শিরোনাম
প্রকাশ : ৮ জুলাই, ২০২১ ১৯:৫৬
আপডেট : ৮ জুলাই, ২০২১ ২০:০০
প্রিন্ট করুন printer

আমিই ফিলিস্তিন

লাকী আক্তার

আমিই ফিলিস্তিন
লাকী আক্তার
Google News

আমিই ফিলিস্তিন

স্বাধীনতার দাবি নিয়ে

রক্তাক্ত, বিধ্বস্ত হতে হতে

বারবার উঠে দাঁড়ানো

আমিই সেই ফিলিস্তিন।

রামাল্লার পথে পথে

গাজা উপত্যকায় কিংবা

ভূমধ্যসাগরের পাড়ে

দাবকের তালে তালে,

জানান দেয় যে সংগ্রামের কথা,

আমিই সেই ফিলিস্তিন।

অগুণিত শবের ভারে

কিংবা লক্ষ লক্ষ বন্দীর

আর্তনাদে যারা এই পৃথিবীকে  ক্লান্ত করে দেয়,

আমিই সেই ফিলিস্তিন।

আমাদের ঘর, আমাদের জমিন

ঝাঝরা হয়ে গেলেও

আমরা বলে যাই,

আমিই ফিলিস্তিন।

এই ভূমি আমার,

এই ভূমি আমার পূর্বপুরুষের।

আমি শিশু, বৃদ্ধ, নারী, পুরুষ,

কিংবা নওজোয়ান যেই হই না কেন,

তোমাদের সাথে আমাদের অসম লড়াই চলে।

তোমাদের হাতে থাকে

জেডিএএম, জিবিইউ-৩১

আরও কত বিষ্ফোরক!

আর মুকলেয়া হাতে উদ্ধত আমরা,

রক্তের লহরে ভেসে যেতে যেতে

বারবার বলে উঠি,

দেখো আমিই ফিলিস্তিন।

এই ভূমি আমার

এই ভূমি আমার স্বজনদের।

সীমাহীন স্পর্ধা দেখিয়ে,

প্রবল ক্রোধ, ক্ষোভ আর ঘৃণায়,

তোমাদের এফ-১৬’র দিকে

আমরা মুকলেয়ার গুলতি ছুঁড়ে দেই।

আর তোমরা আমাদের মায়েদের বুক বরাবার

মুহুর্মুহ নিক্ষেপ করতে থাকো

ঝাঁক ঝাঁক প্যারেল বোমা।

তোমাদের ছুঁড়ে দেয়া রহস্যময় গ্যাসের ধোঁয়া

ছড়িয়ে যায় আমাদের ঘরে,

আমাদের শহরে, আমাদের কবরে।

আগুন লেগে যায় আমাদের বনে।

তোমাদের তাক করা রাইফেলের বুলেটে

ঝাঁঝরা হয়ে যায় আমাদের বাবার প্রশস্ত বুক!

তোমাদের শক্তিশালী বোমায়

আমাদের ভাইয়ের ছোট ছোট পা দুটো

উড়ে যায় আকাশের দিকে,

তারপর ঝুরঝুর করে ঝরে পড়ে

আমাদের উর্বর ভূমিতে।

শত ছিন্ন হয়ে

আমাদের স্বজনেরা

জন্মভূমির কোলে লুটিয়ে পড়তে থাকে।

স্বজনের শবদেহ বইতে বইতে

আর শেষ নিঃশ্বাস ফেলতে ফেলতে

আমরা বলে যাই,

আমরাই ফিলিস্তিন

এই ভূমি আমার

এই ভূমি আমার মায়ের।

আমাদের ছোট শিশুটি যখন

তোমাদের সেনাবাহিনীর সামনে

পতাকা হাতে নিয়ে আঙ্গুল তুলে শাসায়,

কিংবা ছোট ছোট নরম হাত দিয়ে

তোমাদের সেনাবাহিনীকে ধাক্কা দিয়ে

এই রাস্তা ছেড়ে চলে যেতে নির্দেশ দেয়,

জেনে রেখো সে শিশুটিই ফিলিস্তিন,

এই ভূমি তাদের,

এই জমিন আমাদের অনাগত শিশুদের!

জলপাই গাছের নিচে

যেখানে আমি জন্মেছিলাম,

আমাদের পুর্বপুরুষেরা শ্বাস নিতেন এখানেই।

জলপাই গাছের শিকড়ে শিকড়ে

আমরা আমাদের জন্মভূমিকে আঁকড়ে রাখি।

তোমরা আমাদের সেই প্রিয়

জলপাই গাছটিকেও বাঁচতে দাও নি,

বোমার আঘাতে জলপাই গাছগুলো

আজ ছিন্ন ভিন্ন।

তবুও আমরা জলপাই গাছ

লাগাই পৃথিবীর এই প্রান্তে,

এই জলপাই গাছের নিচেই

আমরা পুনর্জন্ম নিই

আর সদ্য বেড়ে ওঠা

জলপাই গাছটিও বলে ওঠে

আমরাই ফিলিস্তিন!

এই জমিন আমার

এই জমিনেই আমার শিকড়!

জেনে রেখো এই ভূমিতেই আমরা ফিরবো,

বারবার জন্মাবো আমরা এ মাটিতেই!

জেনে রেখো পৃথিবীর এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে

এফোঁড় ওফোঁড় করে ধ্বণিত হবে একই আওয়াজ

আমিই ফিলিস্তিন,

এই জমিন আমাদের!

বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন