Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৭:৫৭

সয়দবাদ-বেলকুচি সড়কে তোরণ যেন মৃত্যুফাঁদ

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি:

সয়দবাদ-বেলকুচি সড়কে তোরণ যেন মৃত্যুফাঁদ

সিরাজগঞ্জের সয়দবাদ-বেলকুচি ব্যস্ততম সড়কে লোহার মোটা পাত দিয়ে নির্মাণ করা স্থায়ী তোরণ দুর্ঘটনার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। তোরণগুলো মৃত্যুর ফাঁদ হয়ে দেখা দিয়েছে। প্রতিদিন তোরণের সাথে ধাক্কা লেগে হতাহতের ঘটনা ঘটছে। 

রাস্তার কংক্রিট ঘেষে স্থায়ী তোরণ নির্মাণ করার নিয়ম না থাকলেও প্রভাবশালী সংসদ সদস্য আব্দুল মমিন মন্ডল ব্যস্ততম সড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে তার ছবি সম্বলিত ১০টি তোরণ নির্মাণ করেছেন। 

সরকার সড়ক দুর্ঘটনা রোধে নানা প্রতিরোধের ব্যবস্থা গ্রহণে তৎপর থাকলেও সরকারের প্রতিনিধি তার ছবি দিয়ে জনগণকে শুভেচ্ছা দেয়ার নামে মৃত্যুর ফাঁদ তৈরি করায় স্থানীয়দের মধ্যে চরম অসন্তোষ বিরাজ করছে। আর সওজ বিভাগ বলছে, তোরণগুলোর জন্য দুর্ঘটনা ঘটায় তা অপসারণ করার জন্য সংসদ সদস্যকে বারবার অনুরোধ করলেও তিনি মানছেন না।
 
সরেজমিনে জানা যায়, তাঁতশিল্প সমৃদ্ধ বেলকুচি উপজেলার সাথে সিরাজগঞ্জ তথা দেশের অন্যান্য জেলার যোগাযোগের একমাত্র রাস্তা বেলকুচি-সিরাজগঞ্জ সয়দাবাদ সড়ক। সড়কটির দুই লেন থাকলেও একলেন অকেজো রয়েছে। ফলে অন্য লেন দিয়েই প্রতিদিন হাজার হাজার যানবাহন চলাচল করে। 

সড়কটির বেলকুচির প্রবেশমুখ থেকে এনায়েতপুর পর্যন্ত প্রায় ১০ কিলোমিটার অংশে স্থানীয় সংসদ সদস্য আব্দুল মজিদ মন্ডল লোহার মোটা পাত দিয়ে রাস্তার শেষ কংক্রিট ঘেষে ১০টি স্থায়ী তোরণ নির্মাণ করে তার ছবি টাঙ্গিয়ে রেখেছেন। প্রায় এক বছর আগে নিয়ম না মেনে রাস্তা ঘেষে তোরণ নির্মাণ করায় প্রায় ছোট-বড় যানবাহন তোরণের সাথে ধাক্কা লেগে দুর্ঘটনার কবলে পড়ছে। রিক্সা ভ্যান রাস্তা ঘেষে যাবার সময় তোরণের সাথে ধাক্কা লেগে যাত্রীর মাথা ফেটে যাচ্ছে। তোরণগুলো যেন মৃত্যুর ফাঁদ হয়ে দাঁড়িয়েছে।  প্রতিদিনই দুর্ঘটনা ঘটলেও এমপির ভয়ে কেউ মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছে না। 

স্থানীয় চায়ের দোকান আকরাম হোসেন ও ভ্যান চালক মফিজুল ইসলামসহ অনেকে জানান, রাতে অন্ধকারে রিক্সা ভ্যান যাবার সময় কোন কারণে সামান্য সাইড হলে তোরণের সাথে ধাক্কা লেগে দুর্ঘটনায় পড়তে হচ্ছে। তোরণের সাথে স্বজোরে ধাক্কা লেগে অনেক মানুষের মাথা ফেটে গেছে। এমপির তোরণগুলো মৃত্যুর ফাঁদ হয়ে দাঁড়ালেও তার ভয়ে কেউ মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছে না। 

এ বিষয়ে সংসদ সদস্য আব্দুল মমিন মন্ডলের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। তবে সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী আশরাফুল ইসলাম প্রামানিক জানান, দুর্ঘটনার কারণে তোরণগুলো অপসারণ বা দূরে সরানোর জন্য সংসদ সদস্য আব্দুল মমিন মন্ডলকে অনুরোধ করা হয়েছে। কিন্তু তিনি সেগুলো অপসরণ করছেন না। পুনরায় আবারো তাকে অনুরোধ করা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন। 


বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য