শিরোনাম
প্রকাশ : ৮ এপ্রিল, ২০২০ ১৫:১১
আপডেট : ৮ এপ্রিল, ২০২০ ১৬:০০

করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু, তড়িঘড়ি করে দাফন

লাকসাম প্রতিনিধি:

করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু, তড়িঘড়ি করে দাফন

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে করোনা উপসর্গ নিয়ে বাবার বাড়িতে চিকিৎসা নিতে এসে হাজেরা বেগম (২৮) নামক এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। পরে তাকে তড়িঘড়ি করে স্বামীর বাড়িতে নিয়ে দাফন করা হয়। আজ বুধবার ভোরে তিনি জ্বর, ডায়রিয়া ও গলা ব্যথা নিয়ে মারা যান। 

জানা যায়, নাঙ্গলকোট পৌরসভার বাতুপাড়া কাঠালিয়াপাড়ার সিরাজ মিয়ার মেয়ে হাজেরা বেগমকে (৩৫) রায়কোট দক্ষিণ ইউনিয়নের মালিপাড়া গ্রামের আবুল কালামের নিকট বিয়ে দেয়া হয়। দাম্পত্য জীবনে তাদের ৪ বছর বয়সী একমাত্র পুত্র সন্তান রয়েছে। হাজেরা বেগম স্বামীর বাড়িতে জ্বর, ডায়রিয়া ও গলা ব্যথায় আক্রান্ত হলে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। অবস্থার অবনতি হলে মঙ্গলবার গভীর রাতে বাবার বাড়িতে চাচাতো ভাই পল্লী চিকিৎসক রাশেদুল ইসলামের কাছে নিয়ে আসা হয়। রাশেদুল চিকিৎসা দেয়ার পূর্বেই আজ বুধবার ভোরে হাজেরা বেগম মৃত্যুবরণ করেন। মারা যাওয়ার পরপরই নমুনা সংগ্রহ ছাড়াই তড়িঘড়ি করে তাকে স্বামীর বাড়ি নিয়ে দাফন করা হয়।

পল্লী চিকিৎসক রাশেদুল ইসলাম জানান, হাজেরা বেগমের অবস্থা অবনতি হলে দ্রুত আমার কাছে নিয়ে আসা হয়। আমি চিকিৎসা শুরুর আগেই তিনি মারা যান।

নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. দেবদাস দেব জানান, এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত আমাদের কাছে কোন তথ্য জানা নেই। কেউ আমাদেরকে অবহিত করেননি। খোঁজ-খবর নেয়ার চেষ্টা করছি।

নাঙ্গলকোট পৌরসভার মেয়র আবদুল মালেক ওই নারী করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

উল্লেখ্য, গতকাল মঙ্গলবার সকালে নাঙ্গলকোটের দৌলখাঁড় গ্রামে করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে মোশারফ হোসেন তালুকদার (৪০) নামক এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। তাকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গাইডলাইন মোতাবেক সর্বোচ্চ সতর্কতার সাথে দাফন করা হয়। তার নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআরে প্রেরণ করা হয়েছে। আজ রিপোর্ট পাওয়ার কথা রয়েছে।

এদিকে, নাঙ্গলকোটে একদিনের ব্যবধানে করোনা উপসর্গ নিয়ে দুইজনের মৃত্যুতে স্থানীয়রা আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে।


বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য