শিরোনাম
প্রকাশ : ১ এপ্রিল, ২০২০ ২০:৫৩

বগুড়ায় করোনা সন্দেহে ৪ জনের নমুনা রাজশাহীতে পাঠানো হলো

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া

বগুড়ায় করোনা সন্দেহে ৪ জনের নমুনা রাজশাহীতে পাঠানো হলো

আইসোলেশন ইউনিট হিসেবে গড়ে তোলা বগুড়ার মোহাম্মদ আলী বিশেষায়িত হাসপাতালে ভর্তি হওয়া তিনজনের সাথে আরো একজনসহ মোট চারজনের নমুনা সংগ্রহ করে রাজশাহীতে ল্যাবরেটরিতে পাঠানো হলো।

বুধবার সকালে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। পরীক্ষার ফলাফল পাওয়া যাবে বৃহস্পতিবার। বর্তমানে এই হাসপাতালে একজন শিশুসহ ৫ জন সর্দি, কাশি, শ^াসকষ্টের রোগী ভর্তি রয়েছে। যদিও বগুড়ার চিকিৎসকরা বলছেন তারা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নয়। তবে সঠিক চিকিৎসা প্রদানে তাদের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হচ্ছে। 

আইসোলেশন ইউনিট বগুড়ার মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার দুপুরের পর বগুড়া শহরের নাটাইপাড়া এলাকার এক নারী শ্বাসকষ্টের সাথে সর্দি, কাশি নিয়ে ভর্তি হয়। একই দিনে জেলার গাবতলী উপজেলার মহিষাবান গ্রামের ১৩ বছরের এক শিশুকেই ভর্তি করা হয়।

চিকিৎসকরা বলছেন, প্রাথমিকভাবে মনে হয়েছে শিশুটির নিউমেনিয়া রয়েছে। তারপরও বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকগণ শিশুটির চিকিৎসা চালিয়ে যাচ্ছেন। তার নমুনা সংগ্রহ করে বৃহস্পতিবার ২ এপ্রিল রাজশাহী মেডিকেলে প্রেরণ করা হবে। এর আগে গত ২৯ মার্চ দুপুরে দুইজন ভর্তি হন এই আইসোলেশন ইউনিটে। তাদের একজন কুমিল্লা থেকে বগুড়ার কাহালু উপজেলায় এসে শ্বাসকষ্ট জনিত কারণে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাকে স্থানীয়রা এই ইউনিটে নিয়ে এসে ভর্তি করিয়ে দেয়। চিকিৎসা পেয়ে সে এখন পর্যন্ত সুস্থ রয়েছে। একই দিনে বগুড়ার ধুনট উপজেলার এক ব্যক্তি সর্দি, জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে ভর্তি হন। তিনিও চিকিৎসায় বেশ সেরে উঠেছেন।

সর্বশেষ পুলিশ সদস্যরা ৩০ মার্চ বগুড়ার মোকামতলা থেকে এক শ্রমজীবীকে উদ্ধার করে প্রথমে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে তার হৃদরোগের সমস্যার সাথে জ্বর এবং শ্বাসকষ্ট থাকায় তাকে আইসোলেশন ভর্তি করানো হয়। ওই ব্যক্তি শনিবার রাতে ঢাকা থেকে রংপুর যাওয়ার পথে অসুস্থ হয়ে পড়েন।

বগুড়া মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক (আরএমও) ডা. শফিক আমিন কাজল জানান, হাসপাতালে এখন ৫ জন রোগী আছে। এদের মধ্যে একজন নারী, একজন শিশু ও বাকি তিনজন পুরুষ। এরা সকলেই ভিন্ন ভিন্ন স্থান বা এলাকা থেকে এসেছে। তাদের চিকিৎসা চলছে। শিশুবাদে বাকি চারজনের শারীরিক দিক বেশ উন্নতি হয়েছে। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা মনে করছেন তারা করোনাভাইরাসে সংক্রমিত নন। তারপরও চারজনের নমুনা সংগ্রহ করে রাজশাহী মেডিকেলে স্থাপিত নতুন ল্যাবরেটরিতে পাঠানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার রিপোর্ট হাতে পেলে তাদের রোগের বিষয়ে বলা যাবে। 

বিডি প্রতিদিন/আল আমীন


আপনার মন্তব্য