২৮ নভেম্বর, ২০২১ ২০:৫৬

চট্টগ্রামে চেয়ারম্যান পদে নৌকা ছাড়া আছেন বিদ্রোহীও

সাইদুল ইসলাম, চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামে চেয়ারম্যান পদে নৌকা ছাড়া আছেন বিদ্রোহীও

চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে গোলাগুলি, ছেড়া ব্যালট পেপার উদ্ধারসহ বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনা, রাঙ্গুনীয়া উপজেলার দক্ষিণ রাজানগর ইউপিতে পুলিশের ১০ রাউন্ড ফাঁকাগুলি ছোড়া হয়। এর বাইরে তেমন কোন ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। রবিবার চট্টগ্রামের রাউজান, রাঙ্গুনীয়া ও হাটহাজারীর মধ্যে রাউজানে বিনাভোটে সকল চেয়ারম্যান মেম্বাররা নির্বাচিত হয়েছেন। তবে হাটহাজারী ও রাঙ্গুনীয়াতে নৌকার প্রার্থী ছাড়া চেয়ারম্যান পদে বিদ্রোহী প্রার্থীও নির্বাচিত হয়েছেন।

নির্বাচনে দায়িত্বরত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী বলেন, ঝামেলার খবর শুনেছি। তবে ঘটনাস্থলে আসার পর কোনও কিছু দেখতে পাইনি। আমার দায়িত্বে থাকা ১১ নং ১২ নং ইউনিয়নের কেন্দ্রগুলোতে ভোটার উপস্থিতি সন্তোষজনক। কোনো কেন্দ্রে ঝামেলার খবর পেলে রিজার্ভ ফোর্স নিয়ে ছুটে যাই। চিকনদন্ডীতে কেন্দ্রের বাইরে হালকা ঝামেলা হয়েছে।

স্থানীয় ও প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, হাটহাজারী উপজেলার চিকনদন্ডী ইউনিয়নে কাটাখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ছমদিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে একটি কেন্দ্রে গুলি ও আরেকটি কেন্দ্রে দুইপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে আধাঘণ্টা ভোটগ্রহণ বন্ধ রাখা হয় দুটি কেন্দ্রে। দুটি কেন্দ্রেই নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হাসানুজ্জামান বাচ্চুর সমর্থকদের সঙ্গে স্থানীয়দের সংঘর্ষ হয়। হামলার শিকার হন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের হাতপাখা প্রতীকের প্রার্থী মো. জাবেদ।

তাছাড়া হাটহাজারীর ফতেপুর ইউনিয়নের কুলালপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও লতিফপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশ থেকে ব্যালট পেপারগুলো উদ্ধার করা হয়। ব্যালটে দেখা যায়, প্রায় প্রতিটিতে আপেল প্রতীকের ওপর সিল মারা রয়েছে। এছাড়া প্রতিটি ব্যালটে নির্বাচন কমিশনের সিল ও ভোটাররে স্বাক্ষরের স্থানে আঙ্গুলের টিপ সই রয়েছে।

স্থানীয়রা আরও জানান, ৪ নম্বর ওয়ার্ডে আপেল প্রতীকের প্রার্থী মো. বেলাল এবং ৫ নম্বর ওয়ার্ডে আপেল প্রতীকের প্রার্থী মোহাম্মদ হামিদ। এই দুটি কেন্দ্রে থেমে দুইপক্ষের মধ্যে ঝামেলা হয়। হাটহাজারী উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার সৈয়দ মোহাম্মদ আনোয়ার খালেদ বলেন, বিষয়গুলো তিনি শুনেছেন। তবে কোথায় কি হয়েছে, তা বিস্তারিত জানেন না। তবে এসব বিষয়ে মন্তব্য করতে রাজি হননি তিনি।

রাঙ্গুনীয়ার দক্ষিণ রাজানগর ইউনিয়নে মেম্বার প্রার্থী মো. ইউনুচ মিয়া ও আজিম উদ্দিনের মধ্যে উত্তেজনা ছিল। এসময় পুলিশ ১০ রাউজান ফাকাগুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে। বর্তমানে পরিস্থিতি থমথমে রয়েছে। তাছাড়া উপজেলায় নৌকা প্রতীকের পাশাপাশি বিদ্রোহী প্রার্থীর মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয়েছেন।

রাঙ্গুনীয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব মিল্কী বলেন, মেম্বার প্রার্থীদের মধ্যে উত্তেজনা থাকায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের জন্য ১০ রাউন্ড ফাকাগুলি ছোড়া হয়েছে। তবে এর বাইরে রাঙ্গুনীয়াতে তেমন কোন ঘটনা ঘটেনি বলে জানান তিনি।

নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে, চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার যে সব ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় সেগুলো হল ধলই ইউনিয়ন, মির্জাপুর ইউনিয়ন, গুমানমর্দ্দন, নাঙ্গল মোড়া, ছিপাতলি, মেখল, গড়দুয়ারা, উত্তর মাদার্শা, ফতেপুর, চিকনদন্ডি, দক্ষিণ মাদার্শা, শিকারপুর, বুড়িশ্চর ইউনিয়ন। অন্যদিকে একই দিন রাঙ্গুনীয়া উপজেলায় নির্বাচন হয়েছে রাজানগর ইউনিয়ন, হোছনাবাদ ইউনিয়ন, পারুয়া, পোমরা, বেতাগী, সরফভাটা, শিলক, পদুয়া, চন্দ্রঘোনা, কোদালা, ইসলামপুর, দক্ষিণ রাজানগর ও লালা নগর ইউনিয়নে। তিন উপজেলার মধ্যে রাউজান উপজেলার ১৪ ইউনিয়নেও নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু রাউজনের সকল  চেয়ারম্যান এবং মেম্বার বিনাভোটে নির্বাচিত হওয়ায় কোন নির্বাচন হয়নি।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর

সর্বশেষ খবর