শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০২:০৩

অষ্টম কলাম

এক বছর পর শুক্কুর শাহ কারামুক্ত

ইয়াবার মামলায় ভুল আসামি

আদালত প্রতিবেদক

এক বছর পর শুক্কুর শাহ কারামুক্ত

রাজধানীর হাজারিবাগ থানা পুলিশের ভুলে প্রায় এক বছর জেল খেটে মুক্তি পেয়েছে শুক্কুর শাহ নামের এক আসামি। ঢাকার দুই নম্বর বিশেষ জজ আদালত শুক্কুর শাহকে মুক্তি দেওয়ার আদেশ দিলে গতকাল কেরানীগঞ্জের কারাগার থেকে মুক্তি পান তিনি। এ বিষয়ে শুক্কুরের আইনজীবী মো. মেসবা উদ্দীন সাংবাদিকদের জানান, ভুল করার কথা স্বীকার করে আদালতে গতকাল ক্ষমা চেয়েছে পুলিশ। পরে বিচারক মুক্তির আদেশ দেন এবং রাতেই শুক্কুর শাহ কারাগার থেকে ছাড়া পেয়েছেন। মামলা সূত্রে জানা গেছে, শুক্কুর আলী (৩৭) নামের এক ব্যক্তিকে শাহবাগ থানার মাদক মামলায় ২০১১ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি গ্রেফতার করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর। তদন্ত করে পরের মাসে শুক্কুর আলীর বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়। পরে মামলাটি বিচারের জন্য ২০১১ সালের ১১ মে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-২ এ পাঠানো হয়। ২০১২ সালের ২০ জুন জামিন পায় শুক্কুর আলী। এরপর ২০১৩ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি থেকে শুক্কুর আলী পলাতক থাকায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে আদালত। ওই গ্রেফতারি পরোয়ানা তামিল করতে গিয়ে পুলিশ ভুলে শুক্কুর শাহকে গ্রেফতার দেখানোর আবেদন করে আদালতে।

পরে ২০১৮ সালের ৪ মার্চ হাজারীবাগ থানা পুলিশ আদালতে প্রতিবেদন দিয়ে বলে, শুক্কুর আলী হাজারীবাগ থানার আরেকটি মাদক মামলায় (মামলা নম্বর ৯(৩)১৮) ৩ মার্চ গ্রেফতার হয়ে কারাগারে আছে। তাকে এ মামলায় গ্রেফতার দেখানো হোক। পুলিশের আবেদন পাওয়ার পর শুক্কুর আলীকে আদালতে হাজির করার জন্য জেল কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেয়া হয়। এ সময় গত বছরের ১ মার্চ শুক্কুর শাহের আইনজীবী আদালতে বলেন, পুলিশ যাকে শুক্কুর আলী বলে এ মামলায় গ্রেফতার দেখিয়েছে তিনি আসলে শুক্কুর শাহ। এ মামলার আসামি তিনি নন। এরপর থানা পুলিশ ও জেল কর্তৃপক্ষের প্রতিবেদনের জন্য কেটে গেছে কয়েক মাস। পরে মামলার বাদী মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের পুলিশ পরিদর্শক মোফাজ্জল হোসেন গত ৩০ জানুয়ারি কাঠগড়ায় আসামিকে দেখে আদালতে বলেন, ‘এ আসামিকে তিনি গ্রেফতার করেননি। আদালত তখন আদেশে বলেন, পুলিশ আর কারাগারের প্রতিবেদন এক নয়। আদালত জেল সুপার এবং হাজারীবাগ থানার ওসি এবং এসআই মমিনুলকে আজ হাজির হওয়ার নির্দেশ দেন। তিনজনই আদালতে হাজির হন। পরে এসআই মমিনুল হক ভুল স্বীকার করে আদালতে বলেন, শুক্কুর আলী আর শুক্কুর শাহ একই ব্যক্তি নন। শুক্কুর শাহকে এ মামলায় গ্রেফতার দেখানোর আবেদন ভুল হয়েছে। দুজন আসামির নাম শুক্কুর। যে কারণে এ ভুল হয়েছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর