১০ আগস্ট, ২০২১ ১৭:৪৪

ঘুমের ওষুধ মেশানো কোমল পানীয় পানে একই পরিবারের অসুস্থ ৫

মেহেরপুর প্রতিনিধি

ঘুমের ওষুধ মেশানো কোমল পানীয় পানে একই পরিবারের অসুস্থ ৫

অসুস্থ শিশু মিম চিকিৎসাধীন।

মেহেরপুর সদর উপজেলায় ঘুমের ওষুধ মেশানো কোমল পানীয় পানে শিশুসহ একই পরিবারের পাঁচজন গুরুতর অসুস্থ হয়েছে। সোমবার দুপুরের দিকে উপজেলার ফতেপুর গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

অসুস্থরা হলেন-ফতেপুর গ্রামের মেহেরুল্লাহ, চাঁদ মালা, আজিজুল, সাইফুল ও মিম। তাদের মেহেরপুর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, অসুস্থদের মধ্যে শিশু মিমের (৫) অবস্থা আশঙ্কাজনক। তার জ্ঞান আদৌ ফিরবে কিনা ২৪ ঘণ্টা পার না হলে বলা সম্ভাব নয়।

মিমের মা শারনুর জানান, আগের দিন রাতে ফতেপুর গ্রামের সিরাজুলের ছেলে শরিফুল ইসলাম আমার স্বামী মেহেরুল্লার হাতে ৫০০ মিলির ২টা কোমল পানীয় দিয়ে আমাদের খাওয়ানোর জন্য বলে। রাতে আমরা  না খেয়ে আজ দুপুরে আমার স্বামী, কন্যা মিম, শ্বশুর-শাশুড়ি ও বোন চাঁদমালা ওই কোমল পানীয় খাই। এর কিছুক্ষণ পরে তারা অচেতন হয়ে অসুস্থ হয়। তাদের মেহেরপুর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, সোমবার বিকালে শরিফুল ইসলাম তার চাচা মিলন মেম্বারকে সাথে নিয়ে আমার বাবা মেহেরুল্লার কাছে আসে। এসময় শরিফুল বলেন ভুল হয়েছে। আমি পানীয়র সাথে ১০টা করে ঘুমের বড়ি মিশিয়ে ছিলাম। যা হবার হয়েছে আমাকে মাফ করেন। আমরা বিষয়টি নিয়ে আইন গত ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলে তাদের ফিরিয়ে দেই। পরে রাত ১০টার দিকে থানায় গিয়ে অভিযোগ দায়ের করেছি।

অভিযুক্ত শরিফুল ইসলাম বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, বিষয়টি না বুঝে করে ফেলেছি। বিষয়টি গ্রাম্য সালিশের মাধ্যমে মীমাংসার প্রক্রিয়া চলছে।

বুড়িপোতা ইউনিয়ন পরিষদের ১ নম্বর ওয়ার্ড ফতেপুর গ্রামের মেম্বার মিলন আহম্মেদ বলেন, এসকল খোঁজ রাখা আমার দায়িত্ব না। এসব বিষয় নিয়ে ফোন দেবেন না।

মেহেরপুর সদর থানার ডিউটি অফিসার অর্জুন কুমার দাস বলেন, অভিযোগ লিপিবদ্ধ চলছে। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিডি প্রতিদিন/এমআই

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর