শিরোনাম
প্রকাশ : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ১৯:৫৩
প্রিন্ট করুন printer

রাজশাহীতে চুক্তিভিত্তিক টমেটো চাষ বাড়ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী

রাজশাহীতে চুক্তিভিত্তিক টমেটো চাষ বাড়ছে

রাজশাহীর গোদাগাড়ীকে বলা টমেটোর রাজ্য। দেশের মধ্যে সবচেয়ে বেশি টমেটো উৎপাদন হয় বরেন্দ্রভূমি খ্যাত এই উপজেলায়। প্রায় দুই দশক ধরে গোদাগাড়ী সদর ও পদ্মার চরে টমেটোর চাষ হচ্ছে। এখানে টমেটো চাষে নীরব বিপ্লব ঘটে গেছে।

রাসায়নিক সার ছাড়াই উৎপাদিত টমেটো জেলার চাহিদা মিটিয়ে ছড়িয়ে পড়ছে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন জেলায়। আর তাদের কণ্টকাকীর্ণ পথকে আরও মসৃণ করেছে প্রাণ গ্রুপ। গোদাগাড়ীর টমেটোর রাজ্যে বাণিজ্যিকভাবে টমেটো সস, জ্যাম-জেলিসহ বিভিন্ন ভোগ্যপণ্য উৎপাদন ও প্রক্রিয়াজাতকরণের জন্য ফ্যাক্টরি স্থাপন করেছে প্রাণ। আর প্রাণের এই কারখানার সঙ্গে চুক্তিভিত্তিক টমেটো চাষে সুদিন ফিরেছে বরেন্দ্র অঞ্চলের কৃষকদের।

রাজশাহী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর জানায়, গোদাগাড়ীর টমেটো এখন জাতীয় অর্থনীতিতে অবদান রাখছে। রাজশাহীতে শীত মৌসুমে টমেটো উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ থাকে সাড়ে ৩ হাজার হেক্টর জমিতে। এর মধ্যে কেবল গোদাগাড়ী উপজেলাতেই ২ হাজার ৯৫০ হেক্টর জমিতে টমেটো চাষ হয়। যেখান থেকে ৭০ হাজার ৮০০ মেট্রিক টন টমেটো উৎপাদন হয়। ফলে আমের পর টমেটো এই অঞ্চলে কৃষি বিপ্লব ঘটিয়েছে বলে দাবি করা হচ্ছে।

প্রাণের বরেন্দ্র ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার সৈয়দ মো. সারোয়ার হোসাইন জানান, এ বছর প্রাণের প্রায় ১০ হাজার চুক্তিভিত্তিক কৃষক ৮৬৭ বিঘা জমিতে টমেটো চাষ করেছেন। চলতি বছর টমেটো সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা ১২ হাজার টন।

এর আগে ২০১৯-২০ সালে প্রাণের ৮ হাজার ৪০০ চুক্তিভিত্তিক কৃষক প্রায় ৮০০ বিঘা জমিতে টমেটো চাষ করেছিলেন এবং টমেটো সংগ্রহের পরিমাণ ছিল ৭ হাজার টন। এছাড়া ২০১৮-১৯ সালে ৭৫০ বিঘা জমি থেকে প্রাণের ৭ হাজার ৫০০ হাজার চুক্তিভিত্তিক চাষির কাছ থেকে টমেটো সংগ্রহের পরিমাণ ছিল প্রায় ৬ হাজার টন। ফলে একদিকে প্রতিবছর চুক্তিভিত্তিক টমেটো চাষে যেমন কৃষক আগ্রহ দেখাচ্ছে, তেমনি প্রাণের চাষিরা প্রতিবছর বিঘা প্রতি ফলনও পাচ্ছেন বলে জানান এই কর্মকর্তা।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২২:০১
প্রিন্ট করুন printer

শেরপুর জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি মোখলেছুর, সম্পাদক তারিকুল

শেরপুর প্রতিনিধি

শেরপুর জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি মোখলেছুর, সম্পাদক তারিকুল
সভাপতি মোখলেছুর রহমান আকন্দ (বাঁয়ে) ও সাধারণ সম্পাদক তারিকুল ইসলাম ভাসানী।

শেরপুর জেলা আইনজীবী সমিতির কার্যনির্বাহী পরিষদের নির্বাচনে সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকসহ আওয়ামী লীগ ও সমমনাদের সমর্থিত সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ নিরঙ্কুশভাবে জয়ী হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার সমিতির ২ নম্বর বার ভবনে অনুষ্ঠিত ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্যানেল ১০ পদে ও বিএনপি সমর্থিত প্যানেল ৩ পদে জয়ী হয়েছে।

এতে সমন্বয় পরিষদ সমর্থিত অ্যাডভোকেট মোখলেছুর রহমান আকন্দ ৮৬ ভোট পেয়ে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি ও সমমনাদের সমর্থিত জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য পরিষদের প্রার্থী অ্যাডভোকেট মো. সিরাজুল ইসলাম পেয়েছেন ৭২ ভোট।

আর সাধারণ সম্পাদক পদে ১০৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন সমন্বয় পরিষদের অ্যাডভোকেট তারিকুল ইসলাম ভাসানী। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঐক্য পরিষদের প্রার্থী অ্যাডভোকেট ছামিউল ইসলাম আতাহার পেয়েছেন ৪২ ভোট। এই সমিতির মোট ভোটার ১৫৯ জন।

এছাড়া অন্যান্য পদে জয়ীরা হচ্ছেন সহ-সভাপতি পদে হরিদাস সাহা (আওয়ামী লীগ) ও আশরাফুল আলম লিচু (বিএনপি), সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে মো. রাশেদুর রহমান রাসেল (বিএনপি) ও আমিনুল ইসলাম মমিন (আওয়ামী লীগ), ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে মুক্তারুজ্জামান মোক্তার (বিএনপি), সাহিত্য ও পাঠাগার সম্পাদক পদে মেরাজ উদ্দিন চৌধুরী (আওয়ামী লীগ), অডিটর পদে শিবলু চন্দ্র দাস (আওয়ামী লীগ) এবং নির্বাহী সদস্য পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী নির্বাহী সদস্য রুকনুজ্জামান রুকন (আওয়ামী লীগ), ফকির মো. নাহিদুজ্জামান (আওয়ামী লীগ), মো. আকরামুজ্জামান (আওয়ামী লীগ) ও মো. এরশাদ আলী লিটন (আওয়ামী লীগ)।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার সিনিয়র আইনজীবী নারায়ণ চন্দ্র হোড় জানান, ১৩ সদস্য বিশিষ্ট এ নির্বাহী পরিষদের চারজন সদস্য বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়ায় ৯টি পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সকাল ১০টা থেকে শুরু হয়ে  বিকেল ৩টা পর্যন্ত একটানা ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এবার সমিতির ১৫৯ জন ভোটারের মধ্যে সবাই তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন।

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২১:৫৯
প্রিন্ট করুন printer

ছাত্রদলের কমিটিতে আওয়ামী লীগ নেত্রীর বিবাহিত ছেলে!

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

ছাত্রদলের কমিটিতে আওয়ামী লীগ নেত্রীর বিবাহিত ছেলে!
এম. রিফাত বিন জিয়া

২১ সদস্যের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলা ছাত্রদলের কমিটির অনুমোদন দিয়েছেন জেলা ছাত্রদল। এতে আওয়ামী লীগ নেত্রী বেবী ইয়াছমিনের বিবাহিত ছেলে ও পুলিশ অ্যাসল্ট মামলার পলাতক আসামি এম. রিফাত বিন জিয়াকে করা হয়েছে আহ্বায়ক। তার বিরুদ্ধে রয়েছে একাধিক বিয়ের অভিযোগ। আর সদস্য সচিব করা হয়েছে ঢাকার বাসিন্দা ব্যবসায়ী মো. আমান উল্লাহকে। আমানের বিরুদ্ধে রয়েছে অছাত্রত্বের অভিযোগ। 

গত ২৪ জানুয়ারি বুধাবার এ কমিটি ঘোষণা করা হয়। ওইদিন রাতেই অবৈধ ও পকেট কমিটির বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে মিছিল বের করে রিগানের নেতৃত্বে ছাত্রদলের একটি গ্রুপ। রাত ১০টার দিকে মিছিল শেষে পথ সভা চলাকালে ওই কমিটিরই যুগ্ম আহ্বায়ক-২ মোস্তাকিমুর রহমান ও সরাইল সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি মোস্তাক আহমেদ খন্দকার রিগানকে গ্রেফতার করে পুলিশ। 

দলীয় একাধিক সূত্র জানায়, এক বছর আগে সরাইল উপজেলা ছাত্রদলের কমিটি ভেঙ্গে দিয়েছে জেলা ছাত্রদল। গত এক বছরে কোন সভা ও সম্মেলন নেই। হঠাৎ করেই জেলা ছাত্রদল কর্তৃক অনুমোদিত দলীয় প্যাডে ২১ সদস্য বিশিষ্ট সরাইল উপজেলা ছাত্রদলের একটি কমিটি ঘোষণা করা হয়। প্রতিবাদে রাজপথে নেমে পড়ে রিগানের নেতৃত্বে ছাত্রদলে একাংশের নেতা কর্মীরা। সকাল বাজার থেকে মিছিল করে হাসপাতাল মোড় হয়ে কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে পথসভা করে। পথ সভায় তারা রিফাত ও আমানকে অছাত্র উল্লেখ করে এ কমিটিকে প্রত্যাখ্যান করে। সেই সাথে বক্তারা বলেন, রিফাতের মা বেবী ইয়াছমিন সরাইল উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান আহ্বায়ক কমিটির ৩০ নম্বর সদস্য। রিফাত নিজ গ্রামে ও নবীনগরে ২টি বিয়ে করেছেন। এছাড়া আহ্বায়ক ও সদস্য সচিব দু’জনেরই ছাত্রত্ব নেই। রাত ১০টার দিকে ওই সভা থেকে পুলিশ রিগান মোস্তাকিনকে গ্রেফতার করেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তারা জামিনে বেরিয়ে আসেন। 

সরাইল উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি মো. ইসমাইল হোসেন উজ্জ্বল বলেন, গঠনতন্ত্র অনুযায়ী বিবাহিত অছাত্র ছাত্রদলের কমিটিতে আসতে পারে না। রিফাত একাধিক মামলার পলাতক আসামি। কমিটি গঠনে মোটা অংকের টাকা লেনদেন হয়েছে। 

জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ফুজায়েল চৌধুরী বলেন, ছাত্রদলের গঠনতন্ত্রে কোন অছাত্র ও বিবাহিতের স্থান কমিটিতে নেই। সরাইলের কমিটিটি কেন্দ্রের নির্দেশে করা হয়েছে। আমরা এর বেশী কিছু জানি না। তবে এখন ফেসবুকে রিফাতের বিয়ের ছবি দেখা যাচ্ছে। আমাদের কাছে সুনির্দিষ্ট কোন প্রমাণও নেই।

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন

 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২১:৪৭
প্রিন্ট করুন printer

বিনামূল্যে করোনার টিকা নিবন্ধন করে দিচ্ছে ‘স্লোগান’

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

বিনামূল্যে করোনার টিকা নিবন্ধন করে দিচ্ছে ‘স্লোগান’

প্রযুক্তির বাইরে থাকা সাধারণ মানুষকে ভ্যাকসিন সেবার আওতায় আনতে বিনামূল্যে অনলাইনে নিবন্ধন করে দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে ‘স্লোগান’ নামে এক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন।

নারায়ণগঞ্জ শহরের প্রাণকেন্দ্র চাষাঢ়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গত এক সপ্তাহ ধরেই সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা অবধি বিনামূল্যে এই কাজটি করে যাচ্ছে সংগঠনটি।

সংগঠনের মুখপাত্র নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শেখ সাফায়েত আলম সানি বলেন, আমাদের শ্লোগান হচ্ছে ‘সোনার বাংলা গড়তে হলে সোনার মানুষ হই’। সেই সোনার মানুষ হওয়ার প্রত্যয় নিয়ে নতুন প্রজন্মের মধ্যে নৈতিকতা ও মানবিক গুণাবলীর বিকাশের মাধ্যমে সামাজিক দায়িত্ববোধ জাগিয়ে তুলতে এবং তাদের মধ্যে মননশীলতার বিকাশ ঘটাতে কাজ করে যাচ্ছে ‘স্লোগান’।

কর্মসূচিতে ‘স্লোগান’ সংগঠনের সদস্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আতাউর রহমান নান্নু, ফাহিম ভুইয়া এমিল, ইশতিয়াক আল কাফি নিশান, শেখ রফিকুল ইসলাম রায়হান, সাজ্জাদুল করীম চৌধুরী, আহমেদ হৃদয় ও রায়হান প্রিন্স প্রমুখ।

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২১:৩৯
প্রিন্ট করুন printer

এমপির বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশের প্রতিবাদে হালুয়াঘাটে আওয়ামী লীগের মানববন্ধন

হালুয়াঘাট (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি

এমপির বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশের প্রতিবাদে হালুয়াঘাটে আওয়ামী লীগের মানববন্ধন

