শিরোনাম
প্রকাশ : ২১ জানুয়ারি, ২০২১ ১৬:১৭
প্রিন্ট করুন printer

প্রতিবেশীর আচরণে ক্ষুব্ধ হয়ে গৃহবধূর আত্মহত্যা!

বরগুনা প্রতিনিধিঃ

প্রতিবেশীর আচরণে ক্ষুব্ধ হয়ে গৃহবধূর আত্মহত্যা!

বরগুনায় প্রতিবেশী একটি পরিবারের অকথ্য-অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজসহ শারীরিক নির্যাতনের চেষ্টায় আত্মসম্মানে আঘাতে ক্ষুব্ধ হয়ে মাজেদা (৩৫) নামের এক গৃহবধূ পোকা মারার বিষাক্ত ট্যাবলেট খেয়ে আত্মহত্যা করেছে। 

বরগুনা সদর ইউনিয়নের কলাতলা গ্রামে আজ বেলা ১১ টার দিকে এই ঘটনা ঘটে। স্থানীয় গ্রামবাসী ও মাজেদার স্বজনরা জানান, মাজেদার স্বামী আনোয়ার হোসেন মালয়েশিয়া প্রবাসী। প্রথম স্ত্রী মারার যাবার পরে মাজেদাকে বিয়ে করে কলাতলা গ্রামে বাড়ি করে দেয়। সেখানে মেয়েকে নিয়ে মাজেদা বসবাস করে আসছে। 

গ্রামবাসী জানায়, এখানে বাড়ি করার পর থেকেই প্রতিবেশী লালমিয়া ও তার স্ত্রী-সন্তানের সাথে বিরোধ শুরু হয় মাজেদার। স্বামী বাড়িতে না থাকায় প্রতিবেশীদেরকে জানিয়েও প্রতিকার পায়নি মাজেদা। বুধবার সকালে লাল মিয়ার সাথে গাছের ডাল কাটা নিয়ে বিরোধ হয় মাজেদার। মাজেদা আত্মীয় ও প্রতিবেশীদের জানায়। বুধবার রাতে প্রতিবেশীদের কাছে নালিশ করায় লালমিয়া, তার ছেলে সোহাগ ও তার স্ত্রী মাজেদা ও তার মেয়ে অশালীন ভাষায় গালিগালাজ করে মারতে উদ্যত হয়। প্রতিবেশীদের হস্তক্ষেপে বিরোধ সাময়িক নিষ্পত্তি হয়। আজ সকাল কিছু না খেয়েই মাজেদা বরগুনা শহরে এসে চাউলে ব্যবহৃত পোকা মারার বিষাক্ত ট্যাবলেট খেয়ে বাড়ি যায়। বাড়িতে অসুস্থ হয়ে পড়লে বরগুনা জেনারেল হাসাপাতালে নিয়ে আসার কিছু সময় পরে মাজেদার মৃত্যু হয়।

মাজেদার আত্মীয় আমেনা বেগম বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, কলাতলা বাড়ি করার পর থেকে লালমিয়া ও তার পরিবারের সাথে আমার ননদ মাজেদার বিরোধ শুরু হয়। মাজেদার মেয়ে থাকায় অনেক কথা সহ্য করে। বৃহস্পতিবার সকালে বরগুনা আসার আগে আমার সাথে দেখা করে আসে। লালমিয়া তার ছেলে সোহাগ আর স্ত্রীর অপমানেই আমার ননদ আত্মহত্যা করেছে। এ ব্যাপারে বরগুনা থানায় অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হয়েছে। 

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর