বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ টা

ছাদের ওপর দুই বোনের ঝুলন্ত লাশ

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট

সিলেট নগরীর আম্বরখানা মজুমদারি এলাকায় বাসার ছাদের ওপর থেকে আপন দুই বোনের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মৃত্যুর ধরন দেখে পুলিশ প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে দুই বোন আত্মহত্যা করে থাকতে পারেন। তবে রহস্যজনক এই মৃত্যুর কারণ উদঘাটনে সুষ্ঠু তদন্ত দাবি করেছেন এলাকার লোকজন ও জনপ্রতিনিধি।  গতকাল সকালে মজুমদারি ৩১ নম্বর বাসার ছাদের ওপর রডের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় তাদের মরদেহ পাওয়া যায়। মারা যাওয়া দুই বোন হলেন- ওই বাসার মৃত কলিমউল্লাহর মেয়ে রানী বেগম (৩৮) ও ফাতেমা বেগম (২৭)। সিলেট কোতোয়ালি থানাধীন আম্বরখানা পুলিশ ফাঁড়ির এসআই মফিজুল ইসলাম জানান, গতকাল সকালে পরিবারের সদস্যরা বাসার ছাদে দুই বোনের ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পান। পরে খবর দেওয়া হয় পুলিশে। ছাদের ওপর থাকা পিলারের রডের সঙ্গে ঝুলে গলায় ফাঁস দিয়ে তারা আত্মহনন করেছেন।

 

এসআই মফিজুল ইসলাম আরও জানান, ‘রানীদের চার বোনের মধ্যে একজনের বিয়ে হয়েছে। তিনি যুক্তরাজ্যে থাকেন। বাকিরা অবিবাহিত। পরিবারের সদস্যদের মধ্যে কিছুটা অপ্রকৃতস্থভাব আছে। তারা চাপা স্বভাবের। আত্মীয়স্বজনদের সঙ্গেও তাদের তেমন যোগাযোগ ছিল না।’

রানী ও ফাতেমার ভাই শেখ রাজন জানান, বিয়ের আলাপ সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে ‘রাগ ও ক্ষোভ’ থেকে দুই বোন এই পথ বেছে নিতে পারেন বলে তারা ধারণা করছেন। এর মধ্যে রানীর প্ররোচনায় ফাতেমা আত্মহত্যা করেছেন বলে মনে করছেন তিনি। অন্যদিকে স্থানীয় কাউন্সিলর ঘটনাটিকে ‘সন্দেহজনক’ বলে মনে করছেন।

রাজন জানান, ‘গত রবিবার রানীর জন্য একটা বিয়ের প্রস্তাব আসে। বরের বয়স একটু বেশি, পঞ্চাশের মতো। বর যুক্তরাজ্য প্রবাসী ও দুই সন্তানের বাবা। রানী ওই বিয়েতে রাজি ছিল না। এ নিয়ে ঘরে ঝগড়া করছিল। আমরা তাকে বলি, বিয়ের প্রস্তাব মাত্র এসেছে, বিয়ে তো আর হয়ে যায়নি। এর মধ্যেই এ কা  ঘটিয়ে বসে সে। রানীই হয়তো ফাতেমাকে এই পথ বেছে নিতে ইন্ধন দিয়েছে।’

বিমানবন্দর থানার ওসি খান মোহাম্মদ মাইনুল জাকির বলেন, ঘটনাটি নিয়ে পুলিশ তদন্ত করছে। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে এটি আত্মহত্যা কিনা, তা নিশ্চিত হওয়া যাবে।

সর্বশেষ খবর