শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১১ মে, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১০ মে, ২০১৯ ২১:৩০

দুই টাকায় ভোজনবিলাস

শনিবারের সকাল ডেস্ক

দুই টাকায় ভোজনবিলাস

সংগঠনের নাম ‘দুই টাকায় ভোজনবিলাস’। এই বিলাস নিজেদের জন্য নয়। সমাজসেবার মহান ব্রত নিয়ে উজ্জীবিত হয়েই ৫৭ জন শিক্ষার্থী গড়ে তুলেছেন সংগঠনটি। সংগঠনের কোনো সভাপতি, সম্পাদক বা পদবিধারী কেউ নেই। সবাই সংগঠক, সবাই কর্মী- এই পরিচয়েই তারা হবিগঞ্জে কার্যক্রম শুরু করে সবার দৃষ্টি আকৃষ্ট করেছেন। তাদের প্রথম প্রয়াস ছিল পথশিশুদের বিনোদন আর ইচ্ছামতো খাবারের আয়োজন করা।

সামর্থ্য হলেই যেখানে সবাই নিজেদের আরাম-আয়েশের কথা ভাবেন সেখানে কেউ কেউ থাকেন সুবিধাবঞ্চিতদের জন্য সাধ্যের মধ্যে কিছু করায় ব্যস্ত। ‘আমরা আছি তোমাদের পাশে, দুই টাকার অমৃত সুধা, থাকবে না আর দারিদ্র্য ক্ষুধা’- এই প্রতিপাদ্য ‘দুই টাকায় ভোজন বিলাস’ সংগঠনের উদ্যোক্তারা দাঁড়িয়েছিল পথশিশুদের পাশে। অনুষ্ঠানের দিন ধার্য করা হয়েছিল চলতি বছরের ১২ এপ্রিল। স্থান নির্ধারণ করা হয়েছিল জালাল স্টেডিয়াম। এ জন্য সংগঠনের সদস্যরা প্রত্যেকে ২০০ টাকা করে জমা করার পর শুভানুধ্যায়ী অনেকেই আরও কিছু অর্থ দান করেন। নির্দিষ্ট দিনে সকাল হতেই পথশিশুরা ভিড় জমায় জালাল স্টেডিয়ামে। দুই টাকা জমা দিয়ে নাম  রেজিস্ট্রেশন করিয়ে নেন। পথশিশুদের নিকট থেকে দুই টাকা করে নেওয়ার কারণ ব্যাখ্যা করে সংগঠনের সদস্য কলেজছাত্রী নৌরিন নুজহাত বলেন, ‘শিশুরা যাতে হীনম্মন্যতায় না ভোগে সে জন্য এ ব্যবস্থা। তারা টাকা দিয়ে খাবার কিনে খাচ্ছে, এ ধারণা দেওয়ার জন্য টাকা নেওয়া হয়।’ যথারীতি জেলা ক্রীড়া সংস্থা অফিস প্রাঙ্গণের এক কোণে শিশুদের জন্য ভাত, সবজি, মাংস, ডাল রান্না করা হয়। প্রায় ৮০ জন শিশুর খাবার তৈরির ফাঁকে স্টেডিয়ামে খেলাধুলা ও গান-বাজনা করে সময় কাটিয়ে দেয়। দুপুরে তাদের খাবার পরিবেশন করা হল। পথশিশুরা নিজ হাতে চামচ ধরে ইচ্ছামতো খাবার নিয়ে স্টেডিয়ামের গ্যালারিতে বসে খাবার খায়। শহরের বিশিষ্টজনরা এ দৃশ্য উপভোগ করলেন। উদ্যোক্তারা জানালেন আগামীতেও এ ধরনের কর্মসূচি নেওয়া হবে।


আপনার মন্তব্য