঈদে যান চলাচল বাড়লেও এখনো যানজটের তীব্রতা দেখা যায়নি। ঢাকা থেকে বের হওয়ার পথগুলোতেও দুর্ভোগ নেই বলে জানা গেছে। অনেক মানুষ ঢাকা ছাড়ায় ধীরে ধীরে ফাঁকা হতে শুরু করেছে যানজটের নগরী ঢাকা। গত বুধবার থেকে বাড়ি ফেরার রেলযাত্রা শুরু হয়। গতকাল অনেক মানুষ ঢাকা ছেড়ে গেছে। ঈদের ট্রেনযাত্রা ছিল মোটামুটি স্বাভাবিক। রেলে শিডিউল বিপর্যয়ের বড় কোনো খবর পাওয়া যায়নি। বেশির ভাগ ট্রেন সময়মতো কমলাপুর স্টেশন ছেড়ে গেছে। যাত্রী চাপ থাকা পশ্চিমাঞ্চলের আন্তনগর নীলসাগর ও চিলাহাটি এক্সপ্রেস ট্রেন ঢাকা কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের পরিবর্তে ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট রেলস্টেশন থেকে চলাচল করছে। এ ট্রেন দুটি বিমানবন্দর স্টেশনেও যাত্রাবিরতি করছে না। এতে কমলাপুর ও বিমানবন্দর রেলস্টেশনে যাত্রী চাপ কমেছে। গতকাল কমলাপুর রেলস্টেশনে গিয়ে দেখা গেছে, যাত্রী চাপ থাকলেও অন্যবারের মতো উপচে পড়া ভিড় নেই। টিকিট ছাড়া কেউ প্ল্যাটফরমে ঢুকতে পারছে না। স্টেশনে টিকিটবিহীন যাত্রীর প্রবেশ ঠেকাতে তিন স্তরের তল্লাশির ব্যবস্থা রেখেছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। কমলাপুর রেলস্টেশন মাস্টার মো. আনোয়ার হোসেন গত সন্ধ্যায় বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, এখনো উপচে পড়া ভিড় হয়নি। বেশির ভাগ ট্রেন নির্দিষ্ট সময়ে প্ল্যাটফরম ছেড়ে গেছে। দু-একটি ট্রেন ১০ থেকে ২০ মিনিট বিলম্ব করেছে। এবারের ঈদযাত্রায় শিডিউল বিপর্যয়ের কোনো ঘটনা ঘটেনি, সব যাত্রী স্বাচ্ছন্দ্যে রেলযাত্রায় বাড়ি ফিরছেন বলে জানান তিনি। আমাদের রাজবাড়ী প্রতিনিধি জানান রেলপথমন্ত্রী মো. জিল্লুল হাকিম গতকাল জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে তথ্য ও যোগযোগ প্রযুক্তি বিভাগের আওতায় ‘হার পাওয়ার’ প্রকল্পের মাধ্যমে প্রযুক্তির সহায়তায় নারীর ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে ল্যাপটপ বিতরণ কার্যক্রম শেষে সাংবাদিকদের জানান, আসন্ন ঈদযাত্রায় ট্রেনযাত্রীদের কোনো ভোগান্তির কথা শোনা যায়নি। স্বাচ্ছন্দ্যেই মানুষ বাড়ি যাচ্ছেন। এদিকে ঈদযাত্রায় বাড়ি ফেরার জন্য গাবতলী বাস টার্মিনালে যাত্রীদের বেশ ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। মূলত এ ভিড় বেড়েছে গতকাল সকাল থেকে। কয়েকদিন যাত্রীর উপস্থিতি তেমন না থাকলেও গতকাল যাত্রীর চাপ বেড়েছে মহাখালী বাস টার্মিনালে। মহাখালী বাস টার্মিনাল থেকে উত্তরবঙ্গের দিকে ছেড়ে যাওয়া দেশ ট্রাভেলস বাস কাউন্টারের সহকারী ব্যবস্থাপক জানান, আমাদের দূরপাল্লার বাসের আজকের টিকিটসহ, ঈদের আগের দিন পর্যন্ত সব টিকিটই বিক্রি হয়ে গেছে অনেক আগেই। অনেক চাকরিজীবী কর্মজীবী পরিবারের সদস্যদের আগে পাঠিয়ে দিচ্ছেন। তাই ভিড় বেড়েছে কিছুটা। তিনি জানান, ঈদের দুই দিন আগে ভিড় বাড়তে পারে। উত্তরবঙ্গের প্রবেশদ্বার বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিমে সিরাজগঞ্জ মহাসড়কে গতকাল সকাল থেকে বেড়েছে গাড়ির সংখ্যা। ফলে বাস ধীরগতিতে চলছে বলে জানা গেছে। দুপুরে সিরাজগঞ্জের হাটিকুমরুল হাইওয়ে থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম এ ওয়াদুদ গণমাধ্যমকে বলেন, মহাসড়কে গাড়ি কিছুটা বেড়েছে। তবে এটাকে চাপ বলা যাবে না। ইতোমধ্যে আমরা মহাসড়কে কাজ শুরু করেছি। বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিমপাড় থেকে হাটিকুমরুল চত্বর পর্যন্ত মহাসড়কের চার লেন খুলে দেওয়ায় এবার ঈদযাত্রায় যানজটের আশঙ্কা নেই। আমরা যাত্রী এবং গণপরিবহনের নিরাপত্তা ও নির্বিঘ্ন চলাচলে সর্বোচ্চ সচেষ্ট রয়েছি। দেশের অন্য মহাসড়কগুলোতেও বেড়েছে গাড়ির চাপ। মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে চট্টগ্রামমুখী লেনে যানবাহনের বাড়তি চাপ লক্ষ্য করা গেছে। এ ছাড়া যানবাহনের অতিরিক্ত চাপের কারণে নারায়ণগঞ্জের নাঙ্গলবন্দ থেকে কুমিল্লার দাউদকান্দি মেঘনা-গোমতী সেতু পর্যন্ত যানবাহন ধীরগতিতে চলাচল করছে বলে জানিয়েছে গজারিয়া হাইওয়ে পুলিশ।

এই রকম আরও টপিক

সর্বশেষ খবর