৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ১৭:৩৫

কর্মী সংকটে স্থগিত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন

জামালপুর প্রতিনিধি

কর্মী সংকটে স্থগিত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন

হতাশাজনক কর্মী উপস্থিতির কারণে বন্ধ হয়ে গেছে জামালপুর সদর উপজেলার ঘোড়াধাপ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন। মঞ্চের সামনে কর্মী-সমর্থকদের হতাশাজনক উপস্থিতি থাকায় আয়োজকরা বার বার মাইকে ডেকেও উপস্থিতি নিশ্চিত করতে না পারায় ক্ষুব্ধ জেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা সম্মেলন স্থগিত করে দেন। সেই সাথে ঘোড়াধাপ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কমিটিও বিলুপ্ত ঘোষণা করেন। 

জানা যায়, গতকাল বুধবার বেলা ১১টার দিকে জামালপুর সদর উপজেলার ঘোড়াধাপ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন যথাসময়ে শুরু হলেও মঞ্চের সামনে কর্মী-সমর্থকদের উপস্থিতি ছিল খুবই নগণ্য। কিছুক্ষণ পর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহাম্মেদ চৌধুরীসহ জেলা ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা মঞ্চে উঠেন, তখনও কর্মী ও সমর্থকদের উপস্থিতি তেমন ছিল না। প্যান্ডেলের নিচে সারিবদ্ধ চেয়ার বসানো থাকলেও তার চার ভাগের তিন ভাগই ছিল একদম খালি। এমন পরিস্থিতিতে ক্ষুব্ধ হন মঞ্চ বসে থাকা জেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা।

মঞ্চ থেকে মাইক দিয়ে জামালপুর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট হাফিজুর রহমান স্বপন বার বার কর্মী-সমর্থকদের প্যান্ডেলের নিচে অর্থাৎ সম্মেলনে আসার জন্য আহবান জানালেও কেউ তার কথায় সাড়া দেননি। এক পর্যায়ে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহাম্মেদ চৌধুরী বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ক্ষুব্ধ হয়ে বলেন, নিজেদের মধ্যে অন্তর্দ্বন্দ্ব থাকার কারণেই এই ঘোড়াধাপ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগটি ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে এসে দাঁড়িয়েছে। এই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সম্পাদকের ব্যর্থতার কারণেই আজ এই পরিণতি।

তিনি উপস্থিত কর্মী-সমর্থকদের কাছে প্রশ্ন রেখে বলেন, আপনারাই বলেন এই সভাপতি, সম্পাদকের কী আর নেতৃত্বে থাকা চলে, কি চলে না? পরে তিনি চলমান ঘোড়াধাপ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন স্থগিত ঘোষণা করেন এবং একইসঙ্গে বর্তমান কমিটিও বিলুপ্ত ঘোষণা করেন। পরবর্তীতে সম্মেলনের তারিখ জানিয়ে দেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

সম্মেলনে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ডা. এম এ মান্নান খান উদ্বোধনী বক্তব্যে বলেন, জেলা আওয়ামী লীগের নির্দেশনায় আজ কমিটি ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন স্থগিত ঘোষণা করা হলো। তিনি কর্মী-সমর্থকদের উদ্দেশে সমবেদনা জানিয়ে বলেন, এই ধরনের সম্মেলন কখনও আশা করেনি। আগামীতে ঘোড়াধাপ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগকে শক্তিশালী করতে জেলা আওয়ামী লীগের নির্দেশনায় পরবর্তীতে তারিখ ঘোষণা করা হবে। ওই সম্মেলনে তিনি সবার উপস্থিতি কামনা করেন।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, বুধবার সকালে ঘোড়াধাপ ইউনিয়নের জোকা ভারুয়াখালী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ফজলুল হকের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মো. মতিউর রহমানের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহাম্মেদ চৌধুরী, সদর আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা ইঞ্জিনিয়ার মো.  মোজাফ্ফর হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ আশরাফ হোসেন তরফদার, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ব ম জাফর ইকবার জাফু, দপ্তর সম্পাদক মো. আসাদুজ্জামান বাবু, সদস্য এম খলিলুর রহমান, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ডা. এমএ মান্নান, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট হাফিজুর রহমান স্বপন, সাংগঠনিক সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আবুল হোসেন, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ফারজানা ইয়াসমিন লিটা প্রমুখ।

সম্মেলনে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট মুহাম্মদ বাকী বিল্লাহ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও তিনি উপস্থিত ছিলেন না।

জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহম্মেদ চৌধুরী জানান, বুধবার ঘোড়াধাপ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলনে ২৪৩ জন কাউন্সিলরের মধ্যে মাত্র ৩০ জন কাউন্সিলর উপিস্থিত ছিলেন। এতো কম সংখ্যক কাউন্সিলর দিয়ে আমরা সম্মেলন বা সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশন করতে পারি না, তাই ওই ইউনিয়নের সম্মেলন স্থগিত করা হয়েছে এবং পরবর্তী তারিখ নির্ধারণ করে সম্মেলন সম্পন্ন করা হবে। 

বিডি প্রতিদিন/ফারজানা 

এই রকম আরও টপিক

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর