শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ২০ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৯ মার্চ, ২০১৯ ২৩:৩১

দাবি পূরণ নিয়ে ধোঁয়াশায় পাটকল শ্রমিকরা

সামছুজ্জামান শাহীন, খুলনা

দাবি পূরণ নিয়ে ধোঁয়াশায় পাটকল শ্রমিকরা

মজুরি কমিশন, গ্র্যাচুইটি ও প্রফিডেন্ট ফান্ডের টাকা প্রদানসহ ৯ দফা দাবি পূরণ নিয়ে ধোঁয়াশায় খুলনার রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল শ্রমিকরা। বাংলাদেশ জুট মিল করপোরেশন (বিজেএমসি) ২৮ মার্চের মধ্যে রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলে মজুরি কমিশন বাস্তবায়নের আশ্বাস দিলেও শঙ্কা কাটেনি শ্রমিকদের।

তাদের মতে, চার বছর ধরে দাবি পূরণের কথা বললেও তা বাস্তবায়িত হয়নি। এ ছাড়া বকেয়া মজুরি, প্রফিডেন্ট ফান্ডের টাকা প্রদান ও বদলি শ্রমিকদের স্থায়ীকরণের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়নি। এ কারণে দাবি আদায়ে ২৯ মার্চ থেকে অবরোধ-ধর্মঘটের নতুন কর্মসূচি দেওয়া হচ্ছে।  জানা যায়, খুলনা অঞ্চলের পাটকলগুলোতে শ্রমিকদের ছয় সপ্তাহের মজুরি ও কর্মচারীদের দুই মাসের বেতন বকেয়া রয়েছে। আর্থিক সংকটে কাঁচাপাট কিনতে না পারায় পাটকলগুলোতে উৎপাদনে ধস নেমেছে। এসব কারণে বাধ্য হয়ে আন্দোলনে নামে শ্রমিকরা। তবে সোমবার রাতে বিজেএমসি, বাংলাদেশ পাটকল শ্রমিক লীগ ও সিবিএ-ননসিবিএ পরিষদের বৈঠকে মজুরি কমিশন বাস্তবায়নের আশ্বাস দিলে ১৯ মার্চ থেকে পূর্ব ঘোষিত ৪৮ ঘণ্টার ধর্মঘট স্থগিত করে শ্রমিকরা। পাটকল শ্রমিক লীগের সভাপতি সরদার মোতাহার উদ্দিন বলেন, বিজেএমসি দাবি পূরণের আশ্বাস দেওয়ায় আপাতত ধর্মঘট স্থগিত করা হয়েছে। একই সঙ্গে ৭ এপ্রিল দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে বাকি দাবিগুলো নিয়ে আলোচনার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। তবে দাবি পূরণে আলোচনার প্রস্তাব ও স্বল্প সময়ের মধ্যে মজুরি কমিশন বাস্তবায়নের কথায় শ্রমিকদের মধ্যে ধোঁয়াশার সৃষ্টি হয়েছে বলে জানান পাটকল শ্রমিক সিবিএ-ননসিবিএ ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন।

 তিনি বলেন, দাবি পূরণ নিয়ে শ্রমিকদের শঙ্কা কাটেনি। তাদের মধ্যে দীর্ঘ দিনের ক্ষোভ রয়েছে। প্রয়োজনে দাবি আদায়ে শ্রমিকরা আবারও রাজপথে নামবেন।

ক্রিসেন্ট জুট মিলের সিবিএ সম্পাদক সোহরাব হোসেন বলেন, ২৮ মার্চের মধ্যে দাবি পূরণ না হলে ২৯ মার্চ খুলনাসহ জোন ভিত্তিক জনসভা, ১ এপ্রিল রাজপথে মিছিল, ২, ৩, ৪ এপ্রিল পাটকলে টানা তিন দিনের ধর্মঘট ও রাজপথ-রেলপথ অবরোধের কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়েছে। শ্রমিকরা জানায়, বহির্বিশ্বে প্রতিযোগিতামূলক বাজারে বাংলাদেশের পাটশিল্পকে টিকিয়ে রাখতে পাটকলে সময়মতো কাঁচাপাট ক্রয়, পুরনো মেশিনারিজে বিএমআরই, পাটপণ্যের বহুমুখী উৎপাদন ও শ্রমিকদের ন্যায্য দাবি পূরণ করতে হবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর