শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২৩:৩৫

বাহারি স্বাদের বিরানি

কলকাতার কথা ৬

মোস্তফা কাজল, কলকাতা থেকে ফিরে

বাহারি স্বাদের বিরানি

কলকাতা শহরের বিভিন্ন স্থানে আছে বাহারি স্বাদের ৬টি বিরানির দোকান। এসব দোকানে সকাল ১০টা থেকে গভীর রাত বিক্রি হচ্ছে নানা স্বাধের বিরানি। অনেকে মনে করেন সেখানে না খেলে ছুটির দিন ষোলআনা মাটি। এসব দোকানের খাবারের স্বাদ যেমন অতুলনীয় তেমনই দুর্দান্ত এর ভিতরকার আবহ। সেখানকার চিকেন জাফরানি তন্দুরি সহযোগে চিকেন হান্ডি বিরানি খাওয়ার অভিজ্ঞতা এক স্মরণীয় ব্যাপার। ফলে কলকাতার বিরানির নিজস্ব ঘরানা আছে। লক্ষেèৗ বা হায়দরাবাদী বিরানি থেকে যা আলাদা। খাদ্যরসিক বাঙালির রসনা পরিতৃপ্ত করতে বিরানির জুড়ি মেলা ভার। নতুন-পুরনো মিলিয়ে এখানে রয়েছে ৬টি বিরানির দোকানের সমাহার। যেখানে সন্ধ্যা নামলে ভিড় করতে শুরু করেন বিরানিপ্রেমী মানুষজন। এ ছয়টির মধ্যে পার্ক স্ট্রিটে রয়েছে সিরাজ গোল্ডেন রেস্টুরেন্ট। এরপর রয়েছে নিউ মার্কেটের কাছে নিজাম হোটেল। পার্ক সার্কাস ক্রসিংয়ে রয়েছে আর্সালান রেস্টুরেন্ট। নিউ মার্কেট চত্বর এলাকায় রয়েছে আমিনিয়া হোটেল। আরও রয়েছে দেশ প্রিয় পার্ক এলাকার অউধ রেস্টুরেন্ট। সিরাজ গোল্ডেন রেস্টুরেন্ট (পার্ক স্ট্রিট) : কলকাতার              প্রাচীনতম বিরানি- কেন্দ্রগুলোর একটি। চিকেন হোক বা মাটন হোক বহু বিরানি রসিকের মতে সিরাজের বিরানিই কলকাতার সেরা। তুলতুলে মাংসের টুকরো আর সুসিদ্ধ আলু দিয়ে তৈরি এ বিরানির স্বাদ জিভে লেগে থাকার মতো। অনেক বিরানি-মোদী আছেন যারা মুখে দিয়েই বলে দিতে পারেন কোনটি সিরাজের বিরানি কোনটি নয়। নিজাম হোটেল : এ হোটেলের হটকাটি রোল বর্তমানে কিংবদন্তিতে পরিণত হতে চলেছে। তবে এখানকার বিরানিও কম জনপ্রিয় নয়। এ দোকানের চাপ বা কাবাব সহযোগে বিরানি খাওয়ার সে যেন এক অপূর্ব অভিজ্ঞতা। যারা ‘বিফ’ ভালোবাসেন তারা এখানকার বিফ বিরানির সুস্বাদও গ্রহণ করতে পারেন। আর্সালান রেস্টুরেন্ট : কলকাতার অন্যতম জনপ্রিয় বিরানি কেন্দ্র। অল্প দামে উৎকৃষ্ট বিরানি খাবার সেরা জায়গা এটি। কলকাতায় আউটলেট আছে বেশ কয়েকটি। তবে মূল কেন্দ্রটি পার্ক সার্কাস মোড়ে। ‘আর্সালান’-এর টেবিলে এমন ক্রেতা খুঁজে পাওয়া দুষ্কর যার সামনে বিরানির প্লেট নেই। আমিনিয়া হোটেল : কলকাতার আর এক কিংবদন্তি। ঠিকঠাক উপাদানের মিশ্রণে আদর্শ বিরানির জন্মদাতা হিসেবে কথিত আছে এ হোটেলটির নাম। বর্তমানে নিউমার্কেট এলাকা ছাড়াও আরও বেশ কয়েকটি জায়গায় খুলে গেছে আমিনিয়ার শাখা। এ হোটেলে বিফ বিরানির দাম ৮০ রুপি। মাটন বিরানির দাম ১০০ রুপি। লক্ষেèৗ হোটেল : কলকাতার পুরনো ও আদি দোকানগুলোর সঙ্গেই বিরানির স্বাদে টক্কর দিতে পারে এ নতুন দোকান। অউধ রেস্টুরেন্ট : কলকাতার সেরা বিরানি- কেন্দ্রগুলোর তালিকায় আর একটি নতুন সংযোজন। শহরের দেশপ্রিয় পার্ক এলাকার এ দোকানের বিশেষত্ব হলো বিরানির বৈচিত্র্য। সেই সঙ্গে স্বাদও অপূর্ব। এ হোটেলে বিফ বিরানি ৮০ রুপি। আর মাটন বিরানি ১২০ রুপিতে বিক্রি হচ্ছে।

 


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর