শিরোনাম
বৃহস্পতিবার, ৩ নভেম্বর, ২০২২ ০০:০০ টা

উত্তেজনা রংপুর সিটিতে

ডিসেম্বর বা জানুয়ারিতে সিটি নির্বাচন, এখনই মাঠে নেমে পড়েছেন প্রার্থীরা, নতুন নাকি পুরনো তালিকায় ভোট, প্রশ্ন অনেকের

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর

উত্তেজনা রংপুর সিটিতে

রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন চলতি বছরের ডিসেম্বরের শেষভাগে অথবা জানুয়ারির প্রথমে হতে পারে এমনটা ঘোষণা দিয়েছেন নির্বাচন কমিশন। তফসিল ঘোষণা না হলেও সম্ভাব্য মেয়র ও কাউন্সির প্রার্থীরা উজ্জীবিত। নতুন ভোটার হওয়ার অপেক্ষায় প্রায় ২৫-৩০ হাজার তরুণ-তরুণী। তবে নির্বাচন কর্মকর্তারা বলছেন প্রতিদিনই নতুন ভোটার হচ্ছে। পুরনো নাকি নতুন ভোটার তালিকায় ভোট হবে এ বিষয়টি তারা এখনো নিশ্চিত নন। এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত দেবেন নির্বাচন কমিশন।

বিগত নির্বাচনে রংপুর সিটি করপোরেশনের ভোটার ছিল ৩ লাখ ৮৮ হাজার ৪২১ জন। এর মধ্যে পুরুষ ১ লাখ ৯৬ হাজার ৬৫৯ এবং নারী ১ লাখ ৯১ হাজার ৭৬২ জন। ভোট কেন্দ্র ছিল ১৯৬টি, ভোটকক্ষ ছিল ১ হাজার ১৭৭টি। পুরনো তালিকায় ভোট হলে  উঠতি যুবক-যুবতী অনেকেই ভোটাধিকার থেকে বঞ্চিত হবেন।

ডিপ্লোমা প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী রিদিকা ইসলাম বলেন, আমি এখনো ভোটার হইনি। আশা ছিল এবার ভোট দেব। কিন্তু নতুনভাবে তালিকা প্রণয়ন না হওয়ায় আমি ভোট দিতে পারব না। রবার্টশনগঞ্জ স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী সাকিব আল হাসান বলেন, তার ছবি তুলে নিয়ে গেছে। কিন্তু ভোটার তালিকায় এখন পর্যন্ত নাম উঠেছে কি না বলতে পারছেন না। সাকিবের খুব ইচ্ছে এবারের রসিক নির্বাচনে মনের মতো প্রার্থীকে ভোট দেবেন। তাদের মতো অনেকেই নতুন ভোটার হিসেবে তালিকাভুক্তির অপেক্ষায়  রয়েছেন। যদি নতুন  তালিকায় ভোট না হয় তা হলে কয়েক হাজার তরুণ-তরুণী ভোটার বাদ পড়বেন। এমনটাই মনে করছেন রাজনীতি বিশ্লেষকরা।

এদিকে মাঠপর্যায়ে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি সাফিউর রহমান সফি, সাধারণ সম্পাদক তুষার কান্তি ম ল, আওয়ামী লীগ নেতা রেজাউল ইসলাম মিলন, লতিফুর রহমান মিলন, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা আতাউর জামান বাবু, শ্রমিক লীগ নেতা আবদুল মজিদসহ ৮-১০ জন কয়েক মাস থেকে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন। তারা সবাই দলীয় মনোনয়নপ্রত্যাশী। জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জি এম কাদের অনেক আগেই বর্তমান মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফাকে দলীয় মনোনয়ন দিয়ে রেখেছেন। অপরদিকে রওশনপন্থি  সাবেক পৌর মেয়র আবদুর রউফ মানিকও প্রচারণা চালাচ্ছেন। মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক সামছুজ্জামান সামু, বিএনপির কাওছার জামান বাবলা, যুবদল নেতা নাজমুল ইসলাম নাজু, ইসলামী আন্দোলনের এ টি এম গোলাম রব্বানিসহ ২৫ জনের বেশি প্রার্থী নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রচার চালাচ্ছেন।  এ ছাড়া নগরীর ৩৩টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ১০১৫ জন প্রার্থী নির্বাচনী প্রচার চালাচ্ছেন।

রংপুর আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা জি এম সাহতাব উদ্দিন বলেন, কবে নির্বাচন এবং কোন তালিকায় ভোট হবে এর সবকিছু নির্ভর করছে নির্বাচন কমিশনের ওপর। প্রায় প্রতিদিনই নতুন ভোটার হচ্ছে।

এই রকম আরও টপিক

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর