শিরোনাম
প্রকাশ : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ২০:৫৩
আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ২০:৫৬

সংরক্ষণের অভাবে ধ্বংসের পথে ৪০০ বছরের পুরনো মসজিদ

আবদুর রহমান টুলু, বগুড়া

সংরক্ষণের অভাবে ধ্বংসের পথে ৪০০ বছরের পুরনো মসজিদ

বগুড়ার সোনাতলায় ৪০০ বছর আগের নির্মিত পাশপাশি দুটি মসজিদ সংস্কারের অভাবে ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। তবে সংস্কার করে এটি রক্ষা করা হলে কালের সাক্ষী হয়ে থাকবে মসজিদ দুটি।

জানা যায়, বগুড়ার সোনাতলা উপজেলা সদর থেকে প্রায় ১৪ কিলোমিটার দক্ষিণে জোড়গাছা ইউনিয়নের নওদাবগা গ্রাম।স্থানীয়দের ধারণা মতে, সেখানে ১৬০০ সালে জমিদার বাড়ির উঠানে নির্মাণ করা হয় দুটি মসজিদ। মসজিদ দুটিতে কারুকাজ করা হয়েছে। মসজিদে অল্প কয়েকজন নামাজ আদায় করতেন।

পাশাপাশি মসজিদ হওয়ার কারণ ছিল, দুই ভাই দুই মসজিদে নামাজ আদায় করতেন। মসজিদের নকশাগুলো জমিদারি আমলের বলে স্থানীয়রা জানান। কালের বিবর্তনে এবং অযত্ন-অবহেলায় দিন দিন নষ্ট হয়ে যাচ্ছে মসজিদ দুটি।

স্থানীয় লোকজন জানান, জমিদার আনোয়ার আকন্দ ও জমিদার জালাল আকন্দ তাদের দরবার শালার পাশেই দুই ভাইয়ের জন্য আলাদা দুইটি মসজিদ প্রতিষ্ঠা করেন। জমিদার শাহ আহসান উল্লাহ বাবু মিয়াদের বসতবাড়িটি প্রায় ১২ একর জায়গা জুড়ে।

তার পুত্র শাহ আমান উল্লাহ টেপা কয়েক দফা জোড়গাছা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তিনি ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন করলেও তার পূর্ব পুরুষদের স্থাপনকৃত ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান দুটি অজ্ঞাত কারণে সংস্কার ও মেরামত করেননি।

বর্তমানে ওই দুটি প্রতিষ্ঠান সংলগ্ন একটি জামে মসজিদ প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। প্রায় ৪০০ বছর আগে ওই দুটি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান জমিদার পরিবারের লোকজন প্রতিষ্ঠা করলেও আজও এক নজর দেখার জন্য দেশের বিভিন্ন স্থান দেখে লোকজন সেখানে ভীড় জমায়। 

স্থানীয়রা জানান, প্রতিষ্ঠাতা পরিবারের সদস্যদের মৃত এবং দেশের বাইরে অবস্থান করায় ঐতিহ্যবাহী ধর্মীয় মসজিদ দুটি সংস্কারের অভাবে দিনদিন নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। কালের বিবর্তনে হারিয়ে যাচ্ছে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলোর সৌন্দর্য। 

বগুড়ার সোনাতলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া আফরিন জানান, এ বিষয়ে কেউ তাকে অবগত করেননি। বিষয়টি খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর