বৃহস্পতিবার, ৭ এপ্রিল, ২০২২ ০০:০০ টা

দুরন্ত জয়ে সেমির পথে ম্যানসিটি-লিভারপুল

ক্রীড়া ডেস্ক

দুরন্ত জয়ে সেমির পথে ম্যানসিটি-লিভারপুল

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনালে এক পা দিয়ে রাখল ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটি ও লিভারপুল। কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগে ম্যানসিটি ১-০ গোলে হারিয়েছে স্প্যানিশ ক্লাব অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকে। অন্যদিকে পর্তুগিজ ক্লাব বেনফিকাকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে লিভারপুল। কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগে ইংলিশ ক্লাবের আধিপত্যই দেখা গেল।

ম্যানসিটি-অ্যাটলেটিকোর লড়াইটা ছিল পেপ গার্ডিওলা ও দিয়েগো সিমিওনে দুই কোচের লড়াই। বার্সেলোনা ও বায়ার্ন মিউনিখের কোচ হিসেবে বেশ কয়েকবারই দিয়েগো সিমিওনের অ্যাটলেটিকোর মুখোমুখি হয়েছেন গার্ডিওলা। ২০১৬ সালে বায়ার্নের গার্ডিওলা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ সেমিফাইনালে হেরেছিলেন অ্যাটলেটিকোর সিমিওনের কাছে। তবে এবার গার্ডিওলাই জিতলেন। মঙ্গলবার ম্যানসিটির মাঠ ইতিহাদ স্টেডিয়ামে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকে খেলতেই দেননি গার্ডিওলার শিষ্যরা। ম্যানসিটির গোলমুখে একবারও আক্রমণে যেতে পারেনি অ্যাটলেটিকো।

বিপরীতে অ্যাটলেটিকোর গোলমুখে ১৫ বার আক্রমণ করেছে ম্যানসিটি। বল দখলের লড়াই, পাসিং, সব দিক দিয়েই ম্যানসিটি ছিল অনেক এগিয়ে। অ্যাটলেটিকোর ২৯৭টি পাসের বিপরীতে ম্যানসিটির পাস ছিল ৬৯৬টি। আধিপত্য বিস্তার করা এই ম্যাচে কেভিন ডি ব্রুইনের ৭০তম মিনিটের গোলে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ম্যানসিটি। এ জয়ের পর গার্ডিওলা শিষ্যদের আরও বেশি সতর্ক হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের আবেগ নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। নিজেদের কাজটা করতে হবে।’ অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ এই ধরনের পরিস্থিতিতে অনেকবার খেলেছে। সেসব পরিস্থিতি থেকে তারা বেরিয়েও এসেছে। একথা শিষ্যদের মনে করিয়ে দিয়েছেন গার্ডিওলা। তিনি বলেন, ‘১-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকেও মাদ্রিদে গিয়ে খেলাটা সহজ হবে না।’ এ কারণেই দ্বিতীয় লেগে অ্যাটলেটিকোর মাঠেও জয়ের পরিকল্পনা করছেন এ স্প্যানিশ কোচ। অ্যাটলেটিকোর কোচ দিয়েগো সিমিওনে বলেছেন, ‘এটা পরিষ্কার যে আমরা এক অসাধারণ দলের বিপক্ষে খেলছি। আমাদেরকে আগে নিজেদের ডিফেন্সটা সামলাতে হবে। এরপর এগিয়ে যেতে হবে।’ দ্বিতীয় লেগে তার দল চূড়ান্ত আঘাত হানার জন্য প্রস্তুত থাকবে বলেও জানিয়েছেন সিমিওনে।

এদিকে কোয়ার্টার ফাইনালের বাধা অনেকটাই পাড়ি দিয়েছে লিভারপুল। পর্তুগিজ ক্লাব বেনফিকার মাঠে ৩-১ গোলে জিতেছে অলরেডরা। লিভারপুলের পক্ষে একটি করে গোল করেন ইব্রাহিমা কোনাতে, স্যাডিও মানে ও লুইস ডিয়াজ। বেনফিকার পক্ষে একটি গোল করেন ডারউইন নুনেজ। দ্বিতীয় লেগে ড্র করলেই চলবে লিভারপুলের। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনাল খেলবে তারা। অন্যদিকে বেনফিকাকে সেমিফাইনাল খেলতে হলে লিভারপুলের মাঠে অন্তত ৩-০ গোলে জিততে হবে। আগামী ১৩ এপ্রিল অ্যাটলেটিকো-ম্যানসিটি ও লিভারপুল-বেনফিকা কোয়ার্টার ফাইনালের দ্বিতীয় লেগে মুখোমুখি হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর