শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২২:০৩

ইন্টারভিউ

দুজন দুজনকে ‘বাবুন’ নামেই ডাকি

দুজন দুজনকে ‘বাবুন’ নামেই ডাকি
রোবেনা রেজা জুঁই। টিভি, চলচ্চিত্রে যার রয়েছে মনোমুগ্ধকর উপস্থিতি। অন্যদিকে তিনি জনপ্রিয় অভিনেতা মোশাররফ করিমের স্ত্রী।  সমসাময়িক ব্যস্ততা ও বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তার সঙ্গে কথা বলেছেন -পান্থ আফজাল

 

বেশ কয়েকদিন ধরেই ‘চাঁন বিরিয়ানী’ নাটকের শুটিংয়ে ব্যস্ত ছিলেন। এই নাটকে আপনি কোন চরিত্র করেছেন?

এটির নির্মাতা কায়সার আহমেদ। পুরান ঢাকার মেয়ে রাজিয়া চরিত্রে অভিনয় করেছি। ভাষা, পোশাক ও স্বভাবে পুরোপুরি পুরান ঢাকার ফ্লেভার পাবেন সবাই। প্রথম লটের কাজ শেষ হয়েছে।

 

দ্বিতীয়বারের মতো গুণী অভিনেতা আবুল হায়াতের সঙ্গে অভিনয় করেছেন। নাটকে তার সঙ্গে আপনার সম্পর্ক কী?

সৌভাগ্যের বিষয় যে, তার সঙ্গে আবারও কাজ করতে পেরেছি। নাটকে তিনি আমার মামা, হোমিওপ্যাথি ডাক্তার।

 

এই নাটকে তো মোশাররফ করিম মানে আপনার ভালোবাসার মানুষও রয়েছেন...

আছেন কিন্তু মজার ব্যাপার হচ্ছে, এটিতে তার সঙ্গে আমার তেমন কোনো সিকোয়েন্স নেই বললেই চলে! তিনি দাদার উত্তরাধিকার সূত্রে পাওয়া ‘চাঁন বিরিয়ানী’র অরিজিনাল মালিক। অন্যদিকে তার চাচাতো ভাই আরফান তার সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে দোকান  দেন ‘নিউ চাঁন বিরিয়ানী’ নামে।

 

আর কি কি কাজ নিয়ে ব্যস্ততা?

মুরসালিন শুভর ৭ পর্বের ‘সদা সত্য কথা বলিব’ শেষ হয়েছে। আগামী মাসের ৮ তারিখ থেকে সাগর জাহান ভাইয়ের দুটি নাটকের কাজ করব। আর কায়সার ভাইয়ের একটি নাটকের কাজ করব। তবে এখনো কনফার্ম হয়নি।

 

আচ্ছা, মোশাররফ ভাইকে কি নামে ডাকেন?

‘বাবুন’ নামে। সেও আমাকে এই নামেই ডাকে। জুঁই নামেও ডাকে। বিয়ের আগে থেকে এমনিতেই তাকে আপনি বলতাম। বিয়ের পরও এই আপনি ব্যাপারটা ছিল প্রায় ৬-৭ মাস।

 

তাকে নিয়ে রাস্তাঘাটে ঘুরতে বা  কেনাকাটা করতে বের হলে কেমন বিড়ম্বনায় পড়তে হয়?

তার ক্রেজ তো অনেক বেশি! বিড়ম্বনায় তো পড়তেই হয়। তার জনপ্রিয়তা এতটাই আকাশচুম্বী যে, তাকে দেখলে ভক্তদের কোনো হুঁশ-জ্ঞান থাকে না। আর এসব তাকিয়ে দেখা ছাড়া আর কোনো উপায় থাকে না।

 

কিছুদিন আগে একমাত্র ছেলে রায়ানের সুন্নতে খৎনা হলো। ছেলেকে কে স্কুলে নিয়ে যায়?

হুম... গত কয়েক বছর ধরেই পরিকল্পনা করছিলাম। তবে সাহস পাচ্ছিলাম না। কারণ সবে তো সে ১২-তে পড়ল। কিছুদিন আগে অনুষ্ঠান করি। দুপুরে ছিল পরিবার ও আত্মীয়স্বজনকে নিয়ে এবং রাতে মিডিয়ার কিছু কাছের মানুষ নিয়ে আয়োজন। আর ছেলেকে স্কুলে নিয়ে যাওয়া তার পক্ষে সম্ভব হয় না। আমিই নিয়ে যাই।

 

মোশাররফ ভাইয়ের কি কি গুণ আপনাকে আকৃষ্ট করে?

তার সততা। সে যা বলে সোজাসুজি বলে, কোনো ভণিতা নেই। সে ভালো গান গাইতে পারে। গানও সুন্দর লেখে। চমৎকার ফটোগ্রাফি করে।


আপনার মন্তব্য