Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ১৯ আগস্ট, ২০১৯ ১০:১৭

মেসিকে খুশি রাখতেই নেইমার ‘নাটক’ বার্সার!

অনলাইন ডেস্ক

মেসিকে খুশি রাখতেই নেইমার ‘নাটক’ বার্সার!

স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সেলোনা থেকে রেকর্ড ফি ২২২ মিলিয়ন ইউরোতে ফরাসি ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মেই (পিএসজি) পাড়ি জমান ব্রাজিলিয়ান সুপার স্টার নেইমার। কিন্তু সেখানে দুই মৌসুম অতিক্রম করার পর আবার বার্সাতে ফেরার গুঞ্জন নেইমারের। 

এদিকে আবার নেইমারকে দলে ভেড়াচ্ছে বার্সেলোনা এমন খবরে ফরাসি মিডিয়ার দাবি, শুধু লিওনেল মেসিকে খুশি রাখার জন্যই নাকি নেইমার নাটিক সাজিয়েছে কাতালান জায়ান্টরা! 

ফরাসি সংবাদ মাধ্যম ‘লা প্যারিসিয়ান’র দাবি, পুরো ব্যাপারটা নাকি সিরিয়াস নয়। বরং মেসিকে শান্ত ও খুশি রাখাই মূল উদ্দেশ্য।

নেইমারের সঙ্গে মেসির বন্ধুত্বের কথা সুবিদিত। সেটা এমনকি নেইমারের বার্সা ত্যাগের পরও বজায় আছে। তারা দুজনে আর লুইস সুয়ারেস মিলে ‘এমএসএন’ ত্রয়ী গড়েছিলেন, যা তর্কসাপেক্ষে বিশ্বের সেরা আক্রমণভাগের স্বীকৃতি পেয়েছিল। এজন্যই প্রিয় বন্ধুকে আগের ঠিকানায় ফেরানোর জন্য পরোক্ষে ভূমিকা রাখতে শুরু করেন মেসি। 

পিএসজি ছাড়তে মরিয়া নেইমার। আদতে তাকে ফেরাতে মরিয়া স্বয়ং বার্সা অধিনায়ক মেসি নিজেও। তবে কি দুজনকেই খুশি রাখার চেষ্টাই করছে বার্সা? তবে আপাতত নেইমার নাটকের একটা অধ্যায় শেষ হয়ে গেছে। আর তা হলো, ফিলিপ্পে কৌতিনহো। 

নেইমারকে পাওয়ার বিনিময়ে তারই স্বদেশী ফরোয়ার্ড কৌতিনহোকে প্যারিসে পাঠাতে চেয়েছিল বার্সা, এমন খবর শোনা গিয়েছিল কিছুদিন আগেই। কিন্তু সবাইকে চমকে দিয়ে তাকে ধারে বায়ার্ন মিউনিখে পাঠিয়ে দিয়েছে স্প্যানিশ চ্যাম্পিয়নরা। কিন্তু নেইমার ইস্যু এখনও ঝুলেই আছে।

ফরাসি সংবাদ মাধ্যমের দাবি অনুযায়ী, নেইমার নাটক পুরোটাই সাজানো। বার্সা আসলে নেইমারকে পেতে সর্বোচ্চ চেষ্টাই নাকি করেনি। তাদের কথার পক্ষে যুক্তি, কৌতিনহোর বায়ার্নে যাওয়া। নেইমারের বিশাল অঙ্কের ট্রান্সফার ফি একমাত্র কৌতিনহোকে দিয়েই স্বাভাবিক অবস্থানে আনার সুযোগ ছিল বার্সার হাতে। কিন্ত সেটাও গেল। এখন বার্সার হাতে সত্যিই তেমন কোনো সুযোগ নেই বললেই চলে।

কেননা ২২২ মিলিয়ন ইউরো দিয়ে যে নেইমারকে দুই মৌসুম আগে পিএসজির হাতে তুলে দিয়েছিল, সেই তাকেই প্রায় ২৫০ মিলিয়ন খরচ করে কিনে আনা বার্সার জন্য প্রায় অসম্ভব।

নেইমার নিজে অবশ্য বার্সায় ফেরার জন্য নিজের ব্যাকুলতা লুকিয়ে রাখেননি। নিজেই মেসির সহায়তা চেয়ে ফোনও করেছিলেন। পরে তার প্রতিনিধিদেরও ক্যাম্প ন্যুয়ে পাঠিয়েছিলেন। কিন্তু কোনো চুক্তি স্বাক্ষর তো দূরের কথা, এখনও মূল আলোচনাই হয়নি!


বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন


আপনার মন্তব্য