শিরোনাম
প্রকাশ : ১৮ এপ্রিল, ২০১৯ ২২:১৬

'যুক্তরাষ্ট্র যে উদাহরণ সৃষ্টি করল তার পরিণতি অনেকেই ভোগ করতে হবে'

অনলাইন ডেস্ক

'যুক্তরাষ্ট্র যে উদাহরণ সৃষ্টি করল তার পরিণতি অনেকেই ভোগ করতে হবে'

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাওয়াদ জারিফ তার দেশের একটি নিয়মিত সেনাবাহিনীকে সন্ত্রাসী সংগঠনগুলোর তালিকায় স্থান দিয়ে আমেরিকা যে অন্যায় করেছে তার বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান গ্রহণের জন্য বিশ্বের দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি সম্পর্কে আমেরিকার ওই পদক্ষেপ সম্পর্কে জানাতে বুধবার বিশ্বের বিভিন্ন দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের কাছে চিঠি পাঠান। চিঠিতে তিনি বলেন, একটি নিয়মিত সেনাবাহিনীকে সন্ত্রাসী আখ্যা দিয়ে আমেরিকা যে বিপজ্জনক উদাহরণ সৃষ্টি করল পরবর্তীতে তার পরিণতি বিশ্বের আরো বহু দেশকে ভোগ করতে হতে পারে। চিঠিতে তিনি আরো বলেন, এর মাধ্যমে আমেরিকা আন্তর্জাতিক ব্যবস্থাকে মারাত্মক হুমকির মুখে ঠেলে দিয়েছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আন্তর্জাতিক বিভিন্ন চুক্তির বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে, আন্তর্জাতিক আইনের প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে এবং সর্বশেষ একটি স্বাধীন দেশের সেনাবাহিনীর একটি অংশকে সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করে প্রমাণ করেছেন, তিনি কেবল একটি দেশের জন্য হুমকি নয় বরং সারা বিশ্বের শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছেন।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের এসব কর্মকাণ্ড এমন এক স্বেচ্ছাচারী আচরণ যা অত্যন্ত বিপজ্জনক। এ ব্যাপারে নীরবতা সারা বিশ্বের জন্য খারাপ উদাহরণ হয়ে থাকবে এবং ভবিষ্যতে এর পরিণতি সব দেশকেই ভোগ করতে হবে। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প নানা উপায়ে বিভিন্ন স্বাধীন দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করছে। এ ব্যাপারে ইরান ও ভেনিজুয়েলায় মার্কিন হস্তক্ষেপের কথা উল্লেখ করা যায়। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ইরানের আইআরজিসিকে সন্ত্রাসী সংগঠনের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করায় রাশিয়া ও তুরস্কসহ আরো অনেক দেশ এর বিরোধিতা করেছে।

চীনা দৈনিক গ্লোবাল টাইমস আইআরজিসির বিরুদ্ধে মার্কিন পদক্ষেপের প্রতিক্রিয়ায় বলেছে, তথাকথিত সন্ত্রাসবাদকে ব্যবহার করে আমেরিকা শত্রু কিংবা বিরোধী দেশগুলোকে দুর্বল করার চেষ্টা চালাচ্ছে। ট্রাম্পের এসব পদক্ষেপ বিশ্ব শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়ানোয় এর বিরুদ্ধে সমন্বিত পদক্ষেপ নেয়া সব দেশের জন্য জরুরি হয়ে পড়েছে।

মার্কিন সরকারের আন্তর্জাতিক রীতিনীতি বিরোধী কর্মকাণ্ড শুধু ইরান ইস্যুতেই সীমাবদ্ধ নয়। এ কারণে সব দেশের সতর্ক হওয়া জরুরি। 

মার্কিন রাজনৈতিক বিশ্লেষক মাইলস হানিগ মার্কিন প্রেসিডেন্টের স্বেচ্ছাচারী নীতিকে জাতিসংঘের জন্য হুমকি হিসেবে উল্লেখ করে বলেছেন, এ পদক্ষেপ বিশ্বে যুদ্ধ উন্মাদনা বাড়িয়ে দিতে পারে। 

জাতিসংঘে নিযুক্ত ইরানের সাবেক রাষ্ট্রদূত গোলাম আলী খোশরো বলেছেন, মার্কিন এ স্বেচ্ছাচারী আচরণের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক সমাজের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার কোনো বিকল্প নেই।

বিডি প্রতিদিন/১৮ এপ্রিল ২০১৯/আরাফাত


আপনার মন্তব্য