Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২৩:২৫

যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

বোমা মেরে খুন বিএনপি নেতাকে

প্রতিদিন ডেস্ক

যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

নাটোরের শহরতলির দত্তপাড়া এলাকায় বড়হরিশপুর ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি হাসান আলীকে (২৪) কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। নিহত হাসান দত্তপাড়া এলাকার মংলার খাঁর ছেলে। গতকাল বিকাল সাড়ে ৫টায় এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিকালে হাসান দত্তপাড়া বাজারে একটা চায়ের দোকানে আসা মাত্র ৩/৪ জন  দুর্বৃত্ত ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে তাকে রক্তাক্ত জখম অবস্থায় ফেলে যায়। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য নাটোর আধুনিক হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজে নেওয়ার সময় পথিমধ্যে তিনি মারা যান। হত্যার প্রকৃত কারণ এখনো জানা যায়নি। নাটোর সদর থানার ওসি কাজী জালাল উদ্দীন আহম্মেদ জানান, হাসান আলীকে হত্যার ঘটনা শুনেছি। আইনশৃঙ্খলা রক্ষার্থে দত্তপাড়ায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত চলছে।

বোমা হামলায় বিএনপি নেতা নিহত : বাগেরহাটের রামপাল উপজেলায় বোমা হামলায় স্থানীয় এক বিএনপি নেতা নিহত হয়েছেন। গতকাল সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ভরসাপুর বাজারে কয়েকজন যুবক তার ওপর বোমা হামলা চালায় বলে বাগেরহাটের পুলিশ সুপার পংকজ চন্দ্র রায় জানান।

নিহত খাজা মঈনুদ্দিন আখতার (৫২) রামপাল উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। তিনি উজলকুড় ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ছিলেন। তার বাড়ি রামপালের বামুনডহর গ্রামে।

পুলিশ সুপার ঘটনাস্থল পরিদর্শনে করেছেন। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

তবে কারা কী কারণে তার ওপর বোমা হামলা চালিয়েছে তা তৎক্ষণাৎ জানা যায়নি।

পুলিশ সুপার পংকজ চন্দ্র রায় বলেন, ‘গতকাল সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে খাজা মঈনুদ্দিন আখতার ভরসাপুর বাজারের ভিতরের রাস্তায় দাঁড়িয়ে নজু শেখ নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে কথা বলছিলেন। এ সময় একদল অজ্ঞাত সন্ত্রাসী পেছন থেকে তার ওপর বোমা নিক্ষেপ করে পালিয়ে যায়। বোমাটি বিকট শব্দে বিস্ফোরিত হয় এবং চারদিকে ধোঁয়ায় আচ্ছন্ন হয়ে পড়ে।’

এসপি জানান, স্থানীয় লোকজন রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি বলেন, ঘটনার পর সেখানে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক রয়েছে। তবে কারা কী কারণে তার ওপর বোমা হামলা চালিয়েছে তা অনুসন্ধান করতে পুলিশ কাজ শুরু করেছে। এখনো কাউকে গ্রেফতার করা যায়নি।

খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক রিপন রায় বলেন, ‘বোমা হামলায় আহত খাজা মঈনুদ্দিন আখতারকে মৃত অবস্থায় এখানে নিয়ে আসা হয়। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে আসার পথেই তার মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করছি।’

রামপাল উপজেলা বিএনপির সভাপতি হাফিজুর রহমান তুহিন বলেন, ‘খাজা মঈনুদ্দিন আখতার উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্বে ছিলেন। তার ওপর যারা বোমা হামলা চালিয়েছে তাদের খুঁজে বের করতে প্রশাসনের কাছে দাবি জানাচ্ছি।’


আপনার মন্তব্য