শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১৯ মে, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৮ মে, ২০১৯ ২৩:০৩

ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবি

দুই যুবকের মৃত্যুর খবর পরিবারে

শরীয়তপুর প্রতিনিধি

দুই যুবকের মৃত্যুর খবর পরিবারে

লিবিয়া থেকে ইতালি যাওয়ার পথে তিউনিসিয়ার উপকূলে অভিবাসীবাহী নৌকাডুবিতে নিখোঁজ শরীয়তপুরের দুই যুবকের লাশ পাওয়ার খবর পেয়েছে তাদের পরিবার। শরীয়তপুরের জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের শুক্রবার রাতে দুই যুবকের লাশ উদ্ধার হওয়ার খবর দেন তাদের পরিবারকে। এদিকে র‌্যাব মানব পাচারকারী আব্বাসকে গ্রেফতার করেছে।

নড়িয়া উপজেলার ভূমখারা ইউনিয়নের নলতা গ্রামের ইয়ার খানের ছেলে রাজিব খান (২৬) ও দক্ষিণ চাকধ গ্রামের গৌতম দাসের ছেলে উত্তম দাসের (২৩) লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এর আগে চাকধ গ্রামের মোকছেদ মৃধার ছেলে পারভেজ মৃধার মৃত্যুর খবর পায় তার পরিবার।

গ্রামবাসী জানায়, রাজিব খানের বাবা ইয়ার খান স্ত্রী রাজিয়া বেগম ও এক ছেলেকে নিয়ে ওমান থাকেন। গত বছর রাজিব বায়না ধরেন ইতালি যাবেন। সে অনুযায়ী স্থানীয় দালাল (মানব পাচারকারী চক্রের সদস্য) আক্কাছ মাতুব্বরের সঙ্গে সাড়ে সাত লাখ টাকায় চুক্তি করেন। গত বছর রমজান মাসে রাজিব ও তার ফুপাতো ভাই রনি মোল্লাসহ এলাকার আরও ১০-১২ জন যুবক ওই দালালের হাত ধরে লিবিয়া যান। সেখান থেকে নৌকায় করে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইতালি রওনা হন। গত ১১ মে রাতে অভিবাসীবাহী নৌকাটি তিউনিসিয়ার উপকূলে ডুবে যায়। নিখোঁজ হন রাজিবসহ নড়িয়ার যুবকরা। ছেলের দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ওমান থেকে শুক্রবার দেশে ফিরেছেন মা রাজিয়া বেগম।

দক্ষিণ চাকধ গ্রামের গৌতম দাসের ছেলে উত্তম দাস স্থানীয় একটি কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষা দিয়ে গত বছর স্থানীয় আক্কাছ দালালের মাধ্যমে লিবিয়া যায়। সেখান থেকে ইতালি যাওয়ার পথে নৌকাডুবিতে তার মৃত্যু হয়।

উত্তমের বাবা গৌতম দাস বলেন, ছেলের লাশ পাওয়া গেছে এমন খবর প্রশাসন থেকে জানানো হয়েছে।

এদিকে মানব পাচারের অভিযোগে র‌্যাব আক্কাস মাতুব্বরকে গ্রেফতার করেছে। তার বাড়ি শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার ভূমখারা গ্রামে। তিনি ওই গ্রামের আবু মাতুব্বরের ছেলে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর