৩০ নভেম্বর, ২০২১ ০৪:১৩

সপ্তম ব্যালন ডি’অর জিতলেন মেসি (ভিডিও)

অনলাইন ডেস্ক

সপ্তম ব্যালন ডি’অর জিতলেন মেসি (ভিডিও)

সংগৃহীত ছবি

সপ্তমবারের মতো ব্যালন ডি’অর জিতলেন আর্জেন্টাইন তারকা লিওনেল মেসি। সোমবার রাতে ফ্রান্সে এক বর্ণিল সন্ধ্যায় সপ্তমবারের মতো ফুটবল বিশ্বের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ এ পুরস্কার ঘোষণা করে ফরাসি ম্যাগাজিন ‘ফ্রান্স ফুটবল’।

আগের ছয়বার মেসি এই পুরস্কার জিতেছেন-২০০৯, ২০১০, ২০১১, ২০১২, ২০১৫ ও ২০১৯ সালে। যদিও গত মৌসুমে বার্সেলোনার হয়ে ৩৬ ম্যাচ খেলে তার পা থেকে এসেছে ৩০ গোল। দল হিসেবে বার্সার পারফরম্যান্স হতাশাজনক হলেও উজ্জ্বল ছিলেন লিওনেল মেসি।

ভোটাভুটিতে বায়ার্ন মিউনিখের গোলমেশিন জামার্নি তারকা রবের্ত লেওয়ানডস্কি হারিয়ে নিজের সর্বোচ্চসংখ্যক ব্যালন ডি’অর জয়ের রেকর্ডকে আরও এক ধাপ উঁচুতে নিয়ে গেলেন ৩৪ বছর বয়সি এই আর্জেন্টাইন ফুটবল সুপারস্টার।

২০২১ সালের গ্রহের সেরা খেলোয়াড় হিসাবে স্বীকৃতি পেয়ে, মেসি এখন চির প্রতিদ্বন্দ্বী ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের পাঁচবারের বিজয়ী রিশ্চিয়ানো রোনালদোর থেকে দুই ধাপের ব্যবধানে এগিয়ে রইলেন।

এদিকে, বছরের সেরা ক্লাবের পুরস্কার পেয়েছে চেলসি। ব্যালনের তালিকায় ছয় নম্বরে এসেছে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর নাম। রবার্ট লেভান্ডোস্কি বর্ষসেরা স্ট্রাইকারের পুরস্কার জিতেছেন।

২০২১ সালটা মেসির জন্য ঘটনাবহুল, স্মৃতিময়। উচ্ছ্বাস আর চাপা কষ্টের কান্না দুটোই রয়েছে এই বছরে। ধুঁকতে থাকা বার্সেলোনাকেও জিতিয়েছিলেন কোপা দেলরে শিরোপা, লা লিগায় করেছিলেন তৃতীয়ও।

এরপর দেশকে ২৮ বছরের শিরোপার খরা ঘোচান। এনে দেন কাঙিক্ষত কোপা আমেরিকা শিরোপা। ওই টুর্নামেন্টে ৪ গোল ও ৫ অ্যাসিস্ট করে হয়েছিলেন টুর্নামেন্টসেরাও। এরপর আসে তার কান্নার দিন। ২১ বছরের সম্পর্ক শেষ করে বার্সেলোনা ছেড়ে কাঁদতে কাঁদতে পাড়ি জমান প্যারিসে। গায়ে চড়ান পিএসজির জার্সি। 

উল্লেখ্য, ১৯৫৬ সালে প্রথমবার চালু হয় ব্যালন ডি অর। তখন কেবল ইউরোপের সেরা খেলোয়াড়কে দেওয়া হতো এই পুরস্কার। ১৯৯৫ সাল থেকে ইউরোপে খেলা বিশ্বের যেকোনো খেলোয়াড়ের জন্য পুরস্কারটি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ২০০৭ সাল থেকে সেটি দেওয়া হচ্ছে বিশ্বের যেকোনো জায়গায় খেলা ফুটবলারদের।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক

সর্বশেষ খবর