শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২৩:২৬

সহজ ম্যাচ কঠিন করে জিতল বসুন্ধরা কিংস

ক্রীড়া প্রতিবেদক

সহজ ম্যাচ কঠিন করে জিতল বসুন্ধরা কিংস
জয়ের নায়ক বখতিয়ার

পাঁচে পাঁচ বসুন্ধরা কিংস। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে জিতেই চলেছে নবাগত দলটি। টানা পাঁচ ম্যাচে পুরো ১৫ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলে শীর্ষে অবস্থানে রয়েছে বসুন্ধরা কিংস। এক ম্যাচে বেশি খেলে ঢাকা আবাহনী সমান পয়েন্ট সংগ্রহ করলেও গোল ব্যবধানে তারা দ্বিতীয় স্থানে। পাঁচ ম্যাচে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র। আবাহনী একমাত্র ম্যাচটি হেরেছে বসুন্ধরা কিংসের কাছে। গতকাল নিজেদের হোম ভেন্যু নীলফামারী শেখ কামাল স্টেডিয়ামে বসুন্ধরা কিংস ১-০ গোলে হারিয়েছে পুরান ঢাকার রহমতগঞ্জ মুসলিম-ফ্রেন্ডস অ্যান্ড সোসাইটিকে। ৫০ মিনিটে কিরগিজস্তানের দুশবেক বখতিয়ার মূল্যবান গোলটি করেন। ভালোবাসার দিনে নীলফামারীর দর্শকদের জয় উপহার দিয়েছে কিংস। তবে সহজ ম্যাচটা তারা কঠিন করে ফেলেছিল। দুর্বল প্রতিপক্ষ হলেও রহমতগঞ্জ একেবারে খারাপ খেলেনি। তবে পুরো ম্যাচে অধিকাংশ সময় বল নিয়ন্ত্রণে রাখে বসুন্ধরা কিংস। যে সুযোগ এসেছিল তাতে গোলের ব্যবধানটা আরও বাড়াতে পারত। সেখানে কিনা জিততে হলো পেনাল্টি গোলে! নতুন হলেও বসুন্ধরা কিংস ঘরোয়া ফুটবলে স্মরণকালের সেরা দল গড়েছে। পেশাদার লিগের ইতিহাসে তারাই প্রথম বিশ্বকাপের ফুটবলার মাঠে নামিয়েছে। বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গনে এখন সবচেয়ে আলোচিত নাম বসুন্ধরা কিংস। মৃতপ্রায় ফুটবল জেগে উঠেছে এই ক্লাবের তৎপরতায়। অভিষেক আসরে ফেডারেশন কাপে রানার্স-আপ হয়েছে। স্বাধীনতা কাপে ট্রফি জিতে ঘরোয়া ফুটবলে নতুন এক ইতিহাস গড়েছে বসুন্ধরা কিংস। এবার লিগ জিতে আরেকটি ইতিহাস লেখার অপেক্ষায় রয়েছে। সত্যি বলতে কি, সেই পথে এগিয়ে যাচ্ছে বসুন্ধরা কিংস। টানা পাঁচ ম্যাচ জিতে সে কথাটাই মনে করিয়ে দিচ্ছে। শুরুটা করেছে রানার্স-আপ শেখ জামালকে হারিয়ে। এরপর ঘরের মাঠে চ্যাম্পিয়ন আবাহনীকে নিয়ে ছেলেখেলা খেলেছে। নফেল ও মুক্তিযোদ্ধার পর গতকাল হারালো রহমতগঞ্জকে।

ব্যবধান বড় না হলেও প্রতিপক্ষ রহমতগঞ্জের বিপক্ষে জয় পাওয়াটা অবশ্য আনন্দের। কেননা পুরান ঢাকার দলটি কখনো শিরোপার মুখ না দেখলেও বড় দলের পয়েন্ট কেড়ে নিতে তাদের জুড়ি নেই। এবারও চট্টগ্রাম আবাহনী ও শেখ জামালের সঙ্গে ড্র করেছে তারা। জেনেশুনেই কোচ অস্কার ছক এঁকে শিষ্যদের মাঠে নামান। কিন্তু গোল মিসের মহড়া হলে বড় ব্যবধানে আর কি জেতা যায়? শেষ পর্যন্ত ১ গোলে জিতেই মাঠ ছেড়েছে বসুন্ধরা কিংস। প্রথমার্ধেই এগিয়ে যাওয়া উচিত ছিল কিংসের। সেখানে কিনা গোলের দেখাই মিলল না। এতে কিছুটা চাপে পড়ে গিয়েছিল কিংস। দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেই গ্যালারিতে দর্শকরা চিৎকার করছে গোল গোল। সেই অপেক্ষার অবসান ঘটল অল্পক্ষণেই। ৫৫ মিনিটে পেনাল্টি পায় বসুন্ধরা কিংস। তবু টেনশন-যদি বল জালে না জড়ায়। না, দুশবেক বখতিয়ার হতাশ করেননি। ঠিকই গোল করেন। এরপর ব্যবধান বাড়ার সুযোগ এলেও গোল আর হয়নি। বসুন্ধরার পরবর্তী ম্যাচ ১৯ ফেব্রুয়ারি। প্রতিপক্ষ টিম বিজেএমসি।

এদিকে নোয়াখালী শহীদ ভুলু স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে আরেক ম্যাচে টিম বিজেএমসি ও নোফেল স্পোটিং কেউ জেতেনি।  গতকাল দুই দলের ম্যাচটি গোল শূন্য ড্র হয়। আক্রমন পাল্টা আক্রমণে উভয়ই দলই গোলের সুযোগ পেলেই জালে বল জড়াতে পারেনি। ড্র নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয়েছে তাদের। টিম বিজেএমসি ও নোফেল এখনও কোনো ম্যাচে জয়ের মুখ দেখেনি।


আপনার মন্তব্য