১৬ নভেম্বর, ২০২২ ১৮:১৯

নাচ দেখাল রোবট ‘ব্লু বেরী’

আবদুর রহমান টুলু, বগুড়া

নাচ দেখাল রোবট ‘ব্লু বেরী’

মেলায় অতিথিদের অভ্যার্থনা জানিয়ে ও আনন্দ প্রদানে নাচ দেখিয়েছে রোবট ব্লু বেরী

বগুড়ায় ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলায় অতিথিদের অভ্যর্থনা জানিয়ে ও আনন্দ প্রদানে নাচ দেখিয়েছে রোবট ব্লু বেরী। তার এমন নান্দনিক নাচ দেখে উপস্থিত অর্ধশতাধিক অতিথি অপ্রস্তুত হয়ে যান। যেন একজন মানুষ অতিথিদের অভ্যর্থনা প্রদান করছেন। অতিথি ছাড়াও দিনব্যাপী হাজারো দর্শনার্থীদের বিভিন্ন ভঙ্গিতে নাচ দেখায় রোবটটি।

রোবটটি তৈরি করেছে বগুড়ার জাতীয় কম্পিউটার প্রশিক্ষণ ও গবেষণা একাডেমি (নেকটার)। ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার এই রোবট দেখতে ভিড় করছেন সাধারণ দর্শনার্থীরা। সকাল থেকে দর্শনার্থী ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা এই রোবটি একনজর দেখতে ভিড় করছেন। রোবটির নাম দেওয়া হয়েছে ব্লু বেরী। রোবটটি যে কাউকে হাত উঠিয়ে সালাম দিতে পারে, হাত বাড়িয়ে করমর্দন করতে পারে। দর্শনার্থীদের আনন্দ দিতে বিভিন্ন অঙ্গ-ভঙ্গি করে নৃত্য পরিবেশন করতে পারে।

উদ্ভাবনী জয়োল্লাসে স্মার্ট বাংলাদেশ-এই প্রতিপাদ্যে বুধবার বগুড়া জিলা স্কুল মাঠে শুরু হওয়া ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার জাতীয় কম্পিউটার প্রশিক্ষণ ও গবেষণা একাডেমির (নেকটার) স্টলের সামনে রাখা হয়েছে রোবট ব্লু বেরী। বগুড়া জেলা প্রশাসনের আয়োজনে বুধবার সকাল ১০টায় বেলুন উড়িয়ে দুই দিনব্যাপী ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার উদ্বোধন ও রোবট ব্লু বেরীর অভ্যর্থনা গ্রহণ করেন জেলা প্রশাসক মো. জিয়াউল হক।

মেলা উদ্বোধনী আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক জিয়াউল হক বলেন, আজকের এই মেলার উদ্দেশ্য হচ্ছে সরকারের সকল দপ্তর কিভাবে সেবাকে ডিজিটাল করে মানুষের দোড় গোড়ায় পৌঁছে দিচ্ছে। ডিজিটাল পদ্ধতি ব্যবহার করে এবং আইসিটিকে ব্যবহার করে তাদের সেবার মানকে উন্নত করেছে। সকলে যাতে সহজে সুবিধা পায় সে বিষয়গুলো এই ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলাতে প্রদর্শন করা হচ্ছে। বগুড়ার ১২টি উপজেলায় এই মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) নিলুফা ইয়াসমিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আলী হায়দার চৌধুরী, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আশরাফুল মমিন খান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবর রহমান মজনু, সাধারণ সম্পাদক রাগেবুল আহসান রিপু। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন জেলা প্রশাসনের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট শারমিন সুলতানা।

মেলায় সরকারি-বেসরকারি দপ্তরসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১০৩টি স্টল অংশ নিয়েছে। এছাড়া বর্তমান সরকারের অবকাঠামোগত নানা উন্নয়নমুখী কার্যক্রম ও প্রযুক্তিগত ব্যবহারে এগিয়ে নিতে মেলাতে উপজেলার সরকারি, বেসরকারি দপ্তর ও স্থানীয় তরুণ শিক্ষার্থীরা তাদের নতুন নতুন উদ্ভাবন নিয়ে অংশগ্রহণ করেছে।

বগুড়ার জাতীয় কম্পিউটার প্রশিক্ষণ ও গবেষণা একাডেমির (নেকটার) পরিচালক ও উপ সচিব মো. শাফিউল ইসলাম জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশে রোবট দিয়ে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা সম্ভব। চিকিৎসাক্ষেত্রে, অগ্নিকাণ্ডে, সড়ক দুর্ঘটনা থেকে সতর্ক রাখতে রোবটকে কাজে লাগানো যায়। এ বিষয়গুলো মাথায় নিয়ে নেকটার কাজ করে যাচ্ছে।

বিডি প্রতিদিন/এমআই

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর