সোমবার, ২৬ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ টা

নিউইয়র্কে র‌্যালির অভিমত

শেখ হাসিনা জানলেই গাছ কেটে হাসপাতাল নির্মাণ বাতিল হবে

যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি

বৃক্ষ নিধন করে চট্টগ্রামের সেন্ট্রাল রেলওয়ে বিল্ডিংকে (সিআরবি) হাসপাতালে পরিণত করার সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবিতে ২৩ জুলাই শুক্রবার অপরাহ্ণে নিউইয়র্ক সিটির জ্যাকসন হাইটসের ডাইভার্সিটি প্লাজায় এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। ‘সচেতন নাগরিক সমাজ’ ও ‘হেল্পিং হ্যান্ড ফর চিটাগনিয়ান ইনক’ নামের দুটি সংগঠনের যৌথ উদ্যোগে অনুষ্ঠিত এ কর্মসূচিতে মূলত চট্টগ্রামের সচেতন প্রবাসীরাই অংশগ্রহণ করেন। বাংলাদেশের পরিবেশ সুরক্ষায় নিউইয়র্কে সোচ্চার ‘বেন’ (বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন)-এর কর্মকর্তারাও এতে অংশ নিয়ে আন্দোলনের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করেন। মানববন্ধনে অংশ নিয়ে চট্টগ্রামের সন্তান এবং বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের যুক্তরাষ্ট্র শাখার সেক্রেটারি আবদুল কাদের মিয়া বলেন, ‘জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি থেকে বিশ্ব মানবতাকে রক্ষার পাশাপাশি পরিবেশ সুরক্ষায় নিরন্তরভাবে কাজের স্বীকৃতি হিসেবে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনাকে জাতিসংঘ চ্যাম্পিয়ন অব দ্য আর্থ পুরস্কার দিয়েছে ছয় বছর আগে। সে আলোকে আমরা নিশ্চিত থাকতে পারি যে, চট্টগ্রামের পরিবেশের স্বার্থের পরিপন্থী কোনো পদক্ষেপ তিনি মেনে নেবেন না। আজকের এই মানববন্ধন থেকে সে প্রত্যাশাই ব্যক্ত করছি।’ অপর বক্তারা বলেন, ‘গাছ কেটে হাসপাতাল ও মেডিকেল কলেজ নির্মিত হলে চট্টগ্রামের ফুসফুস ধ্বংস হয়ে যাবে। প্রধানমন্ত্রীকে যদি সঠিক তথ্য জানানো যায় তাহলে তিনি অবশ্যই এ প্রকল্প বাতিল করবেন।’

সাবেক ছাত্রনেতা কামাল হোসেন মিঠুর সঞ্চালনায় এ কর্মসূচি শুরু হয় ছড়াকার মনজুর কাদের কর্তৃক বৃক্ষ নিধনের প্রতিবাদে একটি ছড়া পাঠের মধ্য দিয়ে। দাবি বাস্তবায়িত না হওয়া পর্যন্ত প্রবাস থেকে দুর্বার আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার সংকল্প ব্যক্ত করে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য করেন প্রবীণ সাংবাদিক সৈয়দ মোহাম্মদউল্লাহ ও মুহম্মদ ফজলুর রহমান, পরিবেশ আন্দোলনের নেতা ফজলুর রহমান, মিশুক সেলিম, মিনহাজ আহম্মেদ সাম্মু, কমিউনিটি অ্যাক্টিভিস্ট সাবিনা সাবরিন নিহার, আবুল কাশেম, রওশন হক, জন রিড, নজরুল ইসলাম, মীর কাদের রাসেল প্রমুখ। বিশিষ্টজনদের মধ্যে আরও ছিলেন শিতাংসু গুহ, মুজাহিদ আনসারী, রনি সৈয়দ জাকির আহমেদ, শিবলী সাদিক, সনজীবন কুমার, জিয়াউদ্দিন, রবীন্দ্রনাথ সরকার, এ টি এম মাসুদ, নাজিমউদ্দিন প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, এ আন্দোলনে শুধু নিউইয়র্কে প্রবাসী চট্টগ্রামের মানুষ নয়, বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলের মানুষ এতে শামিল রয়েছেন। সবাই বলেছেন, সিআরবি রক্ষা করতে হবে চট্টগ্রামের স্বার্থে।

তারা বলেন, চট্টগ্রামের মানুষ এখানে বেসরকারি হাসপাতাল চান না। যত দিন হাসপাতাল নির্মাণের এ সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার না হবে তত দিন নিউইর্য়কের এ আন্দোলন অব্যাহত থাকবে। বক্তারা বিশেষভাবে উল্লেখ করেছেন যে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত স্থান এই সিআরবিকে হাসপাতালে রূপান্তর করা যাবে না। চট্টগ্রামের স্বার্থে সবাইকে এ আন্দোলন এগিয়ে নিতে হবে।