শিরোনাম
প্রকাশ : ১১ ডিসেম্বর, ২০২০ ২২:০১
প্রিন্ট করুন printer

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দিনদুপুরে দুর্ধর্ষ ডাকাতি: রহস্য উদঘাটন হয়নি দুই দিনেও

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দিনদুপুরে দুর্ধর্ষ ডাকাতি: রহস্য উদঘাটন হয়নি দুই দিনেও
সংঘবদ্ধ ডাকাত দল দেড় ঘণ্টা ধরে ডাকাতি করে অনায়াসে ফিরে যায়

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এক প্রবাসীর বাড়িতে দিনদুপুরে দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনার দুইদিন পেরিয়ে গেলেও লুণ্ঠিত মালামাল উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। গত বুধবার (৯ ডিসেম্বর) দুপুর আড়াইটা থেকে বিকাল চারটা পর্যন্ত জেলা শহরের কাউতলি স্টেডিয়াম সংলগ্ন এলাকার প্রবাসী রফিকুল ইসলামের বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। ডাকাতরা স্বর্ণালংকার ও নগদ টাকাসহ মূল্যবান জিনিসপত্র লুটে নিয়ে যায়।

সংঘবদ্ধ ডাকাত দলটি কীভাবে দেড় ঘণ্টা ধরে ডাকাতি করে অনায়াসে ফিরে গেল? পুলিশ এখন পর্যন্ত সেই রহস্য উদঘাটন করতে পারেনি। শহরে দিনদপুরে এমন চাঞ্চল্যকর ডাকাতির ঘটনার পর থেকেই স্থানীয়দের মনে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

ডাকাতির ঘটনার পর প্রবাসী রফিকুল ইসলামের স্ত্রী রাবেয়া খানম সাংবাদিকদের জানান, বুধবার দুপুর আড়াইটার দিকে দুইজন লোক গ্যাসের লাইন চেকআপ করবেন বলে বাড়িতে প্রবেশ করেন। কিছুক্ষণ পর ছয়জন বাড়িতে প্রবেশ করে অস্ত্রের মুখে পরিবারে সকলকে জিম্মি করেন। এরপর সবাইকে বেঁধে প্রায় দেড় ঘণ্টা ধরে ডাকাতি করেন। তখন ঘর থেকে ২২ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, নগদ ৫০ হাজার টাকা ও চার লাখ টাকা মূল্যের একটি রোলেক্স ঘড়ি নিয়ে যায় ডাকাতরা।

ডাকাতির ঘটনায় বৃহস্পতিবার অজ্ঞাত আটজনকে আসামি করে সদর মডেল থানায় মামলা করেন প্রবাসী রফিকুল ইসলামের স্ত্রী রাবেয়া খানম। মামলার পর বৃহস্পতিবার দুপুরে শহরের কান্দিপাড়া এলাকা থেকে রিগান (৩০) নামে এক যুবককে আটক করে পুলিশ।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানা পুলিশের পরিদর্শক (অপারেশন্স) ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ইশতিয়াক আহমেদ বলেন, ডাকাতির ঘটনায় জড়িতদের শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে। ইতোমধ্যে একজনকে আটক করা হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রহিম বলেন, ডাকাতির ঘটনায় একজনকে সন্দেহজনকভাবে আটক করা হয়েছে। মালামালগুলো উদ্ধারে আমাদের অভিযান চলছে।

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর