শুক্রবার, ১৬ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ টা

আবার অটো পাসকে উৎসাহিত করা হলো

-ড. আ ন ম এহছানুল হক মিলন

মাহমুদ আজহার

আবার অটো পাসকে উৎসাহিত করা হলো

সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ও বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. আ ন ম এহছানুল হক মিলন বলেছেন, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ছাত্র-ছাত্রীদের উপকারের চেয়ে ক্ষতিই বেশি করলেন। তিনি ছাত্র-ছাত্রীদের আবার পড়াশোনার টেবিল থেকে সরিয়ে অটো পাসকে উৎসাহিত করলেন। এতে শিক্ষার আরও বড় ক্ষতি হবে। এসএসসি ও এইচএসসিতে মৌলিক বিষয় পরীক্ষা না নিয়ে তিনি ঐচ্ছিক বিষয়কে উৎসাহিত করেছেন। এটা বিশ্বের কোথাও নেই।

গতকাল বিকালে বাংলাদেশ প্রতিদিনের সঙ্গে মুঠোফোনে আলাপকালে সাবেক এই শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন। আলাপচারিতায় সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ড. মিলন বলেন,  প্রেস কনফারেন্স করে শিক্ষামত্রী জানান দিলেন যে, দেশে একটি শিক্ষা মন্ত্রণালয় আছে। মূলত প্রেস কনফারেন্সে তিনি কোনো কিছুই সুনির্দিষ্ট করে বলেননি। তিনি বললেন, বাংলা, ইংরেজি, অংক, গণিত, আইসিটি ও ধর্ম অর্থাৎ মূল বিষয়গুলোতে পরীক্ষা হবে না। অতিরিক্ত বিষয়ে পরীক্ষা নেওয়ার কথা বলছেন। এটা বিশ্বে নজিরবিহীন। এতে করে তিনি অনাবশ্যক বিষয়কেই উৎসাহিত করলেন। 

আ ন ম এহছানুল হক মিলন বলেন, শিক্ষামন্ত্রী জাতির এই ক্ষতিটা করলেন যে, ছাত্র-ছাত্রীদের পড়ার টেবিল থেকে সরিয়ে নিলেন। তিনি জানিয়ে দিলেন, মূল বিষয় পড়ার দরকার নেই। অতিরিক্ত সাবজেক্টেই পড়াশোনা হবে। ঐচ্ছিক বিষয়েও যে পরীক্ষা হবে তাও স্পষ্ট নয়। ছাত্র ছাত্রীরা করোনার টিকা দিতে পারলেই পরীক্ষা হবে। তিনি নিজেও জানেন, নভেম্বরের ভেতরে টিকা নেওয়া সম্ভব নয়। আবার বলে দিলেন করোনা সংক্রমণের হার ৫ শতাংশের নিচে না আসলে ছাত্র ছাত্রীদের ক্লাসে যাওয়া যাবে না। সবাই একই এসাইনমেন্ট জমা দেওয়ায় শিক্ষক ও ছাত্র ছাত্রীদের ওপর আস্থা হারিয়ে ফেলেছেন শিক্ষামন্ত্রী। তার মানে পরীক্ষার রেজাল্ট হবে সাবজেক্ট ম্যাপিংয়ের মাধ্যমে। সাবেক এই শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী বলেন, উন্নত বিশ্বে বেসিক শিক্ষাকেই সব সময় গুরুত্ব দেওয়া হয়। আর আমাদের শিক্ষামন্ত্রী দিলেন ঐচ্ছিক বিষয়কে। এটা জাতির জন্য সবচেয়ে দুর্ভাগ্যের বিষয়।

সর্বশেষ খবর