প্রকাশ : সোমবার, ১৩ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৩ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:৫৫

বঙ্গবন্ধু গোল্ড কাপের ৫ চ্যাম্পিয়ন

প্রথম চ্যাম্পিয়ন মালয়েশিয়া রেড

বঙ্গবন্ধু গোল্ড কাপের প্রথম আসর বসে ১৯৯৬-৯৭ মৌসুমে। সেবার বাংলাদেশ ছাড়াও এ টুর্নামেন্টে অংশ্ নিয়েছিল মালয়েশিয়া এবং ইন্দোনেশিয়ার একটি দল। ফাইনালে মুখোমুখি হয় মালয়েশিয়া রেড ও ইন্দোনেশিয়ার পিএসএম মাকাসসার। বঙ্গবন্ধু গোল্ড কাপের প্রথম আসছে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে মালয়েশিয়া রেড। মূলত জাতীয় দলের ফুটবলারদের নিয়েই একটা দল গঠন করেছিল মালয়েশিয়া। তবে পূর্ণ জাতীয় দল ছিল না ওটা। তারা ফাইনালে ইন্দোনেশিয়ার পিএসএম মাকাসসারকে ২-১ গোলে হারিয়েছিল। প্রথমবার বঙ্গবন্ধু গোল্ড কাপ জেতায় মালয়েশিয়া রেড টুর্নামেন্টের ইতিহাসে এক অনন্য স্থান দখল করে আছে। পরবর্তীতে অবশ্য মালয়েশিয়া অনূর্ধ্ব-২২ দলও এ টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল।

 

জাপান একাদশের ক্যারিশ্মা

বঙ্গবন্ধু গোল্ড কাপের সবচেয়ে জমজমাট আসর অনুষ্ঠিত হয় ১৯৯৯ সালে। সেবার স্বাগতিক বাংলাদেশ্সহ ১৫টি দল অংশ্ নেয় টুর্নামেন্টে। এর মধ্যে ছিল ব্রাজিল লিগ একাদশ, জাপান তৃতীয় বিভাগ একাদশ, দক্ষিণ কোরিয়া অনূর্ধ্ব-২০, হাঙ্গেরির কেরুলেতি এফসি, ঘানা অনূর্ধ্ব-২৩, উজবেকিস্তান লিগ একাদশ, মালয়েশিয়া অনূর্ধ্ব-২৩, থাইল্যান্ড অনূর্ধ্ব-২৩, নেপাল, কুয়েত অনূর্ধ্ব-২৩ এবং সিমেন প্যাডাঙ। সবাইকে হারিয়ে ফাইনালে ওঠে আসে জাপান তৃতীয় বিভাগ একাদশ ও ঘানা অনূর্ধ্ব-২৩। ফাইনালে জাপান তৃতীয় বিভাগ একাদশ ৩-২ গোলে হারিয়ে দেয় আফ্রিকান দেশ ঘানার অনূর্ধ্ব-২৩ দলকে। জমজমাট এক আসর থেকে চ্যাম্পিয়ন হয়েই বাড়ি ফেরে জাপানি দলটা। বাংলাদেশ সেবার গ্রুপ পর্বই পাড়ি দিতে পারেনি।

 

ফাইনালে উঠেও হতাশ বাংলাদেশ

দীর্ঘদিন বঙ্গবন্ধু গোল্ড কাপের কোনো আসর অনুষ্ঠিত হয়নি। ১৯৯৯ সালের পর ২০১৫ সালে আবার টুর্নামেন্টটি আয়োজন করে বাফুফে। সেবার স্বাগতিক বাংলাদেশসহ টুর্নামেন্টে অংশ্ নেয় মালয়েশিয়া, শ্রীলঙ্কা, থাইল্যান্ড, সিঙ্গাপুর ও বাহরাইন। এবার সবাই জাতীয় দল নিয়ে টুর্নামেন্ট খেলতে আসে। প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধু গোল্ড কাপের ফাইনাল নিশ্চিত করে। ভক্তরা আশায় বুক বেঁধেছিল। কিন্তু মালয়েশিয়ার বিপক্ষে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারেনি লাল-সবুজের জার্সিধারীরা। এমেলি ও ইয়াসিনের গোলের পরও ৩-২ ব্যবধানে হেরে যায় বাংলাদেশ। মালয়েশিয়া বঙ্গবন্ধু গোল্ড কাপের ট্রফি দ্বিতীয়বারের মতো জিতে বাড়ি ফেরে। আর প্রথমবারের মতো আশা জাগিয়েও ভক্তদের হতাশ করেন এমেলিরা।

 

বাহরাইনকে হারিয়ে নেপালের চমক

বঙ্গবন্ধু গোল্ড কাপ ২০১৬ আসরে সবাইকে চমকে দেয় নেপাল। টুর্নামেন্টের চতুর্থ এই আসরে স্বাগতিক বাংলাদেশেরই দুটি দল অংশ্গ্রহণ করে। জাতীয় দল ও অনূর্ধ্ব-২৩ দল। এছাড়াও এ টুর্নামেন্টে অংশ্ নেয় মালয়েশিয়ার ফেলডা ইউনাইটেড, শ্রীলঙ্কা, নেপাল, মালদ্বীপ, বাহরাইন অনূর্ধ্ব-২৩ ও কম্বোডিয়া। গ্রুপের শীর্ষে থেকে বাংলাদেশ্ জাতীয় দল সেমিফাইনাল খেললেও হেরে যায় বাহরাইন অনূর্ধ্ব-২৩ দলের কাছে। ১-০ গোলে পরাজয় স্বীকার করে লাল-সবুজের জার্সিধারীরা। ফাইনাল খেলে নেপাল ও বাহরাইন অনূর্ধ্ব-২৩। নেপালের সামনে তেমন কোনো প্রতিরোধই গড়তে পারেনি বাহরাইন অনূর্ধ্ব-২৩ দল। ৩-০ গোলে ফাইনাল জিতে প্রথমবারের মতো বঙ্গবন্ধু গোল্ড কাপে চ্যাম্পিয়ন হয় নেপাল।

 

এসেই ফিলিস্তিনের বাজিমাত

অনেক কানা-ঘুষা হয়েছিল, ফিলিস্তিন তাদের পূর্ণাঙ্গ জাতীয় দল নিয়ে খেলতে আসছে না। কিন্তু ২০১৮ সালের বঙ্গবন্ধু গোল্ড কাপে চ্যাম্পিয়ন হয় ফিলিস্তিনই। সেবার টুর্নামেন্টের পঞ্চম আসরে স্বাগতিক বাংলাদেশ ও ফিলিস্তিন ছাড়াও অংশ্ নেয় তাজিকিস্তান, নেপাল, ফিলিপাইন ও লাওস। বাংলাদেশ গ্রুপ পর্ব পাড়ি দিয়ে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করে। তবে শেষ চারে ফিলিস্তিনের কাছে ২-০ গোলে হেরে যান জামাল ভূঁইয়ারা। অন্যদিকে সেমিফাইনালে একই ব্যবধানে ফিলিপাইনকে হারায় তাজিকিস্তান। ফাইনালে তাজিকিস্তান ও ফিলিস্তিনের লড়াইটা বেশ জমেছিল। নির্ধারিত ও অতিরিক্ত সময়ে কোনো দলই গোল করতে পারেনি। ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকারে। ৪-৩ ব্যবধানে টাইব্রেকার জিতে চ্যাম্পিয়ন হয় ফিলিস্তিন।


আপনার মন্তব্য