শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ২৩:১২

সিরিজ জয়ের অপেক্ষা

‘আমরা এখনো এগিয়ে (সিরিজে)। দুটি ম্যাচ বাকি। পরের ম্যাচ জিতে আমরা সিরিজ জয়ের চেষ্টা করব।’

ক্রীড়া প্রতিবেদক

সিরিজ জয়ের অপেক্ষা
Google News

ক্রিকেটে মাঝেমধ্যে এমন কিছু ঘটনা ঘটে যা ‘সাদা’ চোখে অবিশ্বাস্য মনে হয়। আবার সেখান থেকে ‘কামব্যাক’ করার ইতিহাসও অনেক। তাই এই নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে তৃতীয় ম্যাচে বাংলাদেশের ৭৬ রানে অলআউট হওয়ার ঘটনাটাও একটা দুর্ঘটনাই মনে হচ্ছে ক্রিকেটারদের কাছে।

বাংলাদেশের বিরুদ্ধে অস্ট্রেলিয়া ৪-১ ব্যবধানে টি-২০ সিরিজ হারের পর নিউজিল্যান্ড দলও আতঙ্কে ছিল। সেই ভাবনা থেকেই কিনা টি-২০ বিশ্বকাপের আগে আগে টি-২০ সিরিজ খেলতে নিজেদের সেরা দলটি পাঠায়নি নিউজিল্যান্ড।

এখানে বেশ কৌশলের আশ্রয় নিয়েছে ব্লাক ক্যাপসরা। কেননা, এই দল সিরিজ হারলেও যাতে মূল দলের আত্মবিশ্বাসে কোনো চোট না লাগে।

প্রথম ম্যাচে প্রত্যাশা অনুযায়ী নিউজিল্যান্ডকে উড়িয়ে দেয় বাংলাদেশ। নিজেদের পছন্দের স্পিন উইকেটে দ্বিতীয় ম্যাচেও জয় পায় টাইগাররা। তবে ব্যাপক প্রতিদ্ধন্ধিতা হয়েছিল। কিন্তু তৃতীয় ম্যাচে রীতিমতো হোঁচট খেল ক্যাপ্টেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের দল।

মাত্র ৭৬ রানে অলআউট। ৫২ রানের এই হারের যেন কোনো ব্যাখ্যাই হয় না! ঘরের মাঠে অপেক্ষাকৃত দুর্বল একটি দলের বিরুদ্ধে কেন এমন হার?

হয়তো এমন হারের পেছনের রহস্য খুঁজে বের করতে কাজ করেছে টিম ম্যানেজমেন্ট। কিন্তু এই হারে কেবলই ব্যাটসম্যানদের দায় তা তো বলার অপেক্ষা রাখে না। কেননা নিউজিল্যান্ডকে ১২৮ রানে আটকে দেওয়ার পর টাইগাররা বোলাররা তাদের কাজটা বেশ ভালোভাবেই করেছেন। কিন্তু ব্যাটসম্যানদের বোকামির জন্য হার মেনে নিতে হয়েছে।

সিরিজে এখন ২-১ ব্যবধান। সামনে আরও দুটি ম্যাচ আছে। এই সিরিজেও ৪-১ ব্যবধান করার সুযোগ আছে। তাই ৭৬ রানে অলআউট হওয়ার কষ্ট ভুলে নতুন করে শুরু করতে চান টাইগার অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। তিনি বলেন, ‘ওদেরকে ১৩০ রানে (১২৮) আটকে রেখে বোলাররা দারুণ করেছেন। আমরা ব্যাটিংয়ে শুরুটা ভালো করেছিলাম। কিন্তু সেই শুরু ধরে রাখতে পারিনি। ঝাঁক ধরে উইকেট হারিয়েছি। আশা করি আমরা ঘুরে দাঁড়াব এবং আরও শক্তভাবে ফিরব।’

আগের ম্যাচে হারের পেছনে বড় জুটি গড়তে না পারার ব্যর্থতাকে দায়ী করেছেন মাহমুদুল্লাহ, ‘এমনিতে আমাদের মিডল অর্ডার ভালো ব্যাট করছে। টপ অর্ডার গত ম্যাচে এবং এ ম্যাচেও ভালো করেছে। যেখানে ঘাটতি ছিল, তা হলো জুটি। আশা করি আমরা ইতিবাচক দিকগুলো নিতে পারব এবং দেখব কোথায় কাজ করতে হবে।’

সিরিজের চতুর্থ ম্যাচ আগামীকাল। জিতলেই নিশ্চিত হয়ে যাবে সিরিজ। এক ম্যাচ হারলেও নিজেদের পিছিয়ে রাখতে রাজি নন টাইগার ক্যাপ্টেন, ‘আমরা এখনো এগিয়ে (সিরিজে)। দুটি ম্যাচ বাকি। পরের ম্যাচ জিতে আমরা সিরিজ জয়ের চেষ্টা করব।’

অধিনায়কের মতো বাংলাদেশ দলের কোচ রাসেল ডমিঙ্গোও পেছনের দিকে না তাকিয়ে সামনে এগিয়ে যেতে চান। তৃতীয় ম্যাচের হারটি তার কাছে এখন কেবলই অতীত। তবে ওই ম্যাচ থেকে শিক্ষা নিয়ে সামনে আর কোনো ভুল করতে চান না। ওই ম্যাচ নিয়ে ডমিঙ্গো বলেন, ‘দিনটি আমাদের জন্য ভালো ছিল না। তবে এটা নিয়ে খুব বেশি ভাবনায় ডুবে থাকার সুযোগ নেই। ওই ম্যাচে কিছু ইতিবাচক দিক ছিল, সেদিকে তাকাতে চাই। পরের ম্যাচটি আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এখন সেদিকেই আমাদের দৃষ্টি।’