শিরোনাম
প্রকাশ : ২৩ নভেম্বর, ২০১৯ ০১:১১
আপডেট : ২৩ নভেম্বর, ২০১৯ ১১:৪৪

ইসরায়েলের জেলে ৪০ বছর ধরে ফিলিস্তিনি নায়েল, মুুক্তির আশায় পরিবার

অনলাইন ডেস্ক

ইসরায়েলের জেলে ৪০ বছর ধরে ফিলিস্তিনি নায়েল, মুুক্তির আশায় পরিবার

নায়েল বারগৌথি (৬২) একজন ফিলিস্তিনি। ১৯৭৮ সালে তাকে দিয়েই ইসরায়েলি বাহিনী ফিলিস্তিনিদের গ্রেফতার শুরু করে। অর্থাৎ ইসরায়েলের হাতে গ্রেফতার হওয়া তিনিই প্রথম ব্যক্তি। 

দেখতে দেখতে পার হতে চলেছে তার কারাভোগের ৪০ বছর। মাঝে একবার মুক্তি পেলেও ফের গ্রেফতার করা হয় তাকে। যদিও তার পরিবার এখনো আশাবাদী- জালেমদের কারাগার থেকে অবশ্যই মুক্ত হবেন বারগৌথি।

সম্প্রতি নায়েল বারগৌথির স্ত্রী ইমান নাফির সাক্ষাৎকার নিয়েছে বার্তা সংস্থা আনাদুলু এজেন্সি। শুক্রবার প্রকাশিত এ সাক্ষাৎকার থেকেই জানা যায় বারগৌথির জন্য পরিবারের অপেক্ষার কথা।

পরিবারের আশা, দীর্ঘদিন ধরে ইসরায়েলের জেলে আটকে থাকা বারগৌথিকে একদিন তারা মুক্ত হিসেবে দেখতে পাবেন। যদিও কারাভোগের ৪০ বছর ইতোমধ্যে পার হয়ে যাচ্ছে।

কথা বলার সময় অশ্রু গড়িয়ে পড়ছিল ইমান নাফির। নাফি বলেন, তিনি (নায়েল বারগৌথি) আবারও মুক্ত জীবনযাপন করতে পারবেন। আমি তার জন্য এখানেই অপেক্ষা করে থাকবো।

১৯৭৮ সালে গ্রেফতার হওয়া নায়েল ২০১১ সালে ৩৪ বছর কারাভোগের পর একবার মুক্তি পেয়েছিলেন। সেবার মুক্তি মিলেছিল হামাস এবং ইসরায়েলের মধ্যে হওয়া একটি বন্দিবিনিময় চুক্তির আওতায়। কিন্তু ২০১৪ সালে বন্দিবিনিময় চুক্তির আওতায় মুক্তি পাওয়া অন্য অনেকের সঙ্গে আবারও তাকে গ্রেফতার করা হয়। এবার তাকে দেয়া হয় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড।

২০১১ সালে মুক্তি পাওয়ার পর ইসরায়েলের জেলে তার সঙ্গে ১০ বছর বন্দি থাকা ইমানকে বিয়ে করেন নায়েল। তারা মাত্র ৩১ মাস একসঙ্গে থাকতে পেরেছিলেন। এখন ইমানই একমাত্র অনুমতিপ্রাপ্ত ব্যক্তি যে শুধুমাত্র ইসরায়েলে নায়েলকে দেখতে যেতে পারেন।

ফের গ্রেফতারের রাতের কথা স্মরণ করে ইমান নাফি বলেন, সেই রাতটা আমার জন্য ছিল অত্যন্ত জঘন্য এবং ভৌতিক। নিজেকে বজ্রাহত মনে হচ্ছিল তখন।

বিডি প্রতিদিন/আরাফাত


আপনার মন্তব্য