শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২৭ এপ্রিল, ২০১৪ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৭ এপ্রিল, ২০১৪ ০০:০০

লোকসভা নির্বাচন

রাহুলকে নিয়ে যোগগুরুর মন্তব্যে তোলপাড়

কংগ্রেস সহসভাপতি রাহুল গান্ধীকে নিয়ে যোগগুরু রাম দেবের মন্তব্যে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে ভারতের রাজনৈতিক অঙ্গনে। ওই মন্তব্যের জের ধরে মামলাও হয়েছে কথিত যোগগুরু রাম দেবের বিরুদ্ধে। শুক্রবার উত্তরপ্রদেশের প্রশাসনিক শহর লখনৌতে এক সংবাদ সম্মেলনে রাম দেব বলেছিলেন, 'মধুচন্দ্রিমা আর পিকনিকের অভিজ্ঞতা পাওয়ার জন্যই দলিতদের বাড়িতে ঘুরতে আসেন রাহুল।' এ মন্তব্যের পর রামদেবের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছেন কিছু দলিত কর্মী। যোগগুরু রামদেবের এ মন্তব্য নিয়ে এরই মধ্যে বিভক্ত হয়ে পড়েছে বিজেপি ও কংগ্রেস। বিজেপি বলেছে, যোগগুরু যা বলেছেন, বুঝেশুনেই বলেছেন এবং তিনি মোটেই ভুল বলেননি। অন্যদিকে কংগ্রেস বলেছে, লাগামহীন এ মন্তব্যের জন্য রামদেবকে অবশ্যই ক্ষমা চাইতে হবে। তবে শেষ খবরে জানা যায়, যোগগুরু ক্ষমা না চাইলেও গতকাল দলিতদের উদ্দেশে বলেন, শুক্রবার রাহুলকে নিয়ে তার বক্তব্য ভুলভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। আর এ জন্য তিনি দুঃখ প্রকাশ করেছেন। ওই সংবাদ সম্মেলনে যোগগুরু রামদেব পরিষ্কার ভাষায় রাহুলের প্রতি কটূক্তি করে বলেন, রাহুল গান্ধীর দলিত-দরদি ভাবমূর্তি ভুয়া। তিনি দলিতদের বাড়ি যান পিকনিক আর মধুচন্দ্রিমা করার জন্য। পরে অবশ্য 'মধুচন্দ্রিমা' শব্দটি ব্যবহার করার কথা অস্বীকার করেন তিনি।

গুজরাট মডেলকে কটাক্ষ : গুজরাট মডেলকে 'মোদি মডেল' বলে কটাক্ষ করলেন কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী। পাঞ্জাবের মালবায় গতকাল এক নির্বাচনী প্রচারণায় সোনিয়া বলেন, গুজরাট মডেলের নামে গুজরাটের জনগণকে ঠকানো হচ্ছে। ওই রাজ্যের মানুষ এরই মধ্যে এর ফলও ভোগ করছে। তিনি বলেন, 'এ অবস্থায় একমাত্র ঈশ্বরই পারেন তাদের পরিত্রাণ দিতে।'

সোনিয়ার অভিযোগ, গুজরাটের নামে নরেন্দ্র মোদি নিজেকে বিপণন করছেন। তার প্রশ্ন, 'গুজরাটে কী হচ্ছে। ৫০ বছর ধরে এখানে শিখ সম্প্রদায়ের মানুষ বসবাস করছেন। অথচ আজ তাদের এ রাজ্য থেকে বিতাড়িত করা হচ্ছে।' পরক্ষণেই ঈশ্বরের কাছে তার আরজি, 'ঈশ্বর, দয়া করে এই মডেল থেকে দেশকে বাঁচান।' সোনিয়া অভিযোগ করে বলেন, গুজরাটের প্রায় ৪৫ হাজার একর জমি সস্তা মূল্যে এক ব্যবসায়ীর হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। বেশির ভাগ মানুষ এখানে পর্যাপ্ত পানি পাচ্ছে না। বিজেপির আদর্শকেও এদিন তুলাধোনা করেন কংগ্রেস সভানেত্রী। তার মতে, যোগ্যতা বা কর্মদক্ষতা নয়, এই দলে ধর্ম-ভাষা-জাতি দিয়ে মানুষের বিচার করা হয়।

 

 


আপনার মন্তব্য

Bangladesh Pratidin

Bangladesh Pratidin Works on any devices

সম্পাদক : নঈম নিজাম,

নির্বাহী সম্পাদক : পীর হাবিবুর রহমান । ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের পক্ষে ময়নাল হোসেন চৌধুরী কর্তৃক প্লট নং-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, বারিধারা, ঢাকা থেকে প্রকাশিত এবং প্লট নং-সি/৫২, ব্লক-কে, বসুন্ধরা, খিলক্ষেত, বাড্ডা, ঢাকা-১২২৯ থেকে মুদ্রিত। ফোন : পিএবিএক্স-০৯৬১২১২০০০০, ৮৪৩২৩৬১-৩, ফ্যাক্স : বার্তা-৮৪৩২৩৬৪, ফ্যাক্স : বিজ্ঞাপন-৮৪৩২৩৬৫। ই-মেইল : [email protected] , [email protected]

Copyright © 2015-2020 bd-pratidin.com