শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২২:৫৩

খালেদার অনুপস্থিতিতে বিচার চলবে কিনা আজ সিদ্ধান্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক

খালেদার অনুপস্থিতিতে বিচার চলবে কিনা আজ সিদ্ধান্ত

পুরনো কারাগারে স্থাপিত অস্থায়ী এজলাসে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার প্রধান আসামি খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে বিচার চলবে কিনা, তা জানা যাবে আজ। নাজিমউদ্দিন রোডের এই কারাগারে স্থাপিত এজলাসেই ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক ড. মো. আখতারুজ্জামান এ বিষয়ে আদেশ দেবেন। এর আগে ১৩ সেপ্টেম্বর আদেশের জন্য এ দিন ধার্য করেছিলেন বিচারক। এদিকে খালেদা জিয়া শারীরিকভাবে সুস্থ থাকলে আদালতে হাজির হবেন বলে  জানিয়েছেন তাঁর আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া। গতকাল কারাগারে খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে তিনি এ কথা বলেন। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের সাজা মাথায় নিয়ে পুরনো এই কারাগারের একটি কক্ষে বন্দী রয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন। ১২ ও ১৩ সেপ্টেম্বর দুই ধার্য তারিখেই শুনানির জন্য আদালতে আসতে অস্বীকৃতি জানান তিনি। এরপর আসামির অনুপস্থিতিতে বিচার চালানো যায় কিনা, এ বিষয়ে আইনজীবীদের কাছ থেকে আদালত ব্যাখ্যা নেয়। এ সময় দুদক ও খালেদার আইনজীবীরা পরস্পরবিরোধী বক্তব্য দেন। দুদকের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল বলেন, আসামি উপস্থিত না থাকলেও বিচার সম্ভব। আইনজীবীরা চাইলে তাঁর প্রতিনিধিত্ব করতে পারেন। অন্যদিকে খালেদার আইনজীবীরা বলেন, তিনি (খালেদা) আদালতের হেফাজতে আছেন, তাই আইনজীবীদের প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ নেই। খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে বিচার চালানোর সুযোগ দেখছেন না খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। উল্লেখ্য, আইন মন্ত্রণালয় এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের পরিত্যক্ত কারাগারের একটি কক্ষকে আদালত হিসেবে ঘোষণা করে। ৫ সেপ্টেম্বর সেখানে আদালত বসে। কারাগারে থাকা খালেদা জিয়া সেদিন হাজির হয়ে আদালতকে বলেছিলেন, এ আদালতে ন্যায়বিচার নেই, তিনি অসুস্থ। তিনি আর আদালতে আসবেন না। যতদিন ইচ্ছা আদালত তাকে সাজা দিতে পারে। জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে ৩ কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা লেনদেনের অভিযোগে খালেদা জিয়াসহ চারজনের বিরুদ্ধে ২০১০ সালের ৮ আগস্ট তেজগাঁও থানায় এ মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। মামলার অন্য আসামির মধ্যে রয়েছেন হারিছ চৌধুরী।

সুস্থ থাকাসাপেক্ষে আদালতে যাবেন খালেদা : সুস্থ থাকাসাপেক্ষে আদালতে হাজিরা দিতে যাবেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। গতকাল বিকালে রাজধানীর নাজিমউদ্দিন রোডে অবস্থিত পুরনো কারাগারে খালেদা জিয়ার সঙ্গে ঘণ্টাব্যাপী সাক্ষাৎ শেষে বেরিয়ে এ কথা জানিয়েছেন তাঁর আইনজীবী। কারা কর্তৃপক্ষের অনুমতি পেয়ে এদিন বিকাল ৪টা ২০ মিনিটে খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে সানাউল্লাহ মিয়ার সঙ্গে কারাগারে প্রবেশ করেন আরেক আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার। বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে কারাগার থেকে বের হন তারা। ঢাবিতে মানববন্ধন : বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে বিশেষায়িত হাসপাতালে দ্রুত চিকিৎসার ব্যবস্থা ও তাঁর নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) বিএনপিপন্থি শিক্ষকদের সংগঠন সাদা দল। গতকাল দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে এ মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। মানববন্ধনে অর্ধশতাধিক শিক্ষক অংশ নেন। এতে বক্তব্য দেন অধ্যাপক সদরুল আমিন, অধ্যাপক মো. আকতার হোসেন খান, ড. সিরাজুল ইসলাম, ড. সুকোমল বড়ুয়া, ড. মো. ছিদ্দিকুর রহমান খান, সাদা দলের আহ্বায়ক অধ্যাপক এ বি এম ওবায়দুল ইসলাম, যুগ্ম-আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মোর্শেদ হাসান খান ও ড. লুত্ফর রহমান। সভাপতির বক্তব্যে ড. এ বি এম ওবায়দুল ইসলাম বলেন, দেশ আজ গভীর সংকটে নিপতিত। বাকস্বাধীনতা নেই। হামলা-মামলা ও দুঃশাসনের রাজনীতি চলছে। গণতন্ত্র নেই। তারই উদাহরণ দেশের সাবেক তিনবারের প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া মিথ্যা মামলায় কারাগারে বন্দী। আমরা তাঁর নিঃশর্ত মুক্তি ও বিশেষায়িত হাসপতালে চিকিৎসার দাবি জানাই।

ড. সদরুল আমিন বলেন, সম্পূর্ণ মিথ্যা মামলায় খালেদা জিয়াকে সাজা দিয়ে সরকার কারাবন্দী করেছে। আমি অবিলম্বে মুক্তি ও তাঁর পছন্দমাফিক হাসপাতালে সুচিকিৎসার দাবি জানাচ্ছি।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর