শিরোনাম
প্রকাশ : ১৪ এপ্রিল, ২০২১ ১৪:২৬
প্রিন্ট করুন printer

বাগেরহাটে দিনদুপুরে দুইটি দোকানে লুট

বাগেরহাট প্রতিনিধি

বাগেরহাটে দিনদুপুরে দুইটি দোকানে লুট
Google News

বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলা সদর রায়েন্দা বাজারে প্রকাশ্য দিবালোকে হৃদয় গার্মেন্টস এন্ড কসমেটিকস এবং মুক্তা ডেন্টাল ক্লিনিক নামের দুইটি দোকানে হামলা ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। হামলাকারীরা এসময় বিদ্যুৎ ও সিসি ক্যামেরার সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দোকানের মূল্যবান মালামালসহ নগদ টাকা লুট করে নিয়ে যায়।

সকাল পৌনে ১০টার দিকে পাঁচ রাস্তার মোড়ের বাবুল সুপার মার্কেটে এ ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে দুই ব্যবসায়ীর পক্ষ থেকে ওই দিন রাতে শরণখোলা থানায় একটি এজাহার দাখিল করা হয়েছে।

লিখিত এজাহার, ভুক্তভোগী দোকান মালিক বিলাস রায় ও আবু সালেহ জানান, প্রায় তিন বছর ধরে ওই মার্কেটে দোকান ভাড়া নিয়ে তারা ব্যবসা পরিচালনা করে আসছেন। ভাড়া নেয়ার দুই বছর পরে মার্কেটের মালিক জাহাঙ্গীর কবির বাবুল মারা যান। এরপর বাবুলের দুই মেয়ে হেবা দলিলের বণ্টন অনুযায়ী দোকান ভাড়া দিয়ে থাকেন। 

সে অনুযায়ী তারা জাহাঙ্গীর কবির বাবুলের ছোট মেয়ে সাদিয়া সুলতানা বিথীর (২৩) কাছ থেকে তার অংশের দোকান ভাড়া চুক্তি করে ব্যবসা চালিয়ে আসছেন। কিন্তু কিছু দিন ধরে জাহাঙ্গীর কবির বাবুলের বড় মেয়ে তানিয়া আক্তার সাথী (৩৯) ওই দোকান নিজের দাবী করে তাদের দোকান ছেড়ে দিতে বলেন। দোকান না ছাড়ায় সকালে সাথীর নেতৃত্বে রাজিব হাওলাদার (৩৬), মাসুম খান (৫০), রেজাউল মৃধা (২২), রায়হান জোমাদ্দার (২৫), কবির তালুকদার (৫২) সহ ১০/১২ জন সন্ত্রাসী তাদের দোকানে হামলা চালায়।

এসময় তারা দোকানের বিদ্যুৎ ও সিসি ক্যামেরার সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়। এরপর তারা লাঠিসোটা ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে দোকানের কর্মচারীদের মারধর ও বের করে দিয়ে মূল্যবান মালামালসহ হৃদয় গার্মেন্টসের ক্যাশবাক্স ভেঙ্গে নগদ ছয় লাখ পঞ্চাশ হাজার এবং মুক্তা ডেন্টালের ৯৬ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায় বলে তারা অভিযোগ করেন। 

ঘটনাটি তাৎক্ষণিকভাবে তারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরদার মোস্তফা শাহিনকে জানালে সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান অসাদুজ্জামান মিলন ও বাজার পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেনসহ পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ ঘটনায় হৃদয় গার্মেন্টস এন্ড কসমেটিকসের মালিক ব্যবসায়ী বিলাস রায় শরণখোলা থানায় একটি লিখিত এজাহার দাখিল করেছেন। 

শরণখোলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাইদুর রহমান জানান, ঘটনাটি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, ইউপি চেয়ারম্যান ও বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদকের মধ্যস্থতায় দোকান খুলে দেয়া হয়েছে। এছাড়া এব্যাপারে একটি লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর

এই বিভাগের আরও খবর