কেন্দ্রীয় যুবলীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ময়মনসিংহ-১ (হালুয়াঘাট-ধোবাউড়া) আসনের এমপি জুয়েল আরেংকে ঘিরে সংবাদ প্রকাশের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করেছে উপজেলা আওয়ামী লীগ, কড়ইতলী কোল এন্ড ইমপোর্টার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন, গোবরাকুড়া আমদানি ও  রপ্তানিকারক গ্রুপসহ  আরো কয়েকটি সংগঠন।

বৃহস্পতিবার উপজেলা পরিষদের সামনে দিনব্যাপী প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করা হয় । এ সময় হালুয়াঘাটের বিভিন্ন সড়ক ঘণ্টারও বেশি সময় যান চলাচল বন্ধ থাকে। এতে দুর্ভোগে পড়েন আটকে থাকায় কয়েক হাজার মানুষ।
এর আগে দুপুরে উপজেলা শহরের হোটেল ইমেক্স ইন্টারন্যাশালে কড়ইতলী ও গোবরাকুড়া স্থলবন্দরের পক্ষ থেকে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ ও ব্যাখ্যা প্রদান করা হয়।  

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন কড়ইতলী কোল এন্ড কোক ইম্পোর্টার্স এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এম সুরুজ মিয়া। তিনি দাবি করেন, প্রকাশিত পুরো সংবাদজুড়ে সূত্রের বরাতে তথ্য উপস্থাপন করা হয়নি। প্রতিবেদকের মনগড়া ও কল্পনা প্রসূত তথ্য উপস্থাপন করা হয়েছে। যা মিথ্যা ও বানোয়াট। 

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোরশেদ আনোয়ার খোকন, সিএন্ডএফ এজেন্ট এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আক্তার হোসেন, মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি রজব আলী, কয়লা আমদানি ও রপ্তানিকারক নেতা মি. স্ট্যানশন রংদি, শামছুল আলম মিন্টু  প্রমুখ। গত ২৩ ফেব্রুয়ারি একটি জাতীয় দৈনিকে জুয়েল আরেং এর বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশিত হয়।

বিডি প্রতিদিন/আল আমীন


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২১:৩৪
আপডেট : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২১:৩৯
প্রিন্ট করুন printer

পণ্য পরিবহনের আড়ালে ইয়াবা পাচার করে আসছিল তারা

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

পণ্য পরিবহনের আড়ালে ইয়াবা পাচার করে আসছিল তারা

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে একটি ট্রাক তল্লাশি করে ৭ হাজার ৭৩০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করেছে র‌্যাব-১১। এসময় তিনজন মাদক পাচারকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সোনারগাঁওয়ের আষাঢ়িয়ারচর এলাকায় বিসমিল্লাহ ফিলিং স্টেশনের সামনে থেকে ইয়াবাসহ তাদের গ্রেফতার করা হয়। এসময় মাদক ব্যবসার কাজে ব্যবহৃত ট্রাকটিও জব্দ করা হয়।

গ্রেফতার ব্যক্তিরা হলেন-আমির হামজা ওরফে মেহেদী হাসান (২৪), মো. হৃদয় শেখ (২৬) ও তুহিন হোসেন (২৪)। গ্রেফতার আমির হামজার বাড়ি পাবনা জেলার সদর থানাধীন কবিরপুর এলাকায়। মো. হৃদয় শেখের বাড়ি একই থানার গজমতিকুন্টা এলাকায়। আর তুহিন হোসেনের বাড়ি মহেন্দ্রপুর এলাকায়।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে র‌্যাব-১১ জানায়, গ্রেফতার আসামিরা দীর্ঘদিন ধরে পরস্পর যোগসাজশে ট্রাকে বিভিন্ন পণ্য পরিবহনের আড়ালে ইয়াবা পাচার করে আসছিল। এরই ধারাবাহিকতায় তারা বুধবার সন্ধ্যায় লবণবোঝাই ট্রাকযোগে ইয়াবার চালান নিয়ে কক্সবাজার হতে পাবনার উদ্দেশে রওনা দেয়।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে  র‌্যাব-১১ সিপিএসসি নারায়ণগঞ্জের একটি আভিযানিক দল আষাঢ়িয়ারচর এলাকায় বৃহস্পতিবার সকাল ৯ টা ৪০ মিনিটের দিকে তাদের আটক করতে সক্ষম হয়। পরে তাদের দেওয়া তথ্যে ট্রাক থেকে ৭ হাজার ৭৩০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। দীর্ঘদিন ধরে তারা এভাবে অভিনব কৌশলে ইয়াবা পাচার করে আসছে। মূলত ট্রাক চালানো তাদের একটি ছদ্মবেশ মাত্র। আসামিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানানো হয় বিজ্ঞপ্তিতে।

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর