৭ জুলাই, ২০২৪ ১৯:২৪

ফেনীতে বৃক্ষরোপণের মহোৎসব করলেন আলাউদ্দিন নাসিম

একযোগে লাগালেন ৫০ হাজার গাছ

ফেনী প্রতিনিধি

ফেনীতে বৃক্ষরোপণের মহোৎসব করলেন আলাউদ্দিন নাসিম

বৃক্ষরোপণ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন আলাউদ্দিন আহমেদ চৌধুরী নাসিম

ফেনীর তিন উপজেলা ফুলগাজী, পরশুরাম ও ছাগলনাইয়ায় একযোগে ৫০ হাজার গাছ লাগিয়ে বৃক্ষরোপণ মহোৎসব শুরু করেছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য আলাউদ্দিন আহমেদ চৌধুরী নাসিম।  

‘এক আঙিনায় তিনটি গাছ, শান্তিতে থাকি বারো মাস’ প্রতিপাদ্যে রবিবার দুপুরে ছাগলনাইয়া উপজেলার চাঁদগাজী উচ্চ বিদ্যালয় অ্যান্ড কলেজ মাঠে প্রায় এক হাজার ২০০ শিক্ষার্থীর মাঝে গাছের চারা ও বৃক্ষরোপণ গাইড বিতরণ করা হয়েছে।

কর্মসূচির আয়োজক সমাজকর্মী শিক্ষানুরাগী ও উদ্যোক্তা আহমেদ মাহি রাসেল জানান, রোপণ ও বিতরণ করা বৃক্ষের মধ্যে ছিল পেয়ারা, মেহগনি, নিম, গামারি, কড়ইসহ বিভিন্ন ধরনের ফলদ, বনজ ও ঔষধি গাছের ১২০০ চারা। এছাড়া প্রত্যেককে দেওয়া হয় একটি করে ‘বৃক্ষরোপণ গাইড’, এই গাইডে কোথায় কী গাছ লাগানো উচিত এবং গাছ রোপণের সঠিক পদ্ধতি খুবই সুন্দরভাবে বর্ণনা করা হয়েছে। 

এসময় বক্তব্য রাখেন ছাগলনাইয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মজুমদার, ছাগলনাইয়া উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও বিদ্যালয়টির পরিচালনা কমিটির সদস্য মেজবাউল হায়দার চৌধুরী সোহেল, ছাগলনাইয়া থানার ওসি হাসান ইমাম প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে গাছ রোপণের প্রয়োজনীয়তা, ছাত্রীদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, গুগল, ইন্টারনেটসহ বিভিন্ন মাধ্যম ব্যবহারে সতর্কতা বিষয়ক মোটিভেশনাল বক্তব্য রাখেন সামাজিক মাধ্যম ব্যক্তিত্ব সোলায়মান সুখন। সভাপতিত্ব করেন মহামায়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহজাহান মিনু। 

এর আগে সকালে পরশুরামের গুথুমাস্থ এলাকায় নিজ বাড়িতে গাছ লাগিয়ে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন আলাউদ্দিন আহমেদ চৌধুরী নাসিম। ‘এক আঙিনায় তিনটি গাছ, শান্তিতে থাকি বারো মাস’ প্রতিপাদ্যের অংশ হিসেবে ফেনীর পরশুরাম, ফুলগাজী ও ছাগলনাইয়া উপজেলায় একযোগে এই বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি শুরু হয়েছে। এতে বনজ, ওষধি ও ফলজ বিভিন্ন প্রজাতির ৫০ হাজার গাছ লাগিয়ে বৃক্ষরোপণের মহোৎসব করা হচ্ছে। 

এ ব্যাপারে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে আলাউদ্দিন আহমেদ চৌধুী নাসিম বলেন, সারাবিশ্বে পরিবেশ বিপর্যয় চলছে। এ অবস্থায় পরিবেশ রক্ষায় গাছ লাগানোর বিকল্প নেই। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকেই বৃক্ষরোপণের বিষয়ে গুরুত্ব দিয়েছেন। পরিবেশগত ও অর্থনৈতিক দুই দিকেই গাছ লাগানোর উপযোগিতা রয়েছে। তিনি বলেন, জনসচেতনতা তৈরি করার জন্য সবাইকে সম্পৃক্ত করে একটি সমন্বিত উদ্যোগের প্রয়োজন ছিল। স্বাভাবিক ভাবে আমরা এই ধরনের কর্মসূচি নিলে সাধারণত দলীয় আওতায় সীমাবদ্ধ থাকে। কিন্তু আজকের এ কর্মসূচি এসব থেকে একদম ব্যতিক্রম। আজ তিন উপজেলার সাধারণ মানুষ প্রত্যেকে নিজ নিজ আঙ্গিনায় গাছ লাগিয়েছেন। সবমিলিয়ে ৫০ হাজার গাছ লাগিয়ে বৃক্ষরোপণ মহোৎসব করা হয়েছে। 

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর