শিরোনাম
প্রকাশ : ২৪ নভেম্বর, ২০১৯ ১৪:১৫
আপডেট : ২৪ নভেম্বর, ২০১৯ ১৪:১৮

অযত্ন অবহেলায় নষ্ট হচ্ছে সুলতানের আঁকা দুর্লভ চিত্রকর্ম

অনলাইন ডেস্ক

অযত্ন অবহেলায় নষ্ট হচ্ছে সুলতানের আঁকা দুর্লভ চিত্রকর্ম
নষ্ট হয়ে যাওয়া শিল্পকর্ম পুনরুদ্ধারে ঢাকায় আনা হয়েছে। (সংগৃহীত ছবি)

অযত্ন আর অবহেলায় নষ্ট হয়ে যাচ্ছে বরেণ্য চিত্রশিল্পী এস এম সুলতানের আঁকা দুর্লভ সব চিত্রকর্ম। শিল্পীর মৃত্যুর পর সুলতান কমপ্লেক্স তৈরি হতে কয়েক বছর লেগে গেলেও ছবিগুলো সঠিক পদ্ধতিতে সংরক্ষণের উদ্যোগ নেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ রয়েছে। 

এদিকে ছবিগুলো পুনরুদ্ধার করতে সুলতানপ্রেমীদের বার বার করা আবেদনও উপেক্ষা করা হয়েছে। কমপ্লেক্স সূত্রে জানা গেছে, সুলতান কমপ্লেক্সে শিল্পীর আঁকা মোট ২২টি ছবি রয়েছে। এগুলোর প্রতিটিই নানা সময়ে অবহেলায় পড়ে নষ্ট হতে চলেছে। এরই মধ্যে আটটি ছবি প্রায় নষ্ট হয়ে গেছে। 

অবশেষে গত শুক্রবার (২২ নভেম্বর) সকালে নষ্ট হয়ে যাওয়া তিনটি পেইন্টিং রেস্টোরেশন (আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ) জন্য ঢাকায় নেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির ঢাকা থেকে নড়াইলে আসা তিন সদস্যের একটি টিম ছবিগুলো ঢাকায় নিয়ে যায়। ‘জমি কর্ষণ’, ‘ধান মাড়াই’ ও ‘গ্রাম্য কাজিয়া’ নামের ছবি তিনটি তেল রংয়ের মাধ্যমে চটের ক্যানভাসের ওপর আঁকা।

জানা গেছে, বিশ্ববরেণ্য শিল্পী সুলতানের ‘চর দখল’, ‘ধান মাড়াই’, ‘জমি কর্ষণ, ‘ফসল সংগ্রহ’, ‘মাঠ পরিষ্কার, ‘কলসি কাঁখে নারী’, ‘কাজিয়া’ (কাইজ্যা) ও ‘মাছ শিকার’ ছবিগুলো নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কায় রয়েছে।

নড়াইলের শিল্পসংশ্লিষ্টরা জানান, অপরিকল্পিতভাবে গড়ে তোলা গ্যালারি, আবহাওয়া, উপযুক্ত স্থানে না রাখা, বদ্ধ অবস্থায় রাখা, অবহেলাসহ বিভিন্ন কারণে ছবিগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এবং এখন পুরোপুরি নষ্টের পথে রয়েছে। জেলা শহরে ছবিগুলো রিপেয়ার করার যোগ্যতা রাখে, এমন ব্যক্তি বা ল্যাবরেটরি নেই। সে জন্য ছবিগুলো ঢাকায় নেওয়া হয়েছে।

সুলতানের ছবি নিতে ঢাকা থেকে আসেন বাংলাদেশ ব্যাংকের টাকা মিউজিয়ামের কিউরেটর আছিয়া খাতুন, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির গ্যালারি সুপারভাইজার মিজানুর রহমান ও চিত্রকর্ম চিকিৎসক হাসানুর রহমান রিয়াজ। 

আছিয়া খাতুন বলেন, ‘এস এম সুলতানের আঁকা আটটি ছবি নষ্ট হয়ে গেছে। এগুলো ধাপে ধাপে রিপেয়ার করা জরুরি। প্রথম ধাপে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মাধ্যমে তিনটি ছবি রিপেয়ার করা হবে।’

ছবিগুলো নষ্ট হওয়ার পর সেগুলো রিপেয়ারে শিল্পকলার উদ্যোগ দেখে অবশ্য ক্ষোভ প্রকাশ করেছে বিভিন্ন মহল। 

জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা বলেন, ‘শিল্পী সুলতানের অনেকগুলো ছবি নষ্ট হওয়ার পথে।’ তিনি জানান, ছবিগুলো দীর্ঘস্থায়ী ও সুন্দর করতে শিল্পকলার মাধ্যমে রিপেয়ারের জন্য ঢাকায় নেওয়া হয়েছে। আশা করছি খুব দ্রুত এগুলো রিপেয়ার করে আবার সুলতান কমপ্লেক্সে পাঠানো হবে। 


বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য