সোমবার, ১৬ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ টা

নিখোঁজের ছয়দিন পর লাশ ভেসে উঠল সুরমায়

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

নিখোঁজের ছয়দিন পর লাশ ভেসে উঠল সুরমায়

নিখোঁজের ছয়দিন পর গত শনিবার দুপুরে সরাইলের আরিফ (১৮) এর লাশ ভেসে উঠল সুনামগঞ্জের ছাতকের সুরমা নদীতে। গতকাল সকালে ময়নাতদন্তের জন্য আরিফের লাশ সুনামগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছেন বলে জানান ছাতক থানার উপপরিদর্শক এসআই দীপংকর বিশ্বাস। আরিফ গত সোমবার বিকালে ছাতকের একটি সিমেন্ট কোম্পানির নৌ-ঘাট  থেকে করিম নেওয়াজ স্টিল বডি নৌকা থেকে নিখোঁজ হয়। আরিফের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার অরুয়াইল ইউনিয়নের রাণীদিয়া গ্রামে। সে ওই গ্রামের পল্লী চিকিৎসক মৃত জয়নাল আবেদিনের  ছেলে। আরিফের বড় ভাই জিয়া উদ্দিন জানান, আরিফ করিম নেওয়াজ স্টিলবডি নৌকায় ৭ হাজার টাকা মাসিক বেতনে নৌ-শ্রমিক হিসেবে কাজ করতেন। নৌকাটি মালামাল আনলোডের জন্য সুনামগঞ্জ জেলার ছাতক সুরমা নদীর লাফার্জঘাটে  নোঙ্গর করা ছিল। গত সোমবার বিকাল থেকে আরিফকে পাওয়া যাচ্ছে না বলে নৌকা থেকে বাড়িতে  ফোন আসে। ওইদিনই আরিফের খোঁজে জিয়াসহ কয়েকজন ছাতক  যান। পরদিন ছাতক থানায় জিডি করেন। ছয়দিন যাবত বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করেও আরিফের কোনো সন্ধান পাননি তারা। গত শনিবার দুপুরে ছাতকের বাইশা বাজার এলাকার সুরমা নদীতে লাশ ভাসতে দেখে স্থানীয় লোকজন ছাতক থানার পুলিশকে খবর দেন। পুলিশ জিয়াকে নিয়ে আরিফের লাশ চিহ্নিত করেন। ছাতক থানার এসআই দীপংকর বিশ্বাস বলেন, শনিবার দুপুরে বাইশা বাজার এলাকার সুরমা নদী থেকে আরিফের লাশ উদ্ধার করা হয়। এ বিষয়ে কোনো মামলা হয়নি।  করিম নেওয়াজ স্টিলবডি নৌকার মালিক বিল্লাল  হোসেন বলেন, আরিফ আমাদের নৌকায় থাকতো। গত সোমবার বিকাল থেকে তাকে খোঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। তাকে খোঁজে না পেয়ে ছাতক থানায় জিডি করি। শনিবার লাশ পাওয়া গেছে শুনে ছাতকে আসলাম। সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আসলাম  হোসেন বলেন, আমি আরিফের লাশ উদ্ধারের বিষয়টি জেনেছি। তবে এখনো কোনো অভিযোগ দেয়নি।

সর্বশেষ খবর