বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ টা
অবৈধ সম্পদ অর্জন

স্বাস্থ্যের গাড়িচালক মালেক ও স্ত্রীর বিরুদ্ধে চার্জশিট দুদকের

বিশেষ প্রতিনিধি

অবৈধ সম্পদ অর্জন ও তথ্য গোপনের অভিযোগে স্বাস্থ্য অধিদফতরের বরখাস্ত গাড়িচালক মো. আবদুল মালেক এবং তার স্ত্রীর নার্গিস বেগমের বিরুদ্ধে চার্জশিট অনুমোদন করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদক। গতকাল এ চার্জশিট অনুমোদনের বিষয়টি নিশ্চিত করেন সংস্থাটির উপপরিচালক (জনসংযোগ) মুহাম্মদ আরিফ সাদেক। দুদকের তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়, আবদুল মালেক তার দুর্নীতি দমন কমিশনে দাখিলকৃত সম্পদ বিবরণীতে ৯৩ লাখ ৫৩ হাজার ৬৪৮ টাকা মূল্যের স্থাবর ও অস্থাবর সম্পদ অর্জনের তথ্য গোপন করে মিথ্যা বা ভিত্তিহীন ঘোষণা দেন।

তদন্ত প্রতিবেদনে আরও উল্লেখ করা হয়, অসাধু উপায়ে অর্জিত ও তার জ্ঞাত আয়ের উৎসের সঙ্গে অসংগতিপূর্ণ ১ কোটি ৫০ লাখ ৩১ হাজার ৮১০ টাকা মূল্যের স্থাবর ও অস্থাবর সম্পদ অর্জন করে তা ভোগদখলে রাখেন। অপরাধে দুর্নীতি দমন কমিশন আইন, ২০০৪-এর ২৬ (২) ও ২৭(১) ধারায় চার্জশিট দাখিলের অনুমোদন দিয়েছে দুদক। একইভাবে দুদকের তদন্ত প্রতিবদেন ড্রাইভার আবদুল মালেকের স্ত্রী নার্গিস বেগমের বিষয়ে বলা হয়, তিনি জ্ঞাত আয়ের উৎসের সঙ্গে অসংগতিপূর্ণ ১ কোটি ১০ লাখ ৯২ হাজার ৫০ টাকা মূল্যের স্থাবর ও অস্থাবর সম্পদ অর্জন করে পারস্পরিক যোগসাজশে প্রত্যক্ষভাবে সহায়তা করায় তাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশন আইন, ২০০৪-এর ২৭(১) এবং দন্ডবিধি ১০৯ ধারায় চার্জশিট দাখিলের অনুমোদন দিয়েছে দুদক। এদিকে সোমবার অস্ত্র আইনের মামলায় স্বাস্থ্য অধিদফতরের বরখাস্ত গাড়িচালক আবদুল মালেককে দুই ধারায় ১৫ বছর করে ৩০ বছরের কারাদন্ড দিয়েছে আদালত। অবৈধ অস্ত্র, জাল টাকার ব্যবসা, চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসকান্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে গত বছরের ২০ সেপ্টেম্বর ভোরে রাজধানীর তুরাগ থেকে স্বাস্থ্য অধিদফতরের গাড়িচালক মালেককে গ্রেফতার করে র‌্যাব। এ সময় তার কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, একটি ম্যাগজিন, ৫ রাউন্ড গুলি, দেড় লাখ বাংলাদেশি জাল নোট, একটি ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোন সেট জব্দ করা হয়। ওই ঘটনায় অস্ত্র ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে দুটি মামলা করে র‌্যাব। মামলাগুলোয় কয়েক দফা রিমান্ড শেষে ওই বছরের ৯ ডিসেম্বর তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেওয়া হয়। এর পর থেকে তিনি কারাগারেই আছেন।

সর্বশেষ খবর