শিরোনাম
প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১৯:৪৭

পুলিশের সহায়তায় চোরাই গাছ ‘স’ মিলে চেরাই করার অভিযোগ

ঝালকাঠি প্রতিনিধি

পুলিশের সহায়তায় চোরাই গাছ ‘স’ মিলে চেরাই করার অভিযোগ

ঝালকাঠির রাজাপুরে চুরি করা অর্ধলাখ টাকার সরকারি শিশু গাছ পুলিশের সহায়তায় ‘স’ মিলে চেরাই করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

সোমবার রাতে উপজেলার মঠবাড়ি ইউনিয়নের বাদুরতলা বাজারে মনিরউজ্জামান মল্লিক এর ‘স’ মিলে এ ঘটনা ঘটে। 

মিল মালিক মনিরউজ্জামান মল্লিক ও স্থানীয়রা জানায়, পোনাবালিয়া চেয়ারম্যানের পাঠানো বিপুল পরিমাণ চোরাই গাছ ‘স’ মিলে চেরাই করা হচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে স্থানীয় মঠবাড়ি ওয়ার্ডের চকিদার রফিক তার সত্যতা পায়। মিল মালিক সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল সিকদারকে বিষয়টি অবহিত করেন। পরে চেয়ারম্যান মিল মালিককে গাছ যেমন রয়েছে, ঠিক তেমন রেখে মিল বন্ধ করার পরামর্শ দেন। 

খবর পেয়ে রাজাপুর থানা পুলিশের এসআই খোকন ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে যায়। এরপর বিষয়টি রফাদফা করে পুনরায় ‘স’ মিল চালু করে ওই চোরাইকৃত শিশু গাছগুলো চেরাই করার নির্দেশ দেয়। 

মিল মালিক পুলিশের হুকুম পালন করতে গিয়ে ‘স’ মিল চালু করে গাছ চেরাই করতে থাকে। খবর পেয়ে স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীরা উপজেলা প্রশাসনকে জানায় এবং ঘটনাস্থলে গিয়ে এর সত্যতা পায়। পরে থানা পুলিশের এসআই খোকন নিজের দোষ ঢাকতে আবার ঘটনাস্থলে যায় এবং চেরাইকৃত গাছগুলো ট্রলারে নিয়ে পালিয়ে যেতে সহায়তা করে। তবে ৭ টুকরো কাঠ এখনও মিলে রয়েছে। 

গাছ মিলে নিয়ে আসা রিপন হাওলাদার জানান, চেয়ারম্যান আবুল বাসার খান আবু আমাদের ট্রলারে করে ৬টি মূল গাছ ৩৩ টুকরো করে মিলে চেরাই করতে পাঠিয়েছে। 

এ ব্যাপারে পোনাবালিয়া চেয়ারম্যান আবুল বাসার খান জানায়, ওই গাছগুলো আমার নিজের বাগানের। আমি আমার লোকজন দিয়ে ‘স’ মিলে চেরাই করতে পাঠিয়েছি। স্থানীয় মিল মালিকদের দ্বন্দ্বের কারণে এ ঝামেলার সৃষ্টি হয়েছে। 

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত এসআই খোকন জানায়, 'খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে গাছ কাটা অবস্থায় এক টুকরো ও পুরো ৭ টুকরো গাছ পেয়ে জব্দ করে ইউএনও স্যারকে অবহিত করি। ওই গাছগুলো পোনাবালিয়া চেয়ারম্যান আবুল বাসার খান তার লোকজন দিয়ে পাঠেয়েছি।'

বিডি প্রতিদিন/আরাফাত


আপনার মন্তব্